Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

রেলের পরীক্ষা নিয়ে চাকরি প্রার্থীদের বিক্ষোভ, স্টেশন ভাঙচুর করে জ্বালানো হল ট্রেন

1 min read

।।প্রথম কলকাতা।।

রেলওয়ে রিক্রুটমেন্ট বোর্ডের পরীক্ষা মনেই যেন বিক্ষোভ অবধারিত। গতকালের পর আজও সেই সেই পরীক্ষা নিয়ে ধুন্ধুমার কাণ্ড। বুধবার গয়াতে উত্তেজিত পরীক্ষার্থীরা আগুন লাগিয়ে দিল একটি ট্রেনে। এখানেই শেষ নয়, উত্তেজিত হয়ে তাঁরা ভাঙচুর করে ট্রেন ও স্টেশনে। বেশ কয়েকটি এলাকায় বিক্ষোভকারীরা ট্রেন লাইন অবরোধ করে অবস্থানে বসে যায়। ফলে ব্যহত হয় ট্রেন পরিষেবা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ডাকতে হয় দমকলবাহিনীকে। বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে স্টেশনে মোতায়েন করা হয়েছে প্রচুর সংখ্যক পুলিশ।

গয়ার পুলিশ জানিয়েছে, দীর্ঘ প্রচেষ্টার পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা গিয়েছে। যাঁরা ট্রেনে আগুন লাগিয়েছেন তাঁদের কয়েকজনকে চিহ্নিত করা হয়েছে। পুলিশের পক্ষ থেকে গয়ার স্পেশাল পুলিশ সুপার (এসএসপি) আদিত্য কুমার বলেন, ‘’উত্তেজিত বিক্ষোভকারীদের বারবার বলা হয়েছিল, তাঁরা যেন অন্য কারও দ্বারা প্রভাবিত না হয়ে সরকারি সম্পত্তির ক্ষতি না করেন। কিন্তু তাতে কোনও কর্ণপাত করেনি পরীক্ষার্থীরা।’ বিক্ষোভের কারণ সম্পর্কে বলতে গিয়ে যদিও উত্তেজিত পরীক্ষার্থীরা জানিয়েছেন, কম্পিউটার মাধ্যমে দ্বিতীয় পরীক্ষা হবে এমন কোনও নোটিশ আগে দেওয়া হয়নি। এদিকে, এখনও পর্যন্ত প্রথম পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণা হয়নি। জানা গিয়েছে, কম্পিউটার মাধ্যমে দ্বিতীয় পরীক্ষা বাতিল করার পাশাপাশি প্রথম পরীক্ষার ফল প্রকাশেরও দাবি জানিয়ে বিক্ষোভে নেমেছেন তাঁরা।

আজ বিহারের গয়ায় একটি ট্রেনের কামরা জ্বালিয়ে দেওয়ার পাশাপশি পরীক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে যে তাঁরা জেহানাবাদ স্টেশনেও পুলিশকে লক্ষ্য করে পাথর ছুঁড়েছেন। এমনকি ভাগলপুরেও ট্রেন আটকানোরও চেষ্টা করেছেন বিক্ষোভকারীরা। বিহারে রেলওয়ে রিক্রুটমেন্ট বোর্ডের নন টেকনিক্যাল পপুলার ক্যাটাগরি (আরআরবি-এনটিপিসি) পরীক্ষা ২০২১-এর অনিয়ম নিয়ে আজ পরীক্ষার্থীরা বিক্ষোভ দেখিয়েছেন। গতকালও একই ইস্যুতে গোটা বিহার জুইে বিক্ষোভ দেখিয়েছিলেন পরীক্ষার্থীরা। আজ সেই বিক্ষোভ অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে।এদিকে, গয়াতে একটি দুরপাল্লার চলন্ত ট্রেনে বিক্ষোভকারীরা পাথর ছুঁড়ে মারে বলেও অভিযোগ উঠেছে।

সীতামারহিতে পুলিশ রেল স্টেশনে বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে শূন্যে গুলি চালিয়েছে। পাটনা, নওয়াদা, মুজাফফরপুর, সীতামারহি, বক্সার, ভোজপুরসহ একাধিক জায়গায় পরীক্ষার্থীদের বিক্ষোভ আজ ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। বিক্ষোভের মুখে নন-টেকনিকাল পপুলার ক্যাটেগরি (এনটিপিসি) এবং লেভেল ওয়ান পরীক্ষা স্থগিত করে দিয়েছে রেল। বুধবার রেলের তরফে জানানো হয়েছে, যে প্রার্থীরা পাশ করেছেন বা ফেল করেছেন, তাঁদের অভাব-অভিযোগ শোনার জন্য একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই কমিটি রেল মন্ত্রকের কাছে রিপোর্ট জমা দেবে। এদিকে, রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব বলেছেন, ‘প্রার্থীদের আর্জি জানাচ্ছি, তাঁরা যেন নিজেদের হাতে আইন তুলে না নেন। তাঁদের অভাব-অভিযোগ শোনা হবে এবং সেগুলির সমাধান করা হবে।’ মঙ্গলবারই ভারতীয় রেলওয়ে একটি সাধারণ বিজ্ঞপ্তি জারি করেছিল। সেখানে সতর্কবার্তা জারি করে বলা হয়েছিল, ‘যাঁরা প্রতিবাদ করার সময় ভাঙচুর ও বেআইনি কার্যকলাপে যুক্ত হবেন, তাঁদের রেলের নিয়োগপত্র দেওয়া হবে না।’

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories