Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

নিজেকে সুস্থ রেখে নবরাত্রির উপোস করতে মেনে চলুন এই সমস্ত নিয়ম!

1 min read

।।প্রথম কলকাতা।।

২ এপ্রিল থেকে নবরাত্রির উপোস শুরু হতে চলেছে এবং যারা উপোস পালন করতে চলেছেন তারা ইতিমধ্যেই উপোসের দিনগুলিতে খাওয়ার জন্য ব্রত-বান্ধব খাবার কেনার জন্য পূজা সমগ্রী একত্রিত করা থেকে একাধিক প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছেন। নবরাত্রির সময়, যারা উপোস করেন তারা তাদের দিন তাড়াতাড়ি শুরু করেন, মুহুর্ত অনুসারে পূজা করেন এবং উপোসের সময় অনুমোদিত খাবার খান। কিন্তু সঠিকভাবে উপোস করে স্বাস্থ্যকেও ঠিক রাখাটা বেজায় জরুরী, তাই জেনে নিন নিজেকে সুস্থ রেখে কিভাবে উপোস করবেন!

১. প্রচুর তরল জাতীয় খাদ্য পান করুন: আপনি যখন উপোস করেন, তখন হাইড্রেটেড থাকা গুরুত্বপূর্ণ। এমনকি আপনি লেবু জল, নারকেল জল, বাটারমিল্ক এবং গ্রীন টি পান করতে পারেন। প্রচুর জল পান করুন এবং ক্যাফেইনযুক্ত পানীয় এড়িয়ে চলুন। এগুলি আপনার খিদে নিবারণের সাহায্য করে কিন্তু খালি পেটে এগুলি পান করলে আপনার পাচনতন্ত্রকে বিরূপভাবে প্রভাবিত করতে পারে।

২. স্বাস্থ্যকর খাদ্য খান: আপনি যখন খান, তখন স্বাস্থ্যকর খাবার খেতে ভুলবেন না যা আপনাকে শক্তি এবং পুষ্টি দেবে। প্রক্রিয়াজাত খাবার এবং চিনিযুক্ত খাবার এড়িয়ে চলুন। আপনার উপোসের ডায়েটে প্রচুর ফল এবং শাকসবজি অন্তর্ভুক্ত করুন। ফল এবং শাকসবজিতে প্রচুর পরিমাণে পুষ্টি থাকে যা আপনাকে সারাদিন সক্রিয় এবং শক্তিমান রাখতে পারে। ভাজা খাবারকে না বলুন।

৩. অস্বাস্থ্যকর এবং ভাজা খাবার এড়িয়ে চলুন: ভাজা চাট, সাবুদানা ভাদা, পুরি এবং আলুর চিপসের মতো খাবারের আইটেমগুলি জনপ্রিয় হতে পারে তবে সেগুলি অস্বাস্থ্যকর। যে কোনো মূল্যে এ ধরনের খাবার এড়িয়ে চলুন। আপনার পরিষ্কার খাবার ডায়েট প্ল্যানে রাখুন। আপনি যদি এই জাতীয় খাবারের প্রতি আপনার লালসা নিয়ন্ত্রণ করতে না পারেন তবে পরিমিত পরিমাণে খান।

৪. নিজেকে ক্ষুধার্ত রাখবেন না: দীর্ঘ সময় ধরে উপোস এড়িয়ে চলুন। অল্প অল্প সময়ের ব্যবধানে বাদাম, বীজ, ভাজা ছানা এবং মাখানার মতো ছোট স্বাস্থ্যকর খাবার খেতে থাকুন। দীর্ঘ উপোসের সময় দুর্বলতা, রক্তশূন্যতা, ক্লান্তি এবং মাথাব্যথা হতে পারে।

. পর্যাপ্ত ঘুম: উপোস আপনার শরীরের উপর ট্যাক্সিং হতে পারে, তাই পর্যাপ্ত ঘুম নিশ্চিত করুন। এটি আপনাকে মাথা ঘোরা এবং ঝাঁকুনিযুক্ত মাথাব্যথা এড়াতেও সাহায্য করবে। নিশ্চিত করুন যে আপনি প্রতিদিন সঠিকভাবে ৭-৮ ঘন্টা ঘুমান।

৬. ব্যায়াম: নবরাত্রির সময় সুস্থ থাকার জন্য ব্যায়াম একটি দুর্দান্ত উপায়। এটি আপনাকে শুধুমাত্র শারীরিকভাবে সাহায্য করবে না, এটি আপনাকে মানসিকভাবেও সাহায্য করবে।

৭. উজ্জীবিত থাকুন: আপনি যদি একজন কর্মজীবী ​​হন, কিছু বাদাম যেমন আখরোট এবং পেস্তা বহন করুন যা আপনার খিদে মেটাতেও সাহায্য করবে। দই, বাটারমিল্ক, পনির এবং সমস্ত উদ্ভিদ প্রোটিন স্মুদি থেকে আপনার প্রোটিন গ্রহণ করতে ভুলবেন না।

৮. পরিশোধিত চিনি থেকে স্বাস্থ্যকর বিকল্পগুলিতে পরিবর্তন করুন: নবরাত্রির উপোস আপনার চিনির লোভ দূর করার সর্বোত্তম উপায় হতে পারে। প্রতিদিন ২টি কালো খেজুর খাওয়ার মাধ্যমে শুরু করুন। উৎসবের মিষ্টি এড়িয়ে চলুন। বরং ফল খান।

৯. ধ্যান: ধ্যান হল নবরাত্রির সময় আপনার মনকে শিথিল করার এবং ফোকাস করার একটি দুর্দান্ত উপায়।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories