Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

পরিচারিকা খুঁজতে গিয়ে অপহরণকারীদের ফাঁদে পা, অবশেষে উদ্ধার পুলিশের তৎপরতায়

।। প্রথম কলকাতা।।

আলিপুরদুয়ারের বাসিন্দা এক ব্যাক্তি কর্মসূত্রে কলকাতায় এসেছিলেন ।ব্যারাকপুরের একটি ভাড়া বাড়িতে থাকতেন তিনি । কিন্তু বর্তমানে তার পরিচারিকার প্রয়োজন হওয়ায় আশে পাশের বেশ খানিক মানুষকে বলে রেখেছিলেন খোঁজ দেওয়ার জন্য। আর সেই পরিচারিকা খুঁজতে গিয়ে অবশেষে অপহরণকারীদের কবলে পড়ল ওই ব্যক্তি । তার পরিবারকে ফোন করে ১০ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ চাওয়া হল। অবশেষে পুলিশের তৎপরতায় দক্ষিণ ২৪ পরগনা কুলতলি থেকে উদ্ধার করা হয় ওই অপহৃতকে।

জানা যায় বছর ৪৫ এর রাজীব চৌধুরী কর্মসূত্রে কলকাতায় থাকছিলেন। বর্তমানে পরিকল্পনা করেছিলেন পরিবারের সকলকে পাকাপাকিভাবে কলকাতায় নিয়ে আসার জন্য । তাই তার প্রয়োজন ছিল একটি পরিচারিকার । সেই পরিচারিকার খোঁজ করতে গিয়েই এমন বিপদের মুখে পড়েন তিনি । সম্প্রতি পরিচারিকার পরিচয় দিয়ে এক কিশোরীর ফোন আসে তার কাছে । ওই কিশোরী তাকে জানায় যে রাজীব বাবুর বাড়িতে পরিচারিকার কাজ করতে রাজি কিন্তু দক্ষিণ ২৪ পরগনা মথুরাপুর এসে ওই কিশোরীর পরিবারের সঙ্গে একবার কথা বলতে হবে তাকে।

ওই কিশোরীর কথা শুনে মঙ্গলবার দক্ষিণ ২৪ পরগনার মথুরাপুর এর উদ্দেশ্যে রওনা দেন তিনি। তারপর মথুরাপুর স্টেশন থেকে তাকে এক ব্যক্তি তাকে বাইকে চাপিয়ে একটি বাড়ির কাছে নিয়ে যায় বলে জানা যায়। পরবর্তীতে সেই বাড়িতেই তাকে আটকে রাখা হয়। রাজীব বাবুর পরিবারকে ফোন করে ১০ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ চাওয়া হয়। এমনকি বেধড়ক মারধর করা হয় রাজীব বাবু কে । রাজীবপুর পরিবার সেই ফোনে হুমকি পাওয়ার পর পুলিশের দ্বারস্থ হয়।

পুলিশ ওই ফোন নাম্বারের লোকেশন ট্র্যাক করে এবং দেখে সেটি দক্ষিণ ২৪ পরগনা কুলতলি এলাকায় রয়েছে। তারপর বারুইপুর জেলা পুলিশ কুলতলি থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারিকের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। বুধবার রাতে একটি পুলিশের টিম গিয়ে হানা দেয় রাধা বল্লভপুর এলাকার ওই বাড়িটিতে। তারপর সেখান থেকেই উদ্ধার করা হয় অপহৃত রাজীব চৌধুরী কে। এই ঘটনায় জড়িত জাহাঙ্গীর বৈদ্য এবং সাদ্দাম খান নামে দুই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তাদেরকে বৃহস্পতিবার আদালতে তোলা হবে বলে জানা গিয়েছে।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories