Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

ছিলেন ইংরেজির অধ্যাপক , এখন চালাচ্ছেন অটো ! এই ব্যক্তির জীবন আপনাকে ভাবাবে

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

আগে এই ব্যক্তি মুম্বাইতে ইংরেজির লেকচারার হিসেবে কাজ করতেন, কিন্তু আজ তিনি ব্যাঙ্গালোরে অটোরিকশা চালাচ্ছেন। আশ্চর্যের বিষয় হল এই কাজটি তিনি নিজের খুশিতেই করেন। শুধু তাই নয়, তাঁর এক বান্ধবী আছেন, যার সাথে তিনি তাঁর জীবন উপভোগ করছেন। নিকিতা আইয়ার নামে বেঙ্গালুরুর এক মহিলা এই বাস্তব গল্পটি শেয়ার করেছেন।

এই অটো চালকের নাম পাতাবি রমন এবং বয়স ৭৪ বছর। তিনি এখন একজন অটো চালক, তবে তিনি ইংরেজির অধ্যাপক ছিলেন। তিনি মুম্বাইয়ের পাওয়াইতে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকতা করতেন। তাঁর বেতনও ছিল খুবই কম। বেসরকারি প্রতিষ্ঠান হওয়ায় চাকরি ছাড়ার পর পেনশনও পাননি। তিনি এমএ এবং এম এড ডিগ্রি সম্পন্ন করেছেন। জাতপাতের কারণে কর্ণাটকে কাজ না পেয়ে তিনি স্বপ্নের শহর মুম্বাইতে চলে আসেন। সেখানে চাকরি পান।

তিনি বহু বছর ধরে মুম্বাইয়ে কাজ করেছেন। তারপর চাকরি ছেড়ে দিয়ে আবার ফিরে আসেন ব্যাঙ্গালোরে। এরপর তিনি এখানে এসে অটোরিকশা চালাতে থাকেন। গত ১৪ বছর ধরে, তিনি তাঁর জীবিকা নির্বাহের জন্য একটি অটো চালাচ্ছেন। তিনি বলেন “শিক্ষকরা খুব বেশি টাকা পান না” । বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকা পাওয়া যায়, পেনশনও পাননি । কিন্তু এখন অটোরিকশা চালিয়ে প্রতিদিন ৫০০ থেকে ৭০০ টাকা আয় করেন। যা তাঁর এবং বান্ধবীর জন্য যথেষ্ট।

তিনি জানান এই বান্ধবী আসলে ‘সে আমার স্ত্রী কিন্তু আমি তাকে গার্লফ্রেন্ড বলি কারণ আমরা দুজনেই সমান। বউ বললেই স্বামীর মনে আপনা থেকেই ক্রীতদাসের প্রতিচ্ছবি তৈরি হয়। আমি তাকে নিজের থেকে কম মনে করি না, আমরা একে অপরকে সমান হিসাবে বিবেচনা করি। স্ত্রী ৭২ বছর বয়সী, বাড়ির যত্ন নেন, আমি ৯ থেকে ১০ ঘন্টা কাজ করি। আমরা 1BHK তে থাকি।

তিনি আরও জানান, তাঁর বাড়ির ভাড়া ১২ হাজার টাকা। এতে তার ছেলে তাকে সাহায্য করেন। কিন্তু তিনি এটাও বলেন যে তাঁর সন্তান আলাদা থাকেন। তাঁর মতে, ‘আজ আমি রাস্তার রাজা। আমি যে কোন জায়গায় অটো নিয়ে যেতে পারি। আমি আমার নিজের শর্তে কাজ করি’

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories