Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

রহস্যজনক ভাবে খুন সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা, কী অভিযোগ পরিবারের ?

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

এক অন্তঃসত্ত্বা মহিলার হঠাৎ খুনের ঘটনায় রহস্য দানা বেঁধেছে তাঁর পরিবার পরিজনের মধ্যে। আলিপুরদুয়ার জেলার হাসিমারা এলাকায় বাড়ি ফেরার পথে রহস্যজনক ভাবে খুন করা হয় এক অন্তঃসত্ত্বা মহিলাকে। জানা যায় মৃতা মাজেদা বিবি এবং তাঁর স্বামী এক্রামুল হক বিশেষ দরকার মিটিয়ে বাড়ির পথে ফিরছিলেন। কিন্তু বাড়ি ফেরার পথেই মাজেদা বিবিকে গলার নলি কেটে খুন করা হয় বলে জানা যায়। খুন করার চেষ্টা তাঁর স্বামীকেও করা হয় কিন্তু তিনি প্রাণ বাঁচিয়ে পালাতে সক্ষম হন। জখম হয়েছেন তিনিও। তবে এই নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে আত্মীয়-পরিজনদের মধ্যে। হঠাৎ করে একজন অন্তঃসত্ত্বা মহিলাকে গলার নলি কেটে খুন করতে যাবার কার কি স্বার্থ থাকতে পারে?

জানা যায়, ওই দম্পতি বৃহস্পতিবার একটি গাড়ি বিক্রি করার জন্য বীরপাড়া রাঙালিবাজনা এলাকায় গিয়েছিলেন। স্ত্রীকে নিয়ে যাওয়ার কারণ গাড়িটি এক্রামুলের স্ত্রী মাজেদা বিবির নামে ছিল। তাই স্ত্রীর সই অবশ্যই প্রয়োজন বলে সাথে করে তিনি স্ত্রীকেও নিয়ে গিয়েছিলেন। তবে কোভিড সংক্রমনের ফলের আলিপুরদুয়ার জেলা প্রশাসন প্রত্যেকটি থানা এলাকায় একদিন করে বাজার দোকান বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। তাই বৃহস্পতিবার বীরপাড়ার সব দোকান বাজার বন্ধ ছিল। তাঁরা যেখানে গিয়েছিলেন তাঁর কাছাকাছি এলাকাতেই মাজেদা বিবির বোনের শ্বশুরবাড়ি থাকায় এক্রামুল সেদিন স্ত্রীকে নিয়ে সেখানে চলে যান। দিদির বাড়ি থেকে বাড়ি ফেরার পথেই তাদের উপর এমন হামলা হয়। মর্মান্তিক ভাবে গলার নলি কেটে খুন করা হয় ৭ মাসের অন্তঃসত্ত্বা মাজেদা বিবিকে।

এক্রামুল হকের বাবা জানান, ছেলের সাথে বিকেলের দিকেও তাঁর কথা হয়েছিল। কিন্তু তারপর আর কোনো রকম কথা হয়নি। সন্ধ্যে সাতটা নাগাদ হঠাৎ তাঁরা জানতে পারেন যে তাদের বৌমাকে কেউ গলার নলি কেটে দিয়ে খুন করে গেছে। ছেলে অল্প জখম হয়েছেন। তাদের একটি সাত বছরের ছেলে আছে বলেও জানান মোকসেদ আলী। হাসিমারা এলাকায় এই ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ এসে উদ্ধার করে এক্রামুল ওকে। তাকে উদ্ধার করে আলিপুরদুয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয় কিন্তু শুক্রবার তাঁর পরিবারের লোক এসে তাকে ছাড়িয়ে নিয়ে যান। বিষয়টি বেশ রহস্যজনক বলে মনে হয়েছে মাজেদা বিবি আত্মীয়-পরিজনদের কাছে। তাঁর এক আত্মীয়া জানান হঠাৎ করে কি কারণে একজন অন্তঃসত্ত্বা মহিলাকে গলার নলি কেটে এইভাবে খুন করার প্রয়োজন পড়ল? যেখানে তাঁর স্বামী পালিয়ে বাঁচতে পেরেছিল তাহলে তাঁর স্ত্রীকে বাঁচানোর কোনো রকম চেষ্টা করল না কেন? এরকম বহু প্রশ্নের মুখোমুখি হয়েছেন মাজেদা বিবির পরিবার। তাঁরা এই মর্মান্তিক খুনের দোষীদের যথোপযুক্ত শাস্তির আবেদন জানান।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories