Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

দিনের পর দিন সৎবাবার যৌন নিগ্রহ, মায়ের সঙ্গে মিলে খুন ডোম জুড়ে

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

দীর্ঘ প্রায় দুমাস ধরে কিশোরী মেয়ের উপর লাগাতার শারীরিক নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে সৎ বাবা। কিন্তু সে কথা বাইরে প্রকাশ করা যায় না। তাতে সমাজের চোখে খারাপ হতে হয় ,লজ্জার মুখে পড়তে হয়, সাথে ভয় থাকে সমসম্মানহানির। তাই অবশেষে এই অত্যাচার থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য মা এবং মেয়ে পরিকল্পনা করে অভিযুক্ত কে শ্বাসরোধ করে তার খুন করার। জানা গিয়েছে ঘটনাটি ঘটে হাওড়ার ডোমজুড়ে।

মৃত শেখ সালেম বর্তমানে ডোমজুড়ের পার্বতীপুরে সোনার দোকানের মালিক। যদিও আগে মুম্বাইতে কর্মরত ছিলেন তিনি। কিন্তু বর্তমানে কয়েক বছর ডোমজুড়ের বসবাস করছেন। এখানেই তিনি তাঁর দ্বিতীয় পক্ষের স্ত্রী সুলতানা বেগম এবং তাঁর কিশোরী মেয়ের সঙ্গে থাকতেন। স্থানীয় সূত্রে খবর, বুধবার রাতে হঠাৎ করেই সুলতানা বেগম তাঁর প্রতিবেশীদেরকে ডেকে নিয়ে যায়। তারপরে প্রতিবেশীরা দেখতে পান তাদের ঘরের মধ্যে বিছানার উপরে শেখ সালেমের নিথর দেহ পড়ে রয়েছে। তাঁর গলায় স্পষ্ট কালো দাগ।

সেখান থেকেই বোঝা যায় কোন কিছু দিয়ে শ্বাসরোধ করে খুন করা হয়েছে সালেম কে। তারপরেই খবর দেওয়া হয় পুলিশের কাছে। ঘটনাস্থলে এসে উপস্থিত হয় পুলিশ । তারা প্রাথমিক তদন্ত এবং জিজ্ঞাসাবাদের পর অনুমান করেন যে তাকে শ্বাসরোধ করে খুন করা হয়েছে । সন্দেহের ভিত্তিতে আটক করা হয় সালেমের স্ত্রী এবং তাঁর কিশোরী মেয়েকে। প্রথমে তাঁরা জানান ,বুধবার সন্ধ্যের দিকে সালামের সঙ্গে দুজন ব্যক্তির বাড়িতে দেখা করতে আসার কথা ছিল । তাই সালেম তাঁর স্ত্রী এবং মেয়েকে বলেছিল সন্ধ্যের সময়টা আত্মীয়র বাড়িতে থাকতে।

সেইমতো তাঁরা আত্মীয়ের বাড়িতে গিয়েছিলেন এবং বাড়ি ফিরে দেখেন মৃতাবস্থায় বিছানার উপর পড়ে রয়েছে সালেম।দফায় দফায় মা-মেয়েকে জিজ্ঞাসাবাদ করতেই অবশেষে আর মিথ্যে বলতে পারেন না তাঁরা। স্বীকার করে নেন খুনের কথা। তারপরে খুনের কারণ হিসেবে যা বলেন তা সত্যিই অত্যন্ত ঘৃণ্য। সুলতানা বেগম জানান, দীর্ঘদিন ধরে সালেম তাঁর সৎ মেয়ের উপর শারীরিক নিগ্রহ করত । সেই অত্যাচার থেকে একেবারে মুক্তি পেতে এই খুনের ছক কষে ছিলেন তাঁরা। বুধবার রাতে মা এবং মেয়ে অভিযুক্তকে শ্বাসরোধ করে খুন করে। এই খুনের ঘটনার স্বীকার করার পর ডোমজুড় থানা পুলিশ গ্রেফতার করে তাদের দুজনকে।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories