Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

স্ত্রীকে নৃশংসভাবে খুন করেও জামিনের আবেদন ? রেগে আগুন সুপ্রিম কোর্ট

।। প্রথম কলকাতা ।।

বর্তমান সমাজে পণ প্রথা অপরাধ হিসেবে গণ্য করা হলেও , সমাজের কিছু মানুষ এখনো পর্যন্ত পণের আশায় বসে থাকেন। অনেক বিবাহের সময় পণ চাওয়া হয় না, কিন্তু বিবাহ পরবর্তী জীবনে মেয়ের উপর একের পর এক অত্যাচারের বোঝা বাড়তে থাকে। অনেকে শ্বশুরবাড়ির অত্যাচারে সংসার ভেঙে বেরিয়ে আসেন , আবার অনেকে নিজের প্রাণ দেন। প্রচুর পরিমাণে কেস জমা পড়ে শুধুমাত্র পণপ্রথার বিরুদ্ধে।

এক্ষেত্রেও রয়ে গিয়েছে কিছু গণ্ডগোল। বহু স্ত্রী তাদের স্বামীকে ফাঁসানোর জন্য মিথ্যা মামলা দায়ের করেন। তবে এবার এমন এক ঘটনা ঘটল যা দেখে সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত রেগে গিয়েছে। এক ব্যক্তি তার স্ত্রীকে পণ চাওয়া নিয়ে হয়রানি এবং মৃত্যুর অভিযোগে অভিযুক্ত হয়েছিলেন। তার জামিনের আবেদন করতেই মুখের উপর নাকচ করে দিল সুপ্রিম কোর্ট।

অভিযোগ অনুযায়ী ওই ব্যক্তি সব সময়ের জন্য যৌতুকের কারণে স্ত্রীর উপর অত্যাচার করতেন। ওই ব্যক্তি এখন যৌতুক হয়রানি এবং স্ত্রীর মৃত্যুর মামলার সঙ্গে যুক্ত। অভিযুক্ত ব্যক্তির হয়ে তার আইনজীবী আদালতে জামিনের আবেদন করেছিলেন। জামিনের আবেদনের পক্ষে যুক্তি দেখিয়ে অভিযুক্তের আইনজীবী দাবি করেন, ওই ব্যক্তির অভিভাবক বা পূর্বসূরী বলে কেউ নেই।

এর জবাবে সুপ্রিম কোর্ট পাল্টা জবাব দেয়, “কী পূর্বসূরি? আপনি কি চান (অভিযুক্ত) প্রতি বছর কাউকে বিয়ে করে (স্ত্রীকে) হত্যা করুক?” পাশাপাশি সুপ্রিম কোর্ট স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছে কখনোই এ ধরনের ব্যক্তিকে জামিন দেওয়া হবে না। উপরন্তু যত দ্রুত সম্ভব বিচারকার্য শুরু করা হবে।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়া

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories