Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

১৫-এর নিচে ছাত্র-ছাত্রীদের ভ্যাকসিন! অপকার নাকি উপকার? দুশ্চিন্তায় অভিভাবকরা

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

রাজ্যের সকল স্কুলগুলিতে ১৫ থেকে ১৮ বছর বয়সীদের ভ্যাকসিনেশন শুরু হয়ে গিয়েছিল বেশ কিছুদিন পূর্বেই। স্কুলগুলিতে ছাত্র-ছাত্রীরা এসে তাদের টিকাকরণ সম্পন্ন করেছে। তবে অভিযোগ উঠেছিল নদীয়ার শান্তিপুরের অধিকাংশ স্কুল এই ১৫ বছরের কম বয়সী ছাত্র-ছাত্রীদের ভুল করে ভ্যাকসিন দিয়ে দেওয়া হয়েছিল। এই বিষয়টি নিয়ে বেশ হইচই পড়ে যায়। স্কুলগুলিতে কর্মসূচি ছিল নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রছাত্রীদের ভ্যাকসিনেশন। তবে সেখানে অভিভাবকরা অভিযোগ জানান টিকাকরণের সময় ছাত্র-ছাত্রীদের জন্মের তারিখ খতিয়ে দেখা হয়নি। যার ফলে ১৫ বছরের নিচে যাদের জন্ম তাদের কেউ একই টিকা দেওয়া হয়েছে। আসলে ভ্যাক্সিনেশনটি নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য ছিল নাকি ১৫ থেকে ১৮ বছর এই নিয়ে দোটানায় স্কুল কর্তৃপক্ষও।

যদিও এ বিষয়ে নজরদারি করার দায়িত্ব স্কুল কর্তৃপক্ষের উপর ছিল না বলেই জানিয়েছেন তাঁরা। তাঁরা বলেন, শান্তিপুর পৌরসভা ও মহুকুমা স্কুল পরিদর্শক অফিসের নির্দেশমতো ৩ রা জানুয়ারি বিদ্যালয়গুলিতে নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রছাত্রীদের ভ্যাকসিন দেওয়ার কর্মসূচি শুরু করার কথা ছিল। সেখানে স্কুলের দায়িত্বের মধ্যে ছিল ছাত্র-ছাত্রীদের টিকাকরনের জন্য আহ্বান জানানো এবং বিদ্যালয়ের একটি সঠিক পরিকাঠামো যুক্ত ঘর স্বাস্থ্যকর্মীদেরকে ছেড়ে দেওয়া। এর বাইরে আগত ছাত্র-ছাত্রীদের বয়স খতিয়ে দেখার মতন কাজটি তাদের দায়িত্বের মধ্যে ছিল না বলেই পরিষ্কার জানান তাঁরা। তবে ১৫ বছরের নিচে যাদের বয়স তাদেরকেও ভ্যাকসিন দেওয়ার ক্ষেত্রে তেমন কিছু দুশ্চিন্তার বিষয় নেই বলেই জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। চিকিৎসকদের কথা অনুযায়ী প্যানিক না করলে ক্ষতি হবার সম্ভাবনা তেমন কিছু নেই। কিন্তু অভিভাবকরা সে কথা মানতে নারাজ।

তাদের প্রশ্ন ক্ষতি যদি নাই হলো কিন্তু এই ভ্যাকসিন নেওয়ায় তাদের ছেলেমেয়েদের উপকার হবে কতটুকু? যদিও এ বিষয়ে জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে জানা যায়, ইতিমধ্যে শুধু শান্তিপুর নয় আরও বিভিন্ন জেলায় ১৫ বছরের কম বয়সীদের অধিকাংশেরই টিকাকরণ সম্পন্ন হয়েছে। টিকাকরনের জন্য ছাত্রছাত্রীরা তাদের বয়সের প্রমাণপত্র হিসেবে আধার কার্ড নিয়ে এসেছিল। আধার কার্ডের জন্ম সাল ২০০৭ কি না তা না খতিয়ে দেখাতেই এই গন্ডগোল সৃষ্টি হয়েছে। যদিও স্বাস্থ্য দপ্তর থেকে জানানো হয়েছে, যেহেতু আইসিএমআর এর নিয়ম অনুযায়ী ১৫ বছরের কম বয়সীদের ভ্যাকসিন দেওয়া যাবে না, তাই আরও বেশি দুশ্চিন্তায় পড়েছেন অভিভাবকরা। তবে চিকিৎসক মন্ডলীর মতামত অনুযায়ী এতে খুব বেশি দুশ্চিন্তার কিছু কারণ নেই। যদিও ভ্যাক্সিনেশন পোর্টালে ২০০৭ সাল বয়স নির্ধারণের জন্য সেট করা ছিল। কিন্তু টিকাকরণের সময় স্বাস্থ্যকর্মীরা কেন জন্ম তারিখ খতিয়ে দেখেননি এ বিষয়ে প্রশ্ন উঠছে বারবার।

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories