Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

‘স্বজনপোষণ-দুর্নীতিতে একটা গোটা দশক নষ্ট হয়ে গেছে’, কংগ্রেসকে তুলোধোনা মোদীর

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

উদয়পুরে চলছে কংগ্রেসের তিনদিনের চিন্তন শিবির। সম্প্রতি, একের পর এক নির্বাচনে পরাজয়ের সম্মুখীন হয়েছে কংগ্রেস। আবার দলের মধ্যে চলছে নানা মতানৈক্য ,এই সমস্ত সমস্যার সমাধানেই এই শিবিরের আয়োজন, এর সঙ্গে সঙ্গেই আগামী লোকসভা নির্বাচনের নিরিখে দলের সাংগঠনিক পরিবর্তনও এর অন্যতম লক্ষ্য। আর এই চিন্তন শিবিরে থেকেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi) তথা কেন্দ্রীয় সরকারকে আক্রমণ করলেন কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী। তিনি অভিযোগ করেছেন, দেশের আসল সমস্যাগুলি থেকে মানুষের নজর ঘুরিয়ে রাখতে ধর্মীয় মেরুকরণের রাজনীতি করছে বিজেপি। যার পাল্টা জবাব দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি অভিযোগ করলেন, স্বজনপোষণ, নীতি গ্রহণের অক্ষমতা ও দুর্নীতিতে একটা বছর নষ্ট হয়ে গেছে ইউপিএ সরকারের সময়।

গতকাল কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী অভিযোগ করেছেন, গোটা দেশে ধর্মীয় মেরুকরণ ও ভয়ের পরিবেশ তৈরি করছে বিজেপি। আসল সমস্যা গুলি থেকে সাধারণ মানুষের নজর ঘুরিয়ে রাখতেই ধর্মীয় মেরুকরণের রাজনীতিকে তুরুপের তাস করে নিয়েছে বিজেপি। এরপর এর পাল্টা জবাব দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

প্রসঙ্গত গতকাল মধ্যপ্রদেশে স্টার্টআপ কনক্লেভের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ভার্চুয়াল ভাবে। যেখানে তিনি জানালেন, ২০১৪ সালে মাত্র ৩০০ থেকে ৪০০ টি স্টার্টআপ ছিল। কিন্তু গত ৮ বছরে স্বীকৃত স্টার্টআপ সংস্থার সংখ্যা ৭০ হাজার পার করে গেছে। তিনি জানালেন, দেশে বরাবরই নতুন কিছু তৈরি করার একটা অবদমিত আগ্রহ থাকে। যা তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রে উদ্ভাবনের সময় দেখা গেছে। কিন্তু নতুন সংস্থা তৈরীর জন্য যে পরিবেশ, যে সমর্থনের প্রয়োজন হয়, তা এতদিন ছিল না।

এরপরই প্রধানমন্ত্রী অভিযোগ করেছেন, “আমরা দেখেছি কিভাবে স্বজনপোষণ, নীতি গ্রহণের অক্ষমতা ও দুর্নীতিতে একটা দশক নষ্ট হয়ে গেছে। আমাদের যুব প্রজন্মের কাছে নতুন স্বপ্ন রয়েছে। নতুন কিছু তৈরি করার জন্য আগ্রহ রয়েছে। কিন্তু আগের সরকারের কোন স্বচ্ছ নীতি না থাকায় তারা শুধু বিভ্রান্তই হত। ২০১৪ সালে বিজেপি সরকার ক্ষমতায় আসার পর দেশের যুব প্রজন্মের মধ্যে উদ্ভাবনী শক্তিকে জাগিয়ে তোলা হয়েছে।”

প্রধানমন্ত্রী আরও জানিয়েছেন, ২০১৪ সালের পর নতুন চিন্তাধারা, উদ্ভাবন ও শিল্পের ওপর জোর দেওয়া হয়েছে। প্রথমে পরিকাঠামোর উন্নয়নে বিনিয়োগ করা হয়েছিল। নতুন নতুন চিন্তাভাবনাকে বাস্তবে পরিণত করতে যা কিছু সাহায্যের প্রয়োজন, তা দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে। যে কারণে স্টার্টআপ আজ শুধুমাত্র মেট্রো শহর গুলির মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। স্টার্টআপে ভারত বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম দেশ।

এভাবেই সোনিয়া গান্ধীর কটাক্ষের মোক্ষম জবাব দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি অভিযোগ করলেন, ইউপিএ সরকারের আমলে স্বজনপোষণ, নীতি গ্রহণের অক্ষমতা ও দুর্নীতিতে একটা গোটা দশক নষ্ট হয়ে গেছে। নতুন প্রজন্মের অনেক কিছু স্বপ্ন ছিল, নতুন কিছু তৈরি করার জন্য আগ্রহও ছিল, কিন্তু ইউপিএ সরকারের আমলে কোন স্বচ্ছ নীতি না থাকার কারণে তারা বিভ্রান্ত হয়েছেন। বিজেপি সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে যুব প্রজন্মের মধ্যে উদ্ভাবনী শক্তিকে জাগিয়ে তোলা সম্ভব হয়েছে। যার ফলে স্টার্টআপ সংস্থা এতটা প্রসারিত হতে পেরেছে। স্টার্টআপের ক্ষেত্রে ভারত বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম দেশে পরিণত হতে পেরেছে।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories