Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

যৌতুকের মোটরসাইকেল না পেয়ে খুন শ্যালককে, গ্রেফতার জামাইবাবু

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

বায়না ধরেছিল দিদির সঙ্গে দিদির শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে আসবে ।সেই মতো বাধ্য হয়ে ভাইকে সঙ্গে করে নিয়ে এসেছিলেন দিদি শাহজাদী বিবি । কিন্তু ভাই এর যে এইরকম পরিনতি হবে তা কল্পনাও করতে পারেননি তিনি । আচমকাই ওই খুদে নিখোঁজ হয়ে যায় বুধবার। তারপর থেকে তাঁর কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। অবশেষে পুলিশ তদন্ত করতে এক চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ্যে এল। জানা গেল শ্বশুরবাড়ি থেকে মন মতো যৌতুক না পাওয়ায় জামাইবাবু খুন করে শ্যালককে জঙ্গলে ফেলে দিয়ে এসেছিলেন।

ঘটনাটির সূত্রপাত শাহজাদী বিবি এবং সোহেল শেখ এর বিবাহকে কেন্দ্র করে। বিয়ের সময় নদিয়ার থানারপাড়া থানা এলাকার বাসিন্দা সোহেল তাঁর শশুর বাড়ির কাছ থেকে যৌতুকে একটি মোটরসাইকেল চেয়েছিলেন। তবে সেই মোটরসাইকেল জামাইকে দিতে পারেনি শাহজাদীর বাবা । যার ফলে বিয়ের পর থেকেই স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে এই নিয়ে অশান্তি লেগেই থাকত। বেশ কয়েকবার শ্বশুর বাড়িতে ফোন করে মোটরসাইকেল দেওয়ার জন্য চাপ দিয়েছিল সোহেল।

শাহজাদী বিবি কিছুদিন আগে বিহারের পূর্ণিয়ায় তাঁর বাবার বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছিলেন। আর তারপর সোহেলের বাবার সহিদুল শেখ বৌমাকে আনতে বিহারে যান । কিন্তু শাহজাদীর ভাই দিল ইসলাম(৬) তাঁর সঙ্গে আসার জন্য বায়না ধরে । অবশেষে একপ্রকার বাধ্য হয়ে ভাইকে নিয়ে ফিরতে হয় শ্বশুর বাড়িতে। আর শশুর বাড়ি থেকে আসার সময় যৌতুকের মোটরসাইকেল এর বদলে শ্যালককে নিয়ে আসায় রীতিমতো ক্ষুব্ধ হয় সোহেল। যার জন্য শাহজাদীকে বেধড়ক মারধর করে সে।

তারপর বুধবার বিকেলে বছর ছয়েকের খুদে শ্যালককে নিয়ে ধোড়াদহ বাজার এলাকায় ঘুরতে যাবেন বলে বের হন সোহেল। আর তারপর থেকেই নিখোঁজ ওই নাবালক। এই ঘটনার অভিযোগ দায়ের করা হয় থানায়। পুলিশ তদন্ত শুরু করে। অন্যদিকে আসল ঘটনা চাপা দিতে নিজেই এলাকায় মাইকিং করে সোহেল। শ্যালককে হন্যে হয়ে খোজা শুরু করে সে। অবশেষে ধোড়াদহ বাজার এলাকার এক ব্যবসায়ীর দোকানের সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখে জানতে পারা যায় যে বুধবার রাতে ওই শিশুকে সাইকেলে চাপিয়ে জলঙ্গি নদীর দিকে নিয়ে গিয়েছিল সোহেল । আর তারপর সোহেলকে চেপে ধরতে আসল ঘটনা নিজের মুখে স্বীকার করে সে।

জানায়, মোটরসাইকেল না পাওয়ার ক্ষোভ আগে থেকেই ছিল তাঁর । তার ওপরে আবার স্ত্রী বাপের বাড়ি থেকে শ্যালককে নিয়ে আসায় আরও ক্ষুদ্ধ হয়ে যান তিনি। তাই ওই খুদে শ্যালককে শ্বাসরোধ করে প্রথমে খুন করেন আর তারপর মুর্শিদাবাদের ডোমকল এলাকার দিকে ফুলবাড়ি নদীর পাড়ে একটি জঙ্গলের মধ্যে ফেলে দিয়ে আসেন। শুক্রবার বিকেলে থানারপাড়া থানার পুলিশ সেখানে গিয়ে উপস্থিত হয় এবং উদ্ধার করে ওই নাবালকের পচা-গলা দেহ।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories