Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

‘সুজিত আমার চেয়ে ওপরে, সে রাজ্যের মন্ত্রী-বিধায়ক’, ‘প্রথম কলকাতা’ এক্সক্লুসিভে অকপট সব্যসাচী

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

বিধাননগরের বিধায়ক তথা রাজ্যের মন্ত্রী সুজিত বসুর সঙ্গে বিধাননগরের প্রাক্তন মেয়র সব্যসাচী দত্তর দত্তর আদায় কাঁচকলায় সম্পর্কের কথা সর্বজনবিদিত। এমনকি সব্যসাচী বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দেওয়ায় ঘনিষ্ঠ মহলে নাকি আপত্তিও জানান সুজিত। যদিও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সম্মতি থাকায় সব্যসাচীর প্রত্যাবর্তনকে কিছুটা বাধ্য হয়েই সুজিতকে মেনে নিয়ে হয়েছিল বলে রাজনৈতিক মহলে গুঞ্জন।

শুধু তাই নয়, পুজোর সময় সব্যসাচী দত্ত তৃণমূলে যোগ দেওয়ার কিছু দিনের মধ্যেই পোস্টার, ব্যানার ছিঁড়ে দেওয়ার অভিযোগে সব্যসাচী ঘনিষ্ঠ উদয়ন গুহ সুজিত বসুর ছেলের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেন, যা নিয়ে রাজনৈতিক মহলে তীব্র জলঘোলা হয়। যদিও যাবতীয় বিতর্ককে সরিয়ে আসন্ন বিধাননগর পুরভোটে সব্যসাচী দত্তকে ফের প্রার্থী করেছে তৃণমূল। বিধাননগর পৌরনিগমের ৩১ নম্বর ওয়ার্ডে তিনি ঘাসফুল প্রতীকেই লড়বেন।

এদিকে সব্যসাচীর নাম প্রার্থী তালিকায় ঘোষণা হওয়ার পরেই তৃণমূলের অন্দরে অনেকেই অসন্তুষ্ট বলে সূত্রের খবর। প্রশ্ন উঠছে, প্রার্থী হিসেবে সব্যসাচী দত্তকে কী তাহলে মেনে নিলেন সুজিত? কারণ, মাত্র আট ন’মাস আগেই একে অপরের বিপক্ষে ভোট যুদ্ধে সামিল হয়েছেন, অবলীলায় একের পর এক বাক্যবাণ নিক্ষেপ করেছেন একে অপরের দিকে। তাহলে কী সমস্ত দ্বন্দ্বের অবসান? মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ম্যাজিকে কী তাহলে ফের বন্ধুত্বের পথে দুই যুযুধান রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব?

এদিন ‘প্রথম কলকাতা’-র প্রতিনিধি রোজিনা রহমানকে দেওয়া এক্সক্লুসিভ সাক্ষাৎকারে সব্যসাচী সাফ বলেন, “দলটা মমতাদি আর অভিষেকের নেতৃত্বে চলে। মমতাদি মাথার ওপরে, অভিষেক সাংগঠিক দিকটা দ্যাখে। আমরা সকলেই কর্মী। সেখানে সুজিত আমার চেয়ে ওপরে, ও মন্ত্রী, বিধায়ক। মমতাদি তো বৈঠকে প্রার্থী তালিকা সবাইকে দেখিয়েছিল। সেই বৈঠকে সুজিত ছিল, আমি ছিলাম না। তাঁর আপত্তি থাকলে সে বিরোধিতা করতে পারত, করেনি তো। এসব মিডিয়ার প্রচার। হিরো ভিলেন না থাকলে তো হয়না!“

আপডেট থাকতে ফলো করুন আমাদের ইউটিউব , ফেসবুক, ট্যুইটার

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories