Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

জানলার রেলিংয়ে ঝুলছে মৃতদেহ! কেরলে রহস্য মৃত্যু অভিনেত্রীর, গ্রেপ্তার স্বামী

1 min read

।।  প্রথম কলকাতা ।।

২০২০ থেকে একের পর এক তারকার মৃত্যুর সাক্ষী থেকেছে সমগ্র টলি-বলির ভক্তরা। এবার সেই তালিকায় যুক্ত হলেন কেরলের অভিনেত্রী তথা মডেল সাহানা। বৃহস্পতিবার রাতেই কেরলের কোঝিকোড়ে ভাড়া ফ্ল্যাটের জানলার রেলিংয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার হয় তাঁর মৃতদেহ। এদিন ছিল তাঁর ২২ তম জন্মদিন। জীবনের এই বিশেষ দিনে রহস্য মৃত্যুর জন্য দায়ী কে? আঙ্গুল উঠছে তাঁর স্বামী স্মামী সাজ্জাদ এর দিকে।

এদিন সাহানার মা উভেইমা পুলিশকে জানায়, “বৃহস্পতিবারই মেয়ের জন্মদিন ছিল। বার্থডে সেলিব্রেট করতে বাড়ি আসার কথা ছিল সাহানার। ফোনে কথা বলে বুঝেছিলাম খুব আনন্দেই রয়েছে সাহানা। কিন্তু সেসব আর হলনা।”

শুক্রবার সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে সাহানার মা বলেন, “আমার মেয়ে কখনো আত্মহত্যা করে মরবে না, তাকে খুন করা হয়েছে। সারাক্ষণ কাঁদতেন মেয়ে বলতো যে তারা তাকে নির্যাতন করছে। স্বামী মাতাল হয়ে ঝামেলা তৈরি করত। এমনকি সাজ্জাদের বাবা-মা এবং বোনও তাকে নির্যাতন করছিলেন, তখন আমি তাদের আলাদা বাড়িতে থাকার পরামর্শও দিয়েছিলাম। সেই মতো কেরলের কোঝিকোড়ে ভাড়া ফ্ল্যাটে থাকতো সাহানা এবং সাজ্জাদ। এর পরেও আমার মেয়ে আমাকে বলেছিল যে সে তার সাথে খারাপ ব্যবহার করছে এবং টাকা চায়।”

সাহানার মায়ের কথায়, “সাহানার যখন বিয়ে হয় তখন সাজ্জাদ কাতারে চাকরি করতেন। কিন্তু বিয়ে হওয়ার কিছুদিন পরেই চাকরি ছেড়ে দেন তিনি। কারণ সাহানা মডেলিং করে তখন প্রচুর আয় করছেন। পাশাপাশি তামিল ছবিতে অভিনয়ও করছিলেন সাহানা। সাহানার আয়ের অনেকটা সাজ্জাদ ভোগ করতেন বলে দাবি করেছেন সাহানার মা। সাজ্জাদের পরিবারের বিরুদ্ধে প্রচুর সোনা পণ চাওয়ার অভিযোগ রয়েছে সাহানার আত্মীয়দের।”

তবে হঠাৎ খুন কেন? জানা যায়, সম্প্রতি এক বিজ্ঞাপনে কাজ করে মোটা অঙ্কের চেক পেয়েছিল সাহানা। সেটার দিকে নজর ছিল সাহানার স্বামী সাজ্জাদের। এমনকী, টাকা না দিলে খুন করার হুমকিও দিয়েছিলেন বলে দাবি সাহানার মায়ের। আর তাঁর জেরেই হয়তো এই পরিস্তিতি। শুক্রবার সাহানার পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতেই সাজ্জাদকে হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ। তবে সাজ্জাদ বলছেন, সাহানা আত্মহত্যা করেছেন। ঘটনার যাচাই করতে তদন্ত করছে পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে সাহানার বন্ধু-বান্ধব ও সহকর্মীদেরও।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories