Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

ক্ষমা চাইলো বিমান সংস্থা! “গোটা দেশের হয়ে প্রতিবাদ করেছি” মন্তব্য ঋতুপর্ণার,

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

কিছুদিন ধরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ চর্চিত ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। যার অন্যতম কারণ বিমানে উঠতে না পারা। সোমবার ভোরের বিমানে আমেদাবাদ যাওয়ার ফ্লাইট ধরতে পারেন নি অভিনেত্রী। হাজারো অনুরোধ করার পরেও ছাড় দেয়নি বিমানসংস্থা। আর তাতেই বিমান সংস্থার বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে প্রতিবাদে সরব হন ঋতুপর্ণা। নেটপাড়াতেও অভিনেত্রীকে নিয়ে চলে তুমুল চর্চা।

তবে শেষ পর্যন্ত বৃহস্পতিবার বিমান সংস্থার তরফ থেকে অভিনেত্রীর কাছে চাওয়া হয় ক্ষমা। এদিন সংস্থার ট্যুইটে লেখা হয়, “আপনার অসুবিধার জন্য আমরা ক্ষমাপ্রার্থী। অনেক বার ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হয়েছিল আপনাকে, কিন্তু কোনও ভাবে তা সফল হয়নি। আপনার সুবিধামতো একটা সময় বলুন, আপনাকে আমরা যোগাযোগ করে নেব।”

বৃহস্পতিবার বিমান সংস্থার তরফে করা এই ট্যুইট নিজেস্ব সোশ্যাল হ্যান্ডেলে শেয়ার করে অভিনেত্রী লেখেন, এই অভিযোগটা আমি শুধু আমার জন্য জানাইনি। গোটা দেশের হয়ে প্রতিবাদ করেছি। এই প্রতিবাদ আমার জন্য এবং প্রত্যেকের জন্যও। কিন্তু সমস্যা হল, এখন আমাকে বারবার যাতায়াত করতে হচ্ছে কাজটি শেষ করার জন্য। যে কাজের জন্য যাচ্ছিলাম, তা আহমেদাবাদ শহরে নয়, তার থেকে প্রায় ৩ ঘণ্টা দূরে। ওখানে পৌঁছন খুব সহজ নয়। তাই এত করে অনুরোধ করেছিলাম।”

জানেন ঋতুপর্ণার সাথে সেদিন ঠিক কি কি ঘটেছিলো?

জানা যায় সোমবার অর্থাৎ ২৮ মার্চ ভোরের বিমানে আমেদাবাদ যাওয়ার কথা ছিল নায়িকার। সেখানে দিন রাত শুটিং করার জন্যই তাঁর এই যাত্রা। তাই ভোরের বিমানের বোর্ডিংয়ের সময় ছিল ৪.৫৫। কিন্তু তিনি বিমানবন্দরে এসে পৌছায় ৫.১২ মিনিটে। সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে জানানো হয় বোর্ডিং গেট অনেক্ষন আগেই বন্ধ হয়ে গিয়েছে এবং তাঁকে দেখতে না পেয়ে নাম ঘোষণাও করেছেন কর্তৃপক্ষ। সাড়া না পেলে ফোনেও যোগাযোগ করা হয়। কিন্তু তাতেও কোন সাড়া মেলেনি অভিনেত্রীর তরফ থেকে। অন্যদিকে অভিনেত্রীর দাবি তাঁর ফোন নাকি কোন ফোনই আসেনি। এদিকে সঠিক সময়ে শুটিং-এ না পৌঁছালে প্রযোজকের সমস্যা হবে। বন্ধ হবে শুটিং। আর এসব ভেবেই বিমানে ওঠতে দেওয়ার জন্য অনুরোধ, আকুতি মিনুতি করেন অভিনেত্রী। কিন্তু টানা ৪০ মিনিট ধরে বলার পরেও প্লেনে উঠতে দেওয়া হয়নি তাঁকে। আর তাতেই কান্নায় ভেঙে পড়েন ঋতুপর্ণা। যা সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল।

প্রসঙ্গত এদিন অভিনেত্রী জানান, “মাত্র ৫০ পা দূরে দাঁড়িয়ে বিমান। আমি দেখতে পাচ্ছি। কিন্তু যেতে পারছিনা। অথচ আমার কাছে বোর্ডিং পাস থেকে শুরু করে সিট নম্বর সব মজুত। কিছুদিন আগেই আমায় সংস্থার পক্ষ থেকে সম্মানসূচক পাসপোর্টও দেওয়া হয়েছে। নয় নয় করে বেশ কয়েক বার ওই সংস্থার বিমানে চড়ে যাতায়াতও করেছি। কোন দিন এমন পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হয়নি।”

আবার সেই ঘটনাকে কেন্দ্র করেই বিমান সংস্থা চাইলেন ক্ষমা।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories