Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

‘ এই ধরনের অনেক রাঘব বোয়াল জালে ধরা পড়বে’, এসএসসি দুর্নীতি নিয়ে মন্তব্য দিলীপের

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

বর্তমানে স্কুল সার্ভিস কমিশন মামলা নিয়ে রাজ্য সরকার যথেষ্ট চাপের মধ্যে রয়েছে। কারণ স্কুল সার্ভিস কমিশন দুর্নীতি মামলায় একের পর এক নাম জড়িয়েছে রাজ্যের মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় (Partha Chattopadhyay) সহ তৎকালীন স্কুল সার্ভিস কমিশনের প্রাক্তন কর্তাদের। তদন্তের রিপোর্টে আরও কী কী তথ্য প্রকাশে আসতে পারে তা নিয়ে বর্তমানে বেশ জলঘোলা হচ্ছে। আর সেই সুযোগ হাতছাড়া করতে চাইছেন না বিরোধী দল। তেমনভাবেই এসএসসি দুর্নীতি নিয়ে এবার মুখ খুললেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি দিলীপ ঘোষ। শনিবার প্রাতঃভ্রমণে এসে এই প্রসঙ্গে সরব হতে শোনা গেল দিলীপ ঘোষকে (Dilip Ghosh)।

তিনি বলেন, ” যখনই সিবিআই ইডি ডাকে তখনই এরা হাসপাতালে চলে যান। কেন যান সেটা এখন বোঝা যাচ্ছে । যতগুলি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে সত্যি সত্যি যদি এই সমস্ত কমিটির রিপোর্ট আসে তাহলে এই ধরনের অনেক রাঘব বোয়াল জালে ধরা পড়বে’। পাশাপাশি তিনি বলেন, এই দল রাজ্যের ক্ষমতায় আসার পর মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করে চলেছে, মানুষকে লুট করছে পরিকল্পনা করে । তাঁর দাবি, প্রায় ৬০০ জনের চাকরি হয়েছে কিন্তু তাঁর মধ্যে অনেকেই পরীক্ষায় বসেননি, উত্তীর্ণ হতে পারেননি । তাদের সকলের কাছ থেকে ১০ লক্ষ করে টাকা নেওয়া হয়েছে। আর এক্ষেত্রে টাকার অঙ্কটা যে কয়েকশো কোটি তা বুঝতে বাকি নেই জনসাধারনের। এমনকি রাজ্য সরকার ক্ষমতায় আসার পর প্রত্যেকটি চাকরির পরীক্ষাতে দুর্নীতি হয়েছে বলে দাবি দিলীপ ঘোষের।

অর্জুন সিং এর সঙ্গে কেন্দ্রের বর্তমানের যে মনোমালিন্য চলছে তাঁর জেরে রাজনৈতিক মহলে জল্পনা তৈরি হয়েছে। একাংশের মত খুব তাড়াতাড়ি দলবদল করতে পারেন তিনি । এমনকি অর্জুন সিং দলবদলের কথায় জানিয়েছিলেন ,সময় হলে সঠিক উত্তর দেবেন। এই প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘ রাজনীতি যারা করে তাঁরা এই ধরনের মন্তব্য করেন। সময়ে সবকিছু হবে । এই নিয়ে এত বেশি চিন্তা করার দরকার নেই । বস্ত্রমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁর বৈঠক হয়েছে । সমস্যা সম্পর্কে নিশ্চিত কথা বলা হয়েছে”।

সম্প্রতি সুখেন্দু শেখর রায় নাম না করেই বিজেপির উদ্দেশ্যে বলেছিলেন ,সাম্প্রদায়িকতায় তাদের রাজনীতির মূলধন। এই প্রসঙ্গে একমত হতে শোনা গেল দিলীপ ঘোষকে। তাঁর কথায়, ‘ সে তো আমরা সাম্প্রদায়িক আছি। এই সাম্প্রদায়িকতা সারা দেশ গ্রহণ করেছে ।কাশ্মীর থেকে কন্যাকুমারী পর্যন্ত। ওনাদের কেন গ্রহণ করছে না ? সবাই জানে আমরা সাম্প্রদায়িক। ওনারাই আমাদেরকে এই সাম্প্রদায়িক তকমা দিয়েছেন, তা সত্ত্বেও জনসাধারণ আমাদেরকে গ্রহণ করে নিয়েছেন’। অন্যদিকে, সম্প্রতি একটি অন্যতম চর্চিত বিষয় হল অনীক দত্তের ‘অপরাজিত’ নন্দনে স্ক্রিনিং করতে দেওয়া হয়নি । এর পেছনেও রাজনীতি রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। সেই প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ বলেন, সেখানে কী রাজনীতি চলছে সে বিষয়ে তিনি জ্ঞাত নন। তবে তাদের এমপি দেবের সঙ্গেও এই ধরনের ঘটনা ঘটেছে। তাঁর ছবিও রিলিজ করতে দেওয়া হয়নি । সেখানে আলাদা হিসাব করা হয় বলেই জানালেন তিনি । আর এইভাবে রাজ্য সরকার শিল্প সাহিত্য কাব্যকে কলুষিত করে চলেছে।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories