Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

এই একাদশী পালনেই সংসারে থাকবে বিষ্ণুর আশীর্বাদ ! কবে পড়ছে শুভ মুহূর্ত ?

।। প্রথম কলকাতা ।।

প্রচলিত ধারণা অনুযায়ী, হিন্দু ধর্মের যত ব্রত কথা রয়েছে তার মধ্যে সবথেকে কঠিন এবং ফলদায়ক হল একাদশী। প্রতিমাসেই কোন না কোন একাদশী রয়েছে এবং প্রত্যেক একাদশী ব্রতের সাথে রয়েছে কিছু মাহাত্ম্যপূর্ণ কথা। বহু মানুষ নিয়ম করে এই একাদশী ব্রত পালন করেন আবার কিছু মানুষ কিছু কিছু বিশেষ ব্রতের জন্য সারা বছর অপেক্ষা করেন। তবে ষটতিলা একাদশীর বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। মনে করা হয় , এই একাদশীতে উপবাস করে ভগবান বিষ্ণুর আরাধনা করলে সংসারে সর্বদা মা লক্ষ্মী এবং ভগবান বিষ্ণুর আশীর্বাদ বজায় থাকে। হিন্দু পঞ্জিকা অনুসারে এই সময়ে মাঘ মাসের কৃষ্ণপক্ষ চলছে। এই মাসের কৃষ্ণপক্ষের একাদশী ষটতিলা একাদশী নামে পরিচিত।

এবার ষটতিলা একাদশীর উপবাস থাকবে আগামী ২৮ জানুয়ারি, শুক্রবার। প্রতি একাদশীর মত, এই একাদশীতে ভগবান বিষ্ণুর পুজো করা হয় এবং তাঁকে তিল নিবেদন করা হয়। এই দিনে জলে তিল রেখে স্নান করা এবং তিল দান করারও বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। এখানে জেনে নিন ষটতিলা উপবাসের শুভ সময়, গুরুত্ব ও উপবাস পদ্ধতি সম্পর্কে তথ্য।

ষটতিলা একাদশীর শুভ সময়

২৮ শে জানুয়ারী , শুক্রবার ২ টো ১৬ মিনিটে শুরু হবে ষটতিলা একাদশী। এই একাদশী শেষ হবে ২৮শে জানুয়ারি রাতে ১১ টা ৩৫ মিনিটে। আগামী ২৮শে জানুয়ারি ষটতিলা একাদশীর উপবাস রাখতে পারবেন। এই দিন উপবাস রেখে ২৯ শে জানুয়ারি তা ভাঙবেন। পারণের শুভ সময় হবে শনিবার সকাল ০৭.১১ থেকে সকাল ৯.২০ পর্যন্ত।

ষটতিলা একাদশীর উপবাস পদ্ধতি

•একাদশীর একদিন আগে, দশমীর সন্ধ্যায়, সূর্যাস্তের আগে সাধারণ খাবার খাবেন। এর পর কিছু খাবেন না।
• উপবাসের দিন সকালে ঘুম থেকে উঠে জলে তিল রেখে স্নান করবেন।
•স্নানের সময় মনে মনে শ্রী বিষ্ণুর নাম নিন।
•এর পর, পুজোর স্থান পরিষ্কার করুন এবং একটি প্রদীপ জ্বালান।
• ভগবানের সামনে একাদশী উপবাসের ব্রত নিন। এরপর চন্দন, ফুল, ধূপ, নৈবেদ্য, তুলসী, পঞ্চামৃত ইত্যাদি অর্পণ করুন। পাশাপাশি পড়ুন ষটতিলা একাদশীর উপবাসের গল্প। তার পর করুন আরতি ।
• ভগবানকে তিলের তৈরি জিনিস নিবেদন করুন।
• সম্ভব হলে সারাদিন উপবাস রাখুন, থাকতে না পারলে একবেলা ফল খেতে পারেন।
• ভগবানের সামনে তিল দানের পাশাপাশি কোন অসহায় ব্যক্তিকে তিল দান করুন।
• এই দিন তিল মিশ্রিত জল পান করতে পারেন।
• একাদশীর রাতে ভগবানের স্তোত্র এবং মন্ত্র উচ্চারণ করুন।
• পরের দিন সকালে স্নান করার পর সামর্থ্য অনুযায়ী কোন ব্রাহ্মণকে অন্ন দান করুন। এর পর উপবাস ভাঙবেন।

কেন পালন করবেন ষটতিলা একাদশী ?

যদিও সব একাদশীর উপবাসকেই শ্রেষ্ঠ উপবাস রূপে বিবেচনা করা হয়। তবে প্রতিটি একাদশীর আলাদা আলাদা গুরুত্ব শাস্ত্রে বলা হয়েছে। ষটতিলা একাদশীর উপবাসে ঘরে সুখ শান্তি আসে। যিনি এই একাদশী উপলক্ষে উপবাস রাখেন, তিনি জীবনের সমস্ত আনন্দ পান। কথিত আছে যে মানুষ কন্যা দান এবং হাজার বছরের তপস্যা ও স্বর্ণ দান করে যতটা পুণ্য লাভ করেন, এই একাদশীর উপবাস করলেও সেই পুণ্য পাওয়া যায়। এছাড়াও সেই ব্যক্তি জীবনের পরম প্রাপ্তি লাভ করেন।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories