Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

‘আগামী একশো বছরেও ক্ষমতায় আসতে পারবে না কংগ্রেস’, সংসদে সাফ জানালেন মোদী

1 min read

।।প্রথম কলকাতা।।

রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের ভাষণের মধ্য দিয়ে ৩১ জানুয়ারি সংসদের বাজেট অধিবেশন শুরু হয়। এরপর বাজেট ২০২২ পেশ করেন কেন্দ্রের অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামণ। বাজেট পেশের পর সংসদের উভয় কক্ষে রাষ্ট্রপতির ভাষণ নিয়ে ধন্যবাদ প্রস্তাবের উপর বিতর্ক হয়। এই বিতর্ক চলে ১২ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে। আজ লোকসভায় ধন্যবাদ প্রস্তাবের বিতর্কের জবাব দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

ধন্যবাদ প্রস্তাবের বিতর্কের জবাব দিতে গিয়ে ফের আজ লোকসভায় কংগ্রেস-সহ বিরোধীদের তুলোধনা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি সরাসরি প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসকে আক্রমণ করে বলেন, ‘আগামী একশো বছরেও কংগ্রেস ক্ষমতায় আসতে পারবে না। এই দলটির শাসনকালে গরিব মানুষের কোনও উন্নতি হয়নি। কংগ্রেস আমলে গরিবরা যে দুর্দশার মধ্যে দিন কাটিয়েছেন, তা বলার নয়। গরিবী থেকে আজ মুক্ত দেশের আমজনতা। গোয়া-পশ্চিমবঙ্গ-ত্রিপুরার মতো রাজ্যগুলিতে মানুষ কংগ্রেসকে প্রত্যাখ্যান করেছে৷ আসলে কংগ্রেসকে মানুষ চিনে ফেলেছে।’

আজ সকালে লতা মঙ্গেশকরের প্রয়াণে শোক বার্তা পাঠের পর এক ঘণ্টার জন্য মুলতবি করা হয় রাজ্যসভা। লতা মঙ্গেশকর ১৯৯৯ থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত উচ্চকক্ষের নির্বাচিত সদস্য ছিলেন। সোমবার নরেন্দ্র মোদী বাজেটের জবাবি ভাষণে বলেন, ‘করোনা মহামারি পরবর্তী সময়ে দেশ এখন এগিয়ে চলেছে। ভারত আজ বিশ্বকে নেতৃত্ব দেওয়ার ক্ষমতা অর্জন করেছে৷’ পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রীর দাবি, করোনার সময় কংগ্রেস ঘৃণ্য রাজনীতি করেছে। তিনি বলেন, ‘কংগ্রেস বারবার মহাত্মা গান্ধীর কথা বলে। তাহলে কেন করোনার সময় কংগ্রেস মানুষের পাশে দাঁড়াল না? আজ কংগ্রেসের এই অবস্থার কারণ হল তাদের অহঙ্কার। তাদের আচরণ খুবই লজ্জাজনক। করোনাকালে কংগ্রেস বলেছিল, আমার ভাবমূর্তি কলঙ্কিত করবে। কিন্তু আজ তারাই মানুষের পাশে না থেকে কলঙ্কিত অধ্যায় রচনা করেছে।’’

এখানেই না থেমে নরেন্দ্র মোদী বলেন, ‘আগামী একশো বছরেও দেশে কংগ্রেস ক্ষমতায় আসতে পারবে না। ক্রমাগত হেরেও তাদের অহঙ্কার কমছে না। কোভিড-১৯ ভাইরাসের কারণে মানবজাতি সংকটের সামনে দাঁড়িয়েছে। এই সময়েও ঘৃণ্য রাজনীতি করেছে কংগ্রেস।’প্রধানমন্ত্রীর বলেন, ‘আজ করোনা সংকট থেকে দেশ বেরিয়ে এসেছে। নতুন ছন্দে এগোচ্ছে ভারত। গরিবরা এই সময় প্রচুর লড়াই করে দেশের আত্মবিশ্বাস বাড়িয়েছে, মানুষকে আনন্দ দিয়েছে। গরিব মানুষ আজ দেশকে শক্তি যোগাচ্ছে। স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় দেশ আত্মনির্ভর হয়েছে। আত্মনির্ভর ভারত ক্রমেই বিশ্বের অন্যতম শক্তি হয়ে উঠছে। এই ধারা বজায় রেখে স্বাধীনতার শতবর্ষ পালনের সময় ভারত বিশ্বের শীর্ষ পৌঁছবে।’

প্রধানমন্ত্রী আজ নিজের ভাষণে বলেছেন, ‘করোনাকালে বিশ্বের বহু দেশে বহু মানুষ অন্ন সংকটে প্রাণ হারিয়েছেন। কিন্ত ভারতের একটি মানুষও অনাহারে মারা যাননি। আমাদের সরকার কৃষকবান্ধব। কৃষকদের হাত মজবুত না হলে দেশের ভীত মজবুত হবে না। ক্ষুদ্র-প্রান্তিক থেকে শুরু করে সবাইকে আত্মনির্ভর করে বিশ্বের আর্থিক মানচিত্রে আজ ভারত বিশেষ জায়গা করে নিয়েছে।’

কংগ্রেসের প্রতি আক্রমণ না থামিয়ে মোদী আজ বলেন, ‘কংগ্রেসের নীতি হল ‘ভাগ করুন এবং শাসন করুন। এই দলে অনেক টুকরো টুকরো গ্যাং রয়েছে। সেই সঙ্গে এই গ্যাংগুলিতে রয়েছেন অনেক নেতাও।’ তিনি বলেন, ‘কংগ্রেস তামিল অনুভূতিতে আঘাত করার চেষ্টা করেছে। তারা দেশকে বিভক্ত করতে এবং শাসন করতে চায়। আমি তামিলনাড়ুর সেই সব নাগরিকদের স্যালুট জানাতে চাই, যাঁরা সিডিএস জেনারেল বিপিন রাওয়াতকে শ্রদ্ধা জানাতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা রাস্তায় লাইন দিয়ে দাঁড়িয়েছিলেন। কংগ্রেসের ডিএনএ-তে রয়েছে বিভক্ত করুন এবং শাসন করুন।’

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়া

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories