Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

এপ্রিলে টানা ১৫ দিন বন্ধ বাগডোগরা এয়ারপোর্ট, অর্থনৈতিক বিপর্যয়ের আশঙ্কা

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

এপ্রিল মাস অর্থাৎ পর্যটনের ভরা মৌসুম। এমন সময়ে যদি টানা ১৫ দিনের জন্য বাগডোগরা বিমানবন্দরকে বন্ধ রাখা হয় তাহলে যথেষ্ট সমস্যার সম্মুখীন হবেন পর্যটন সংস্থার ব্যবসায়ীরা। যা নিয়ে যথেষ্ট চিন্তিত তাঁরা। তাই এর বিকল্প কোনো পথ ভাবার জন্য আর্জি জানিয়েছেন তাঁরা। ঘটনাটি হল, গত ১২ জানুয়ারি বায়ুসেনা দিল্লির সদর দপ্তর থেকে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানানো হয় যে আগামী এপ্রিল মাসের ১১ তারিখ থেকে ২৫ তারিখ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে বাগডোগরা বিমানবন্দর। সেখানে রানওয়ের কাজ করানোর জন্যই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। কিন্তু এই ঘোষণা হতেই ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে পর্যটনের সাথে যুক্ত ব্যবসায়ীদের।

শিলিগুড়ির বাগডোগরা বিমানবন্দরের ওপর শুধুমাত্র উত্তরবঙ্গ নয় এর পাশাপাশি নেপাল-ভুটান, বাংলাদেশের মতো আন্তর্জাতিক বিমান যাত্রীরাও নির্ভরশীল। এছাড়াও যদি বিমানবন্দর টানা বন্ধ রাখা হয় তাহলে বিমান বন্দরে আসা যাত্রী এবং সেখানকার পর্যটনের সাথে যুক্ত মানুষ উভয় এই বড়সড় ধাক্কা খাবে বলে আশঙ্কা করছেন তাঁরা। বিগত দুবছর করোনা পরিস্থিতিতে লকডাউন এর জেরে এমনিতেই পর্যটনকেন্দ্রগুলোতে যুক্ত মানুষের আর্থিক অবস্থা দুর্বল হয়ে গিয়েছে। তাঁর ওপর রানওয়ে মেরামতির কাজ লকডাউন পরিস্থিতিতে না করে পর্যটনের ভরা মৌসুমে করার সিদ্ধান্তে যথেষ্ট অখুশি হয়েছেন ব্যবসায়ীরা। তাই পুরোপুরি বিমান চলাচল বন্ধ না করে আংশিকভাবে খোলা রাখার আবেদন নিয়ে তাঁরা দ্বারস্থ হয়েছেন এয়ারপোর্ট অথরিটির কাছে।

এই প্রসঙ্গে হিমালয়ান হসপিটালিটি ট্রাভেল ডেভেলপমেন্ট নেটওয়ার্কের সম্পাদক সম্রাট সান্যাল জানান, “শুধুমাত্র পর্যটন কেন্দ্র করেই নয় ওই বাগডোগরা বিমানবন্দর থেকে বহু মানুষ তাদের চিকিৎসার জন্য যাতায়াত করে থাকেন। করোনা পরিস্থিতির জন্য যদিও বাগডোগরা বিমানবন্দরে পরিষেবা কম রয়েছে। তাই এখন রানওয়ে মেরামতির কাজ সঠিকভাবে করা যেত বলে মনে হয়। কিন্তু এই সময়টিকে বেছে না নিয়ে এপ্রিলে মেরামতের কাজ শুরু করাযর সিদ্ধান্তে যথেষ্ট ক্ষুব্ধ হয়েছেন ব্যবসায়ীরা। তাই আমাদের তরফ থেকে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষকে চিঠি দেওয়া হয়েছে যে কোনো বিকল্প পথ বাছাই করার জন্য”।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories