Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

‘কখনও মথুরা, কখনও অযোধ্যা আর এখন গোরখপুর’, যোগীকে টিপ্পুনি অখিলেশের

1 min read

।।প্রথম কলকাতা।।

করোনা আবহের মধ্যেই আজ ঘোষণা করা হয়েছে উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনের প্রথম দুই দফা ভোটের (১০ এবং ১৪ ফেব্রুয়ারি) প্রার্থী তালিকা। সেই সঙ্গে ঘোষণা করা হয়েছে পরবর্তী দফাগুলির জন্যও বেশ কিছু নাম। প্রথম তালিকাতেই রয়েছে মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ ও উপ-মুখ্যমন্ত্রী কেশব প্রসাদ মৌর্যর নাম। তালিকা অনুযায়ী যোগী আদিত্যনাথ দাঁড়াচ্ছেন গোরখপুর বিধানসভা কেন্দ্র থেকে। তালিকায় গুরুত্ব পেয়েছে পিছিয়ে পড়া বর্গের বিজেপি নেতারাও। আর এই তালিকা প্রকাশের পরই বিরোধীদের টিপ্পুনি খেতে হচ্ছে আদিত্যনাথকে। এর পিছনে সঙ্গত কারণ তো রয়েছেই।

সপার (সমাজবাদী পার্টি) অখিলেশ যাদব যেমন যোগী আদিত্যনাথের নাম না করে ফেসবুকে একটি পোস্ট দিয়েছেন। পোস্টটি উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীকে উল্লেখ করেই তা সহজে বোঝা যায়। সপা সুপ্রিমো লিখেছেন, ‘কখনও বলেছেন মথুরা… কখনও বলেছেন অযোধ্যা… আর এখন বলছেন… গোরখপুর… জনতার আগেই তাদের দলকে বাড়ি ফেরত পাঠিয়েছে… আসলে তারা টিকিট পায়নি, তাদের ফেরার টিকিট কাটা হয়ে গিয়েছে। আজ ইউপি বলছে, বিজেপি চাই না।’

লোকসভার ময়দানে অভিজ্ঞতা থাকলেও আসলে এবারই প্রথম বিধানসভা ভোটে লড়াই করতে নেমেছেন যোগী আদিত্যনাথ। সবাই ভেবেছিলেন গেরুয়াধারী আদিত্যনাথ সম্ভবত মন্দির শহর অযোধ্যা বা মথুরা থেকে নির্বাচনে দাঁড়াবেন। বিজেপির একাংশ সেই ভাবে প্রচারও শুরু করে দিয়েছিল। পাশাপাশি সম্প্রতি কৃষ্ণের শহর মথুরা এবং রাম জন্মভূমি অযোধ্যায় বেশ কয়েকবার সফরের পাশাপাশি বেশ কিছু উন্নয়ন মূলক কাজও করেছেন তিনি। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ অযোধ্যা বা মথুরা থেকে নয়, প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন গোরখপুর সিটি বিধানসভা থেকেই। প্রথমবার বিধানসভা নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার জন্য নিজের পরিচিত গোরখপুরকেই বেছে নিয়েছেন তিনি। আর তাই অখিলেশ যাদব একটু মজার ছলেই ফেসবুকে পোস্ট করলেন, ‘কখনও বলেছেন মথুরা… কখনও বলেছেন অযোধ্যা… আর এখন বলছেন… গোরখপুর… ।’

এর আগে আদিত্যনাথ ১৯৯৮ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত টানা পাঁচবার গোরখপুর থেকে লোকসভার সাংসদ ছিলেন। ২০১৭ সালের মার্চ মাসে, উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনে অভূতপূর্ব ব্যবধানে বিজেপির জয়ের পর দেশের সবচেয়ে জনবহুল রাজ্যের জন্য বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে নির্বাচিত হন আদিত্যনাথ। সেই সঙ্গে ইস্তফা দেন সাংসদ পদ থেকে। তিনি বর্তমানে ইউপির আইন পরিষদের (এমএলসি) সদস্য। সেই অর্থে এটাই আদিত্যনাথের প্রথম বিধায়ক পদে লড়াই।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories