Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

রাহানে-পূজারা প্রসঙ্গে নির্বাচকদের কোর্টেই বল পাঠালেন কোহলি

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

বহু প্রত্যাশা জাগিয়ে প্রোটীয়ভূমে পা রাখলেও ‘ফাইনাল ফ্রন্টিয়ার’ জয়ের স্বপ্ন অধরাই থেকে গিয়েছে ভারতীয় দলের। গতকাল, কেপটাউন টেস্টের চতুর্থ দিনে মধ্যাহ্নভোজের বির‍তির পরই জয়ের জন্যে প্রয়োজনীয় রান সংগ্রহ করে ফেলে ডিন এলগারদের দক্ষিণ আফ্রিকা। সিরিজ জুড়ে রুদ্ধশ্বাস প্রতিদ্বন্দ্বিতার দেখা মিললেও আনকোরা দল নিয়ে অপূর্ব প্রত্যাবর্তনের রুপকথা লিখেছে স্বাগতিকরা। ১-০ এগিয়ে যাওয়ার পরও সিরিজ খোয়ানোর কারণ খুঁজতে গিয়ে ধারাবাহিক ব্যাটিং ব্যর্থতাকেই দায়ী করেছেন বিরাট কোহলি। তবে, ফর্ম হারানো রাহানে, পূজারার ভবিষ্যৎ নিয়ে সিদ্ধান্তগ্রহণের ভার নির্বাচকদের উপরই সঁপেছেন ভারত অধিনায়ক।

দীর্ঘদিন ধরে ফর্ম হারিয়েছেন ভারতীয় দলের সিনিয়র দুই ব্যাটার – অজিঙ্কে রাহানে ও চেতেশ্বর পূজারা। বড় রানের ইনিংস তো দূর, প্রতিকূল পরিবেশে লোয়ার অর্ডারকেও আড়াল করতে পারছেন না পূজারারা। সিরিজের ভাগ্য নির্নায়ক টেস্টের দুই ইনিংসে পূজারার ব্যাট থেকে এসেছে যথাক্রমে ৪৩ ও ৯। অফ ফর্মের কারণে সহ-অধিনায়কত্ব রাহানের অবস্থা আরওই করুণ। দুই ইনিংস মিলে তার অবদান ১০। দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে ইতিহাস সৃষ্টির সুযোগ খুইয়ে বেশ বিমর্ষ ভারতীয় টেস্ট দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলি।

কেপটাউন টেস্টে একাধিক বার বিবাদেও জড়িয়েছেন বিরাট। তবে সেই সব তিক্ত স্মৃতি মাঠেই ফেলে এসেছেন বলে জানান ভারতীয় অধিনায়ক। সিরিজ হারের পর সাংবাদিক সম্মেলন উপস্থিত বিরাটের উদ্দেশ্যে প্রত্যাশিত ভাবেই রাহানে-পূজারার ভবিষ্যৎ নিয়ে প্রশ্ন ধেয়ে আসে। সেই প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে দলগত ব্যাটিং ব্যর্থতার কথা বলেছেন কোহলি। সিরিজ হারের কারণ ব্যাখ্যা করে ভারতীয় টেস্ট অধিনায়ক বলেন – ‘ শেষ দুটি ম্যাচে ব্যাটিং-ই আমাদের কাল হয়েছে বলে মনে করি। এই সত্যটা এড়িয়ে যাওয়ার উপায় নেই। তবে হ্যাঁ, আমি এখানে বসে ভবিষ্যতে কি হবে তা বলে দিতে পারিনা। ‘

অফফর্মে থাকা রাহানে-পূজারা’র বিষয়ে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করে বিরাট জানান এই সিদ্ধান্ত নির্বাচকরা নেবেন, প্রশ্নটা তাদেরকে করলেই ভালো হয়। জো’বার্গ টেস্টে দুই সিনিয়র ব্যাটারের পারফর্মেন্সে মুগ্ধ অধিনায়ক। কোহলি বলেন – ‘আপনাদের উচিৎ এই বিষয়ে নির্বাচকদের প্রশ্ন করা। ওনারা কি ভাবছেন সেটা ওনারাই বলতে পারবেন, এটা আমার কাজ নয়। আগেও বলেছি, এখনও বলছি দল হিসাবে আমরা চেতেশ্বর, অজিঙ্কের পাশেই আছি। ওরা যে মানের ব্যাটার, অতীতে দলের জন্যে যে অবদান রেখেছে সবকিছু বিবেচনা করেই ওদেরকে সমর্থন জোগানো হচ্ছে। ওরা দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টেস্টেও গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলেছে। যে দুটি ইনিংসের দৌলতে আমরা লড়াইয়ের জায়গায় পৌঁছাই। এই ধরনের পারফর্মেন্সগুলিকে আমরা দল হিসাবে মর্যাদা দিয়ে থাকি। তবে নির্বাচকরা কি ভাবছেন বা তারা কি সিদ্ধান্ত নেবেন সেই বিষয়ে আমি এখানে বসে মন্তব্য করতে পারব না। ‘

Categories