Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

মর্মান্তিক ! মালদায় গাড়ি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ঢুকল রাস্তার পাশের বাড়িতে, মৃত ৪

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

ফের কুয়াশার ফলে দৃশ্যমানতা কম থাকায় দুর্ঘটনার কবলে পড়ল একটি চারচাকা গাড়ি। রাস্তা ছেড়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সোজা ঢুকে গেল পাশে থাকা বাড়িতে। তাতেই দুমড়ে-মুচড়ে একাকার অবস্থা গাড়িটির। গাড়ির মধ্যে থাকা যাত্রীদের চারজনেরই মৃত্যু হয় ওই দুর্ঘটনার জেরে। ঘটনাটি ঘটে মালদা-নালাগোলা রাজ্য সড়কের মুচিয়া পঞ্চায়েতের মহামায়া মন্দির সংলগ্ন এলাকায়।

গতকাল অর্থাৎ রবিবার রাতে মুচিয়া পঞ্চায়েতের অন্তর্গত মহামায়া মন্দির সংলগ্ন এলাকায় গাড়ি করে যাচ্ছিলেন ৪ যাত্রী। তাদের প্রত্যেকেই মালদহের হবিবপুর ব্লকের পঞ্চায়েত এলাকার বাসিন্দা বলে জানা যায়। সেই সময়ই গাড়িটি হঠাৎ করে তাঁর নিয়ন্ত্রণ হারায় এবং ঢুকে যায় রাস্তার পাশে থাকায় একটি বাড়িতে। বাড়ির দেওয়ালে ধাক্কা লাগায় গাড়িটি দুমড়ে-মুচড়ে উল্টে যায়। তারপর স্থানীয়দের তৎপরতায় উদ্ধার করা হয় গাড়ির মধ্যে থাকা যাত্রীদের।

ঐদিন গাড়িতে ছিলেন দেবাশিস মন্ডল ,সুব্রত সেঠ অনিক দাস এবং তাঁর স্ত্রী নেহা দাস। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তিন জনের। একজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় নিয়ে যাওয়া হয় মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। তবে তাঁরও শেষরক্ষা সম্ভব হয়নি। প্রাথমিক চিকিৎসার পর এই মৃত্যু হয় ওই যাত্রীর। এই দুর্ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়। মৃতদেহগুলিকে ময়না তদন্তে পাঠায় পুলিশ। বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে দুর্ঘটনাগ্রস্ত গাড়িটিকে। ঐ গাড়িচালক মদ্যপ অবস্থায় ছিল কিনা তাও এখনো পর্যন্ত জানা যায় নি। তবে পুলিশের প্রাথমিক অনুমান কুয়াশার জেরে স্পষ্ট কিছু দেখতে না পাওয়াতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুর্ঘটনাটি ঘটে।

প্রসঙ্গত, সোমবার ভোর বেলায় আরও এক পথ দুর্ঘটনার শিকার হল একটি দুধ বোঝাই গাড়ি। নিউ টাউন বিশ্ব বাংলা গেট এর কাছে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায় গাড়িটি। জানা যায়, ওই গাড়িটি নিউটাউন বাস স্ট্যান্ডের দিক থেকে এয়ারপোর্টের দিকে যাচ্ছিল।সেই সময়ই নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ঘটে এই দুর্ঘটনা। আহত হয় ওই গাড়ি চালক। ঘটনাস্থলে এসে উপস্থিত হয় নিউটাউন থানার পুলিশ। চালককে উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয় হাসপাতালে। পুলিশের অনুমান,গতি অত্যন্ত বেশি থাকায় টার্ন নেওয়ার ফলে নিয়ন্ত্রণ রাখতে পারেনি চালক।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়া

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories