Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

উধাও করোনাবিধি, ব্যাপক ‘জনসমর্থন’ নিয়ে প্রচার দিলীপ ঘোষের

।। প্রথম কলকাতা।।

করোনা পরিস্থিতির ভয়াবহতা কিছুমাত্র কমেনি। তবুও এই পরিস্থিতিতে বন্ধ নেই ভোটের প্রচার। প্রত্যেকটি রাজনৈতিক দলই কোমড় বেঁধে নেমেছেন প্রচার করতে। সে ক্ষেত্রে কেউ কেউ নির্বাচন কমিশনের দেওয়া কোভিড বিধি পালন করছেন অথবা কাউকে দেখা যাচ্ছে নির্বাচন কমিশনের কোভিড বিধিকে তোয়াক্কা না করেই মিছিল নিয়ে চালাচ্ছেন প্রচার। ভোট প্রচার এবং করোনা সংক্রমণ এই দুয়ের মধ্যে বেশ টানাপোড়েনের সম্পর্ক তৈরি হয়েছে। না প্রচার বন্ধ করা যাবে, না এই করোনার সংক্রমণকে উপেক্ষা করা যাবে। কাজেই বাধ্য হয়ে পুলিশকে কড়া হাতে নিয়ম তুলে নিতে হয়েছে। সোমবার দিলীপ ঘোষ তাঁর দলীয় প্রার্থীদের সঙ্গে প্রচার করতে বের হন ২১ থেকে ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের মধ্যে।

কিন্তু বেশি লোক নিয়ে প্রচার করা যাবে না,এই বলে পুলিশকর্মীরা আটকে দেন তাকে। ফলে বাধ্য হয়েই প্রচার বন্ধ করতে হয় দিলীপ ঘোষকে। তবে পুলিশের এই প্রচার বন্ধ করার পেছনেও ইন্ধন যোগাচ্ছে তৃণমূল , দৃঢ়বিশ্বাসী তিনি। এদিন ২১ থেকে ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের মধ্যে প্রচার করতে এসে দিলীপ ঘোষ জানান,“আমাদের জন্য ব্যাপক জনসমর্থন রয়েছে। মানুষ রাস্তায় ,এমনকি বাড়ির ছাদ থেকেও ফুল ছুঁড়ছেন ,দাঁড়িয়ে আছেন। এই যে ব্যাপক ভিড় আমাদের দলের সাথে দেখা যাচ্ছে এটা এখানকার স্থানীয় লোক। আমরা দলীয় কজন করোনা বিধি মেনেই প্রচার করতে বেড়িয়েছিলাম।

কিন্তু এইরকম জনসমর্থন দেখে তৃণমূলের অসুবিধা হচ্ছে। তাই পুলিশকে দিয়ে আমাদের আটকাবার চেষ্টা করছে। ফলে প্রচার শেষ করতে হচ্ছে এখানেই”। পুলিশের এই ভূমিকার প্রশ্নে তিনি বলেন,”পুলিশ তো নয় তৃণমূল। তৃণমূল বিজেপির এই জনসমর্থন, জনউল্লাস দেখে ভয় পাচ্ছে। যখন তৃণমূল হাজার হাজার লোকের মিছিল নিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দিতে গিয়ে ছিল তখন এইসব করোনা বিধি ছিল না। বিধি কেবল বিজেপির জন্য ? আমরা করোনা বিধি মানি বলেই ৫ জন নেতা বেরিয়েছিলাম”। ভোট আদৌ হবে কিনা সাংবাদিকদের এই প্রশ্নের পাল্টা উত্তরে দিলীপ ঘোষ প্রশ্ন ছুড়ে দেন,”আমরাও জিজ্ঞেস করছি ভোট আদৌ হবে তো?”

খবরে থাকুন, ফলো করুন আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ায়

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories