Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

‘আমরা ক্রীতদাস নই,বিক্রি হয়ে যাই নি,পার্থ ডলার দিয়ে কিনে নেননি’-বোমা ফাটালেন মদন

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

সম্প্রতি তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করেছিলেন কামারহাটির তৃণমূল বিধায়ক মদন মিত্র। তাঁর অভিযোগ, পার্থ চট্টোপাধ্যায় দলের লোকদের চেনেন বলে, তিনি মনে করছেন না। তৃণমূল কংগ্রেসে বিজেপি আর কংগ্রেসের কালচার ঢুকে পড়েছে। সুযোগ সন্ধানী মানুষ দল ভাঙার প্রচুর চেষ্টা করছেন। এরপর পার্থ চট্টোপাধ্যায় স্পষ্ট জানিয়ে দেন যে, মদন মিত্রকে নিয়ে তিনি কিছু বলতে চান না। এরপর ফেসবুক লাইভে এলেন মদন মিত্র। ফেসবুক লাইভ থেকে বিভিন্ন বিষয়ে আলোকপাত করলেন তিনি। সেই সঙ্গে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে উগরে দিলেন ক্ষোভ।

মদন মিত্র জানালেন, ৩০ সে জুন পর্যন্ত ফেসবুক লাইভ না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তিনি, কিন্তু তারপরও তাঁকে তা রোজ করতে হচ্ছে, কোন- কোন দিন একাধিকবার। কারণ, সকলেই পরিস্থিতির কাছে দাস। এই মুহূর্তে একটা একটা নির্দেশ দিয়েছে দল। যা হলো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি ছাড়া পোস্টারে আর কারও ছবি রাখা যাবে না। কিন্তু তাঁর বুক চিরে দিলে মমতা, অভিষেক দু’জনকেই দেখা যাবে। কিছু লোক যারা বিজেপি ও কংগ্রেস তাঁরা ঝগড়ার দেখানোর জন্য কর্মীদের মধ্যে বিভ্রান্তি তৈরির চেষ্টা করছেন।

মদন মিত্র জানালেন, তিনি পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে নন, তিনিই তাঁকে দলে এনেছেন। তবে, এটাও তো ঠিক যে,একদিন যদি কেউ মিষ্টি পান খাওয়ান, পরবর্তীতে তাঁর পানে মুখ পুড়ে গেলেও, তাঁকে বলা যাবে না, তা নয়। তিনি কারও ক্রীতদাস নন, কেউই বিক্রি হয়ে যাননি। পার্থ চট্টোপাধ্যায় ডলার দিয়ে তাঁকে কিনে নেন নি, ইচ্ছামত, ভালোবাসতেন বলে দল করছেন। তিনি কথা দিলেন, পুরভোটে কামারহাটির ৩১ টি ওয়ার্ডের জন্য দলকে অর্থ খরচ করতে হবে না। সাংসদ সৌগত রায়কেও অর্থ খরচ করতে হবে না। এই খরচ তিনি বহন করবেন।

মদন মিত্র জানালেন, ‘যে আমায় ছাড়ে ছাড়ুক, আমি তোমায় ছাড়ছি না মা’। পার্থ চট্টোপাধ্যায় যুব আন্দোলনে নেতৃত্ব দেন নি, তিনি ছাত্র পরিষদ করেছেন। যুব দলের সঙ্গে দীর্ঘদিন ছিলেন তিনি কংগ্রেস ও তৃণমূলে। তাই যুবদের উন্মাদনা থেকে বুঝতে পারেন। তবে, সুব্রত বক্সী, পার্থ চট্টোপাধ্যায় যথেষ্ট যোগ্য। কিছু সুযোগসন্ধানী নেতা মনে করছেন এই সুযোগে তাঁদেরকে কিছুটা ঘোল খাইয়ে, গোলমাল বাঁধাতে।

পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কাছে তিনি আবেদন করছেন, তাঁকে ভুল না বুঝতে। আমৃত্যু তিনি তৃণমূল করবেন। সুব্রত বক্সী, পার্থ চট্টোপাধ্যায় যা বলবেন, সেটাই মেনে নিতে বলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মদন মিত্র তা মেনে নিচ্ছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আগে এর আগেও অন্য দলের বহু মানুষকে নেতা, মন্ত্রী করেছেন। কিন্তু তাঁরা তা মেনে নিয়েছেন। এটাও মেনে নেবেন। এভাবেই ফেসবুক লাইভে অকপট কালারফুল মদন মিত্র। দলের প্রতি তাঁর মনোভাব ব্যক্ত করলেন তিনি সুস্পষ্টভাবে।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়া

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories