Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

কিশোরীর বস্তাবন্দি দেহ উদ্ধার, উত্তেজনা ছড়াল নকশালবাড়িতে

।।প্রথম কলকাতা।।

মঙ্গলবার রাতে নকশালবাড়ির একটি পরিত্যক্ত হোটেলের পেছন থেকে উদ্ধার করা হল ১ নিখোঁজ কিশোরীর রক্তাক্ত মৃতদেহ। ধর্ষণ করে কি খুন? উঠেছে প্রশ্ন। আর এই ঘটনার সাথে নাম জড়িয়েছে স্থানীয় এক বিজেপি কর্মীর। কিশোরীর এই রহস্যজনক মৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে শিলিগুড়ি মহকুমায়। পুলিশের অনুমান ওই কিশোরী নির্যাতনের শিকার হয়েছিল এবং তারপর খুন করা হয় তাকে।

শিলিগুড়ি মহাকুমার নকশালবাড়ি রথখোলা এলাকার বাসিন্দা ছিল ওই কিশোরী। পরিবার সূত্রের খবর, মাঝেমাঝেই স্থানীয় একটি চায়ের দোকানে যেত সে। গতকাল সন্ধ্যায় চায়ের দোকান যাবে বলেই বাড়ি থেকে বেরিয়ে ছিল। কিন্তু তারপর আর কোন খোঁজ পাওয়া যায়নি তার। অনেক রাত পর্যন্ত বাড়ি ফিরে না আসায় চিন্তায় পরে পরিবারের লোক জনেরা। পরিবারের সদস্যসহ স্থানীয়রা শুরু করে খোঁজাখুঁজি। তারপর অনেক রাতে ওই কিশোরীর বস্তাবন্দি রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধার করা হয় রথখোলার একটি পরিত্যক্ত হোটেলের পেছন থেকে।

খবর দেওয়া হয় পুলিশে। ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছায় পুলিশ। উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠানো হয় মৃতদেহ। পরিবারের অভিযোগ, এই ঘটনার সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে ওই চা দোকানের মালিক জগদীশ ব্যাপারি। উত্তেজনাবশত অভিযুক্তের বাড়ি এবং চায়ের দোকানে ভাঙচুর চালায় স্থানীয়রা। সে এলাকার সক্রিয় বিজেপি কর্মী বলেও জানা যায়। যদিও এই ঘটনার পর পলাতক চা দোকানি ওই বিজেপি কর্মী।

এলাকার পরিস্থিতি উত্তপ্ত হতে তা সামাল দিতে এসে পৌঁছায় নকশালবাড়ি থানার বিশাল পুলিশবাহিনী। ঘটনাস্থলে গতকাল উপস্থিত ছিলেন খোদ জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, গ্রামীণ ডিএসপি এবং সার্কেল ইন্সপেক্টর। তাঁরা জানান এখনো পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি। অভিযুক্ত পলাতক এবং তাঁর তল্লাশি চলছে। ঐদিন মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়া

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories