Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

বড় খবর : ভারতীয় দলের টেস্ট অধিনায়ক পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন বিরাট কোহলি

1 min read

।।প্রথম কলকাতা।।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজ হারের পরই ভারতীয় দলের টেস্ট অধিনায়ক পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন বিরাট কোহলি। প্রোটীয় সফরে যাওয়ার আগেই ওয়ানডে অধিনায়ক পদ থেকে বিরাটকে সরিয়ে দেয় বিসিসিআই। প্রসঙ্গত ২০২১ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ সূচনার আগেই কুড়ি ওভার ক্রিকেটে ভারতীয় দলের অধিনায়ক পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত জানিয়েছিলেন বিরাট। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্ব থেকে ছিটকে যাওয়ার পর সীমিত ওভার ক্রিকেটে বিরাট কোহলির নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। সেই জল্পনাতেই স্বীকৃতি দিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের টেস্ট দল ঘোষণার সঙ্গেই নতুন ওডিআই অধিনায়ক হিসাবে রোহিত শর্মাকে নিয়োগের কথা জানায় বিসিসিআই।

টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর সময় অন্য দুটো ফরম্যাটে নেতৃত্ব দেওয়ার ইচ্ছাপ্রকাশ করেছিলেন বিরাট। সেই ইচ্ছাকে মান্যতা দেওয়া হয়নি। চেতন শর্মার নেতৃত্বাধীন জাতীয় নির্বাচকরা চেয়েছিলেন সীমিত ওভার ফরম্যাটে একই অধিনায়ক থাকুক। ওডিআই অধিনায়ক পদ থেকে অপসারিত হওয়ার পর সাংবাদিক সম্মেলনে বোমা ফাটান বিরাট। দক্ষিণ আফ্রিকা রওনা দেওয়ার আগে বিরাট জানিয়েছিলেন টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্তকে বিসিসিআইয়ের তরফে স্বাগত জানানো হয়েছিল। এমনকি ওডিআই অধিনায়ক পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত তাকে দল ঘোষণার মাত্র দেড় ঘন্টা আগে জানানো হয়েছিল। সাংবাদিক সম্মেলনে ‘বিরাট’ বিস্ফোরণ ঘিরে ভারতীয় ক্রিকেট টালমাটাল হয়ে ওঠে। প্রকাশ্যেই বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলির বক্তব্য খন্ডন করেছিলেন বিরাট।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজে নেতৃত্ব দিলেও পিঠের চোটের কারণে জো’বার্গ টেস্ট থেকে ছিটকে যান বিরাট। প্রত্যাবর্তন ঘটিয়েছিলেন কেপটাউন টেস্ট। শেষ দুটি টেস্ট হারায় ভারতীয় দলের ফাইনাল ফ্রন্টিয়ার জয় অধরাই থেকে গিয়েছে। আজ, ট্যুইটারে প্রকাশিত বিবৃতিতে ভারতীয় টেস্ট দলের অধিনায়ক পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন বিরাট। তিনি লেখেন – ” দীর্ঘ সাতবছর ধরে নিরন্তর পরিশ্রমের মাধ্যমে দলকে সঠিক দিশায় এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছি। কোনও কিছুই বাদ রাখিনি। অত্যন্ত সততার সঙ্গে নিজের কাজ করেছি। একটা সময়ের পর থামতেই হয়। আজ আমি ভারতীয় টেস্ট অধিনায়কের পদ ছাড়ছি। এই যাত্রাপথে বহু উত্থান পতন ছিল, তবে কোথাও প্রচেষ্টা বা বিশ্বাসের খামতি হয়নি। “

বিরাট নিজের বিবৃতিতে আরও যোগ করেন – ” আমি যাই করি তাতে নিজের ১২০ শতাংশ দিয়ে এসেছি। আমি যদি তা না পারি তাহলে আমার মনে হয়না সেটা করা উচিৎ। আমার হৃদয়ে স্পষ্টতা রয়েছে। আমার দলের প্রতি অসৎ হতে পারব না। ” ” দীর্ঘদিন ধরে দেশকে নেতৃত্ব দেওয়ার সুযোগ করে দেওয়ার জন্যে বিসিসিআইকে ধন্যবাদ। বিশেষ করে আমার সতীর্থদের ধন্যবাদ, যারা প্রথম দিন থেকে আমার দর্শনকে সাকার করবার জন্যে নিজেদের উজাড় করে দিয়েছে। কোনও পরিস্থিতিতেই ওরা হাল ছাড়েনি। তোমরা এই যাত্রাপথটাকে সুন্দর স্মৃতি দিয়ে সাজিয়েছ। প্রতিনিয়ত সামনের দিকে এগিয়ে চলা দলটার চালিকা শক্তি হিসাবে রবি ভাই ও তার সাপোর্ট স্টাফরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন। অধিনায়ক হিসাবে আস্থা রাখবার জন্যে, নেতৃত্বের জন্যে আমাকে উপযুক্ত ব্যক্তি হিসাবে বেছে নেওয়ার জন্যে মহেন্দ্র সিং ধোনিকেও বিশেষ ধন্যবাদ। “

Categories