Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

কেন খেজুর খেয়ে রোজা ভাঙা হয় ? জানুন আসল কারণ

।। প্রথম কলকাতা ।।

বিশ্বজুড়ে পবিত্র মাস রমজান শুরু হচ্ছে। এই পবিত্র মাসে মুসলমানরা ৩০ দিন উপবাস করেন এবং সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত কিছু খান না বা পান করেন না। গ্রীষ্মকালে রোজাদারদের জন্য এই রীতি মেনে চলা কঠিন হলেও তারা পুরোপুরি মেনে চলেন। এটা বিশ্বাস করা হয় যে এটি ইসলামের শেষ নবী হজরত মুহাম্মদের প্রিয় ফল ছিল খেঁজুর । খেঁজুর খেয়ে ইফতার করতেন। এই ঐতিহ্য আজও অনুসরণ করা হয়। কিন্তু এটা করার পিছনে কিছু যুক্তিও রয়েছে। এই পরিস্থিতিতে, এমন জিনিস খাওয়া উচিত যাতে শরীর তাৎক্ষণিক শক্তি পায়।

• খেঁজুর খেলে শরীরে আরাম পাওয়া যায়, তা ছাড়া ইফতারের সময় খাওয়া জিনিসগুলো ঠিকমতো হজম হয় এবং গ্যাস সংক্রান্ত কোনো সমস্যা হয় না।

•অনেক গবেষণায় এটা উঠে এসেছে যে খেঁজুর খেলে শরীরে প্রয়োজনীয় ফাইবার পাওয়া যায়, তা ছাড়াও এই ফলটিতে প্রচুর পরিমাণে পুষ্টি রয়েছে।

•খেঁজুরে উপস্থিত ম্যাগনেসিয়াম, কপার, ভিটামিন, আয়রন এবং প্রোটিন শরীরকে সচল রাখে।

•খেঁজুরে রয়েছে ক্ষারীয় লবণ, যা রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখে এবং রক্তচাপ বাড়ার ঝুঁকিও কমায়।

•খেঁজুর সহজে হজম হয়, যে কারণে এটি খালি পেটে খেলে কোন ক্ষতি নেই।

সূর্যাস্তের সময় ইফতারি খেয়ে রোজা ভাঙা হয়, এতে অনেক বিশেষ ধরণের খাবার খাওয়া হয়। তবে অবশ্যই এতে খেঁজুর অন্তর্ভুক্ত থাকে। বেশিরভাগ মানুষ শুধুমাত্র ইফতারির সময় খেঁজুর খান এবং বিশ্বাস করা হয় যে এটি ইসলামের শেষ নবী হজরত মুহাম্মদের প্রিয় ফল ছিল। কথিত আছে যে তিনি খেঁজুর।খেয়ে রোজা ভঙ্গ করতেন এবং এই প্রথা আজও অনুসরণ করা হয়। তাছাড়া সারাদিন না খেয়ে থাকার পর খেঁজুর খেলে দ্রুত শক্তি পাওয়া যায়।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories