Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

একাকী বৃদ্ধা ঘরে, বেঁধে রেখে লুটপাট চলল পর্ণশ্রীতে

।। প্রথম কলকাতা।।

বারবার কলকাতায় প্রবীণ নাগরিকদেরকে টার্গেট করছে দুষ্কৃতীরা। কারণ তাদেরকে সহজেই ভুল বুঝিয়ে হাত করা যায়। আর সেই সুযোগ নিয়েই আরও একবার ডাকাতির ঘটনা ঘটলো বেহালা পর্ণশ্রী থানার ইউনিক পার্ক এলাকায় এক বৃদ্ধাকে ঘরে হাত, পা এবং মুখ বেঁধে রেখে লুটপাট চালালো একদল দুষ্কৃতী। তা চোখের সামনে দেখতে পেয়েও কোনো রকম বাধা দিতে পারলেন না অসহায় ওই বৃদ্ধা। অবশেষে বহুকষ্টে বাঁধন মুক্ত হয়ে ওই বৃদ্ধা অভিযোগ দায়ের করেন পর্ণশ্রী থানায়।

কী ঘটেছিল ঘটনাটি? সত্তরোর্ধ্ব এক বৃদ্ধা একাই তাঁর ইউনিক পার্ক এলাকার একটি বাড়িতে থাকতেন । বেশ কয়েক বছর আগে তাঁর স্বামীর মৃত্যু হয় । একমাত্র মেয়ে কর্মসূত্রে আপাতত থাকেন নেদারল্যান্ডে। তাই নিঃসঙ্গ ওই বৃদ্ধা দিন কাটাচ্ছিলেন কলকাতার বাড়িতে। তাঁর অভিযোগ , শনিবার দুপুর নাগাদ মিটার রিডিং দেখার নাম করে চারজনের একটি দুষ্কৃতী দল তাঁর বাড়িতে ঢোকে। প্রথমটায় তিনি তাদেরকে বিশ্বাস করেছিলেন এবং কোনো সন্দেহ হয়নি বলেই বাড়িতে ঢুকতে বলেছিলেন। কিন্তু তার পরেই ঘটলো বিপত্তি।

ওই দুষ্কৃতীরা বৃদ্ধার মুখ, হাত এবং পা বেঁধে তাকে ঘরের এক কোনায় ফেলে রাখে আর তারপর নিজেদের ইচ্ছেমতো আলমারি ভেঙ্গে নগদ টাকা পয়সা এবং জিনিসপত্র লুটপাট করে চম্পট দেয় তাঁরা কিন্তু ওই বৃদ্ধা তখনও পর্যন্ত হাত পা বাঁধা অবস্থায় পড়ে রয়েছেন ঘরে। অবশেষে দীর্ঘক্ষন পর বহু কষ্টে নিজেকে বাঁধন মুক্ত করেন ওই বৃদ্ধা । তারপর পর্ণশ্রী থানায় অভিযোগ দায়ের করেন তিনি। তাঁর অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ তদন্তে নেমেছে কিন্তু এখনও পর্যন্ত এই ঘটনার অভিযুক্তরা অধরা।

বেশ কয়েক বছর ধরে শহর কলকাতায় থাকা একাকী প্রবীণ নাগরিকদেরকে সফ্ট টার্গেট হিসেবে ধরে নিচ্ছে দুষ্কৃতীরা। আর তারপর তাদের বাড়িতে লুটপাট চলছে। বেশ কিছুদিন আগে গড়িয়াহাটে এক বৃদ্ধার এই রকম ঘটনায় প্রাণ পর্যন্ত গিয়েছে । যার ফলে প্রবীণ নাগরিকদের নিরাপত্তা নিয়ে পুলিশের দিকে প্রশ্নের আঙ্গুল উঠেছে। এই ঘটনাগুলি এড়ানোর জন্য এবং প্রবীণ নাগরিকদেরকে নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য বছর দুই আগে কলকাতা পুলিশ এক অভিনব উদ্যোগ নিয়েছিল। প্রবীণ নাগরিকদের বাড়িতে সিসিটিভি ক্যামেরা বসানো হয়েছিল তাদের নিরাপত্তার খাতিরে, কিন্তু তারপরেও এই ধরনের ঘটনা কমানো সম্ভব হয়নি।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories