Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

‘আধুনিক LHB কোচ ব্যবহারে দুর্ঘটনার অভিঘাত এড়ানো যেত’, দাবি বিশেষজ্ঞদের

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

পুরনো আমলের ICF কোচ এখনো কেন ব্যবহার করা হচ্ছে এই নিয়ে পূর্বেই প্রশ্ন উঠেছে ।ভারতীয় রেলওয়ে যদি ICF কোচ এর বদলে LHB ব্যবহার করা হতো তাহলে দুর্ঘটনায় যা ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে এতোটা হত না বলে অনুমান করছেন বিশেষজ্ঞরা। পুরনো আইসিএফও কোচগুলির ডিজাইনই এমনভাবে করা হয়েছে যাতে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে একটি বগি আরেকটির ভেতরে ঢুকে না গিয়ে উপরে উঠে যায়। কিন্তু এই ধরনের ডিজাইনের কোচ এর ফলেই কি দুর্ঘটনার ভয়াবহতা আরও বাড়লো?

কেন LHB কোচ দুর্ঘটনা এড়াতে সক্ষম?

জানা যায় এই ধরনের আধুনিক কোচগুলি ঘন্টায় সর্বোচ্চ ২০০ কিলোমিটার গতিবেগেও ছুটতে পারে। সাথেই কোনো প্রকার দুর্ঘটনায় আঘাতে এড়াতে এই কোচগুলির ভেতরের রাবার প্যাডিং করা থাকে। এছাড়াও কোচ গুলি তৈরি করা হয় স্টেইনলেস স্টিল ও অ্যালুমিনিয়াম দিয়ে। কোনো প্রকার দুর্ঘটনার বিদ্যুৎ শক জড়িন বিষয়গুলিকে এড়ানোর জন্য এই ধরনের কোচ গুলিতে অ্যান্টি টেলিস্কোপিক প্রযুক্তির প্রয়োগ করা হয়। যার ফলে এই ধরনের বগি গুলি একটি অপরটির উপরে উঠে যায় না। এছাড়াও প্রত্যেকটি বগিতে আলাদাভাবেই আধুনিক নিউম্যাটিক ডিস্ক ব্রেক সিস্টেম থাকে।

পুরনো আমলের এবং আধুনিক কোচ সহ সকল ট্রেনের জন্য একটি নির্দিষ্ট গতিবেগ বেঁধে দেওয়া হয়। ট্রেনের সর্বোচ্চ গতিবেগ ৬৬ কিলোমিটার হয়। কিন্তু এই ট্রেনটি একেই পুরনো আমলের ICF কোচের এবং সাথে অত্যন্ত দ্রুতগতিতে আসছিল ফলের নিয়ন্ত্রণ না রাখতে পারা লাইনচ্যুত হওয়ার আরও একটি কারণ। যদিও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যখন রেলমন্ত্রী ছিলেন তখন থেকেই আধুনিক LHB কোচ ব্যবহারের শুরু করার কাজ করেছিলেন। কিন্তু এত বছর পরেও ভারতীয় রেল গুলির সমস্ত পুরনো কোচ বদলে এই LHB প্রযুক্তির নয়া কোচ চালু করার কাজটি কেন সম্পুর্ণ হয়নি সে বিষয়ে প্রশ্ন উঠছেই।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories