Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

‘সব পরিষেবা চালু থাকলে জিম বন্ধ কেন?’ প্রশ্ন তুলে বিক্ষোভ দুর্গাপুরে

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

করোনার বাড়বাড়ন্তের ফলে রাজ্যের বেশকিছু পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। বেশকিছু পরিষেবায় ছাড় দেওয়া হয়েছিল। তারমধ্যে সেলুন, জিম, পার্লার এইসকল গুলিকে বন্ধ রাখা হয়েছিল। কিন্তু পরবর্তীকালে বারবার বিক্ষোভের ফলে সেলুন, পার্লার এইগুলিকে ৫০ শতাংশ গ্রাহক নিয়ে খোলার অনুমতি দেওয়া হলেও জিমকে এখনও পর্যন্ত পুরোপুরি খোলার অনুমতি দেওয়া হয়নি। তাই নিয়েই ফের একবার শুক্রবার সকালে দুর্গাপুর সিটি সেন্টার মহকুমাশাসক দপ্তরের সামনে প্ল্যাকার্ড হাতে বিক্ষোভ দেখালেন জিমের মালিকরা। তাদের দাবি, এইভাবে জিম পুরোপুরি বন্ধ থাকায় আর্থিক অনটনে পড়ছেন তাঁরা। সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে তাদের দৈনন্দিন জীবনে। তাই অবিলম্বে অন্যান্য পরিষেবাগুলির মতন জিমকেও খোলা হোক।

এর আগেও একবার প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছিলেন তাঁরা। কিন্তু কোনো সুরাহা হয়নি তার। জিম ট্রেনাররা এবার তাই বিক্ষোভের পথ বেছে নিয়েছেন বলে জানান। দুর্গাপুরের এক জিম ট্রেনার সীমা দত্ত চ্যাটার্জী বলেন,” ২৩ শে জানুয়ারির পর থেকে করোনার একটার পর একটা ঢেউয়ের অন্যান্য পরিষেবা পুরোপুরি বন্ধ না হলেও জিম পুরো বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। একটা জিমে মালিকপক্ষ, ট্রেনার এমনকি যারা জিমে গ্রাহক হিসেবে আসেন তাদেরও স্বার্থ জড়িয়ে রয়েছে। অনেক পেশেন্টই ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে আসেন। কিন্তু দিনের পর দিন জিম বন্ধ থাকায় আমাদের রুজি-রোজগারে এবার ভাটা পড়েছে। আগেও আমরা অনুরোধ করে লিখিত আকারে জানিয়েছিলাম জিম খোলার জন্য। কিন্তু তা খোলা হয়নি। আমরা এখনও প্রশাসনের উপর ভরসা রাখছি । আগামীকাল ১৫ জানুয়ারি নতুন সার্কুলেশন বেরোনোর কথা রয়েছে। আমাদের দাবি সেখানে যেন জিম খোলার অনুমতি দেওয়া হয়”।

তাঁরা এদিন প্ল্যাকার্ড হাতে মহকুমা শাসক দপ্তরের সামনে বিক্ষোভ দেখান। তাঁরা জানান গোটা দুর্গাপুরে প্রায় ১০৩ টি বন্ধ রয়েছে। সেই টিমের সাথে জড়িয়ে রয়েছে প্রায় দুই থেকে তিন হাজার মানুষ। এছাড়াও অনেক জিম লোন নিয়ে বিভিন্ন যন্ত্রপাতি গুলি কিনেছিল। কিন্তু জিম বন্ধ থাকায় তার ইএমআই দেওয়াতেও সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন জিম মালিকরা। তাই অবিলম্বে তাদের সমস্যার কথা মাথায় রেখে জিম খুলে দেওয়া হোক। এমনি আবেদন জানান তাঁরা মুখ্যমন্ত্রীর কাছে।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories