Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

আজকের দিন : এইডস দিবস, সব সময় সচেতন থাকুন

।। প্রথম কলকাতা ।।

এইডসের আতঙ্কে রয়েছে পুরো বিশ্ব। একবার যিনি এইডসে আক্রান্ত হবেন তিনি সম্পূর্ণভাবে কোনদিনও সুস্থ হবেন না। তবে ডাক্তারের পরামর্শ মেনে চললে এবং সঠিকভাবে ওষুধ খেলে সুস্থ থাকা সম্ভব। এই এইডস রোগ সারা বিশ্ববাসীকে রীতিমতো দিনের পর দিন ভাবিয়ে তুলেছে। ২০১৭ সালের একটি রিপোর্ট অনুযায়ী এইডস আক্রান্তদের নিরিখে বিশ্বে ভারত তৃতীয় নম্বর স্থানে রয়েছে।

এক কথায় এইডস একটি ভয়ানক রোগ। সর্বপ্রথম ১৯৮১ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এই রোগ প্রথম শনাক্ত করা হয়েছিল। ১৯৮৪ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ফ্রান্সের বিজ্ঞানীরা এই রোগের ভয়ঙ্কর ভাইরাসকে শনাক্ত করেন। প্রতিবছর নিয়ম করে তাই এই রোগ সম্পর্কে সচেতনতা উদ্দেশ্যে ডিসেম্বরের ১ তারিখে পালন করা হয় বিশ্ব এইডস দিবস। এই বিশেষ দিনে সারা পৃথিবী জুড়ে বিভিন্ন দেশে চলে নানান সচেতনতা মূলক কর্মকাণ্ড।

কোন ব্যক্তির এইচআইভি সংক্রমণ হলেই তার এইডস হবে অনিবার্য। এইডসে আক্রান্ত এবং মৃত্যু তালিকায় বাদ যায় না ছোট ছোট শিশুরাও। ২০০৭ সালে বিশ্বব্যাপী একটি রিপোর্ট অনুযায়ী শুধুমাত্র এই রোগে মারা গিয়েছিল ৩ লক্ষের বেশি শিশু। এই রোগ কোন বয়স মানে না। একে করোনা এখনো আমাদের ঘাড়ের কাছে নিঃশ্বাস ফেলছে। তবে এডস ছোঁয়াচে নয় । একটু সতর্ক এবং সাবধানতা অবলম্বন করলেই এই রোগ থেকে দূরে থাকা যায়। তাই এইডস থেকে বাঁচতে কয়েকটি জিনিস অবশ্যই মাথায় রাখুন।

•স্যালোনে গেলে অবশ্যই নিশ্চিত করুন নতুন ব্লেড দিয়ে যেন চুল কিংবা দাড়ি কাটা হয়।

•রাস্তার ধারে থাকা কাটা ফল খাওয়া এড়িয়ে চলুন। এরকমও দেখা গেছে, রাস্তার পাশের দোকানে দোকানদারের হাত কেটে যাওয়ায় সেই অবস্থাতেই খাবার বানিয়েছেন। তিনি এইডসে আক্রান্ত ছিলেন এবং সেই দোকানের খাবার খেয়ে আক্রান্ত হয়েছে শিশুরাও।

•ট্যাটু করতে গেলে, খেয়াল রাখুন যেন নতুন সূঁচ দিয়ে ট্যাটু করা হয়।

•অসুরক্ষিত যৌন জীবন এবং একাধিক যৌনসঙ্গী অবশ্যই এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন।

•এই রোগ ছড়িয়ে পড়ে রক্ত, সিমেন, ভ্যাজাইনাল ফ্লুইড, রেকটাল ফ্লুইড প্রভৃতির মাধ্যমে। এমনকি এইডসে আক্রান্ত মা ছোট শিশুকে স্তন্যপান করাতে পারেন না। সেক্ষেত্রেও এই রোগ সংক্রমণের সম্ভাবনা থাকে।

✓এইডস রোগের উপসর্গ

•দিনের পর দিন যদি দ্রুত ওজন কমতে শুরু করেন তাহলে অবশ্যই সতর্ক থাকুন।

•গলা ,মুখ, পিঠ ও নাকে যদি কাল কিংবা গোলাপি রঙের ফুসকুড়ি দেখা দেয় তাহলে দ্রুত চিকিৎসকের কাছে যান।

•যদি বহুদিন ধরে কোমরে, হাতে পায়ে ব্যথা থাকে এবং তার সাথে জ্বর আসে তাহলে সাবধান হতে হবে। এমনকি এইডসে আক্রান্ত ব্যক্তির জ্বরের সঙ্গে গলাও ফুলে যায়।

•যদি বহুদিন ধরে পেটের নানান সমস্যায় ভোগেন তাহলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

•মেয়েদের ক্ষেত্রে যদি পিরিয়ডের সময় অস্বাভাবিক রক্ত ক্ষরণ হয়, তাহলে আগে থাকতেই সাবধান হন।

• দীর্ঘদিন ধরে ঘুষঘুষে জ্বর , মাথা ব্যাথা, বমি বমি ভাব ,গলায় ব্যথা প্রভৃতি সমস্যাগুলি এইডসের লক্ষণ হতে পারে।

আপডেট থাকতে ফলো করুন আমাদের ইউটিউব , ফেসবুক, ট্যুইটার

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম

Categories