Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

হিজাব নিয়ে নতুন সিদ্ধান্ত কলেজ কর্তৃপক্ষের, আদৌ কি সমাধান হল?

1 min read

।।প্রথম কলকাতা।।

হিজাব বিতর্ক যেন থামছেই না কর্ণাটকে। আজ কর্ণাটকের উদুপি জেলার কুন্দাপুরা এলাকার পিইউ গভর্নমেন্ট কলেজে হিজাব পরে আসার অনুমতি দেওয়া হলেও জানানো হয়েছে, তাঁদের আলাদা শ্রেণিকক্ষে বসতে হবে। সংবাদ সংস্থা এএনআই-এর রিপোর্ট অনুযায়ী, “কুন্দাপুরায় পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে রয়েছে, এবং ছাত্রীদের হিজাব পরে কলেজ ক্যাম্পাসে আসার অনুমতি দেওয়া হচ্ছে।” এদিকে, উডুপির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এসটি সিদ্দালিঙ্গপ্পাও বলেছেন, নিয়ন্ত্রণেই রয়েছে এলাকার আইনশৃঙ্খলা।

গত শুক্রবার পিইউ গভর্নমেন্ট কলেজের অধ্যক্ষ জানান, হিজাব পরে শিক্ষা প্রাঙ্গনে আসা যাবে না। আর এর পরই মুসলিম শিক্ষার্থীরা কলেজ ক্যাম্পাসের বাইরে অবস্থান বিক্ষোভ চালিয়ে যাচ্ছেন। এই ঘটনার পর, গেরুয়া শাল পরে কলেজে উপস্থিত হন একদল ছাত্র। হিজাবের বিরুদ্ধে পাল্টা প্রতিবাদও করেন তাঁরা। এই শিক্ষার্থীরা জোর দিয়েছিলেন যে, মুসলিম মেয়েদের হিজাব পরে ক্লাসে উপস্থিত হওয়ার অনুমতি দেওয়া হলে, তাঁরাও গেরুয়া শাল পরবেন।

এদিকে, সোমবারের সিদ্ধান্তের পর, সিনিয়র কংগ্রেস নেতা শশী থারুর ট্যুইটারে কলেজ প্রশাসনের সমালোচনা করেছেন। তিনি ট্যুইট করেন, “কর্নাটক থেকে ব্রেকিং নিউজ? নাকি হৃদয় বিদারক খবর? কবে থেকে আমাদের দেশে সাধারণ শিক্ষার মতো ধর্মনিরপেক্ষ কার্যকলাপের ক্ষেত্রে ধর্মীয় বিচ্ছিন্নতার অনুমতি দেওয়া হয়েছে? এই কলেজে কি সংবিধানের কোনও অনুলিপি নেই?”

গত শনিবার, কর্ণাটকের প্রাক-বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষা বোর্ড একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে জানিয়েছে যে, শিক্ষার্থীরা শুধুমাত্র স্কুল প্রশাসন দ্বারা অনুমোদিত ইউনিফর্ম পরতে পারবেন এবং কলেজগুলিতে অন্য কোনও ধর্মীয় অনুশীলনের অনুমতি দেওয়া হবে না। এদিকে, আন্দোলন চালানোর সময় ছুরি বহনের অভিযোগে দুইজনকে আটক করা হয়েছে। উডুপির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এসটি সিদ্দালিঙ্গপ্পা বলেছেন, “দুই জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে, এবং অন্য তিনজন পলাতক। আমরা তাদের খুঁজে বের করার চেষ্টা করছি। তাদের একজনের কাছে একটি ছুরি ছিল। যদিও তারা স্থানীয় নয়। অভিযুক্তরা গাঙ্গোলির বাসিন্দা। ধৃত দু’জনকে বিচার বিভাগীয় হেফাজতে পাঠানো হয়েছে। মামলা তদন্তাধীন রয়েছে।”

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়া

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories