Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

ডানলপের আবাসনে বসবাস বাংলাদেশি জঙ্গির, গ্রেফতারিতে আতঙ্কিত প্রতিবেশীরা

।।প্রথম কলকাতা।।

দীর্ঘদিন ধরে একই আবাসনে ঘরের পাশেই থাকছে এক কুখ্যাত জঙ্গি। ঘুণাক্ষরেও টের পাননি প্রতিবেশীরা। বারবার গা ঢাকা দিলেও এবার অবশেষে পুলিশের হাতে ধরা পড়ল বাংলাদেশের নূরনবী ওরফে তমাল চৌধুরী। তাঁর বিরুদ্ধে বাংলাদেশ বিভিন্ন থানায় খুন, রাহাজানি ,অস্ত্রপাচার, চোরাকারবারের মতো বহু মামলা দায়ের করা রয়েছে। কিন্তু গ্রেফতারের ভয়ে বাংলাদেশ থেকে পালিয়ে যায় সে। বহুদিন ধরেই তল্লাশি চলছিল তাঁর। অবশেষে ধরা পড়ল উত্তর ২৪ পরগনায়।

জানা যায়, নূরনবী বর্তমানে উত্তর ২৪ পরগনার ডানলপের নর্দান পার্ক এলাকায় এক অভিজাত আবাসনের বাসিন্দা। মিষ্টভাষী এবং মিশুকে বলেই পরিচিত সে আবাসনের প্রতিবেশীদের কাছে। ওই আবাসনে একটি মহিলাকে নিয়ে স্ত্রীর পরিচয় থাকে সে। দীর্ঘদিন ধরে রয়েছে এখানে এবং তাঁর কোনো কাজেই প্রতিবেশীদের কোনো রকম সন্দেহ হয়নি আজ পর্যন্ত। তাই তাঁর বাড়িতে হঠাৎ করে পুলিশি হানা এবং তাঁর গ্রেফতারিতে হতবাক প্রতিবেশীরাও। জঙ্গির সঙ্গে এত এতদিন পাশাপাশি থাকার পরেও কিচ্ছুটি বুঝতে পারেননি তাঁরা।

ফলে এই ঘটনা রীতিমতো আতঙ্কের পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে ওই আবাসনে।সোমবার ইন্টারপোল থেকে পাওয়া বিশেষ সূত্রের ওপর ভিত্তি করে তাকে গ্রেফতার করে গোয়েন্দারা। তাঁর কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় একটি ভারতীয় পাসপোর্ট। যেখানে তাঁর নাম তমাল চৌধুরী রয়েছে। মঙ্গলবারও ঐ আবাসনে গোয়েন্দা এবং বরানগর থানা পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদ চলে। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ধৃতের বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় একাধিক নাশকতামূলক কাণ্ডের সঙ্গে নাম জড়িয়ে রয়েছে। বহুদিন ধরেই তাঁর খোঁজ চালাচ্ছিল বাংলাদেশ পুলিশ। কিন্তু সেখান থেকে বাঁচতে সে পালিয়ে যায় ওমানে।

সেখানে গিয়ে রংমিস্ত্রি হিসেবে কাজ শুরু করেন। বেশ কিছুদিন পর তাঁর এক সঙ্গে পুলিশের হাতে ধরা পড়লে ওমান থেকে পালিয়ে সোজা চলে আসে কলকাতায়। তারপর নিউমার্কেটে মাছের ব্যবসা শুরু করে সে। অবশেষে মধ্যমগ্রামের এক তরুণের সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি হওয়ায় ডানলপ এসে একটি আবাসনের ঘর ভাড়া নেয়। পুলিশ সূত্রে খবর, ধৃত জঙ্গিকে দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে গোয়েন্দা অফিসারদের তরফ থেকে। তাঁর সাথে এখনও পর্যন্ত কোনো জঙ্গি সংগঠনের যোগসূত্র রয়েছে কিনা বা কীভাবে সে নথিপত্র জাল করে এতদিন পর্যন্ত শহরতলীর একটি আবাসনে বসবাস করল সেই নিয়েও তদন্ত চালাচ্ছে পুলিশ।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়া

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories