Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

‘বেআইনিভাবে পুরসভা লুট করেছে শাসক দলের নেতারা’, অভিযোগ সুজনের

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

আজ পড়শী রাজ্য ত্রিপুরায় পুরভোটকে কেন্দ্র করে লাগাতার হিংসার ঘটনা সামনে এসেছে। ক্ষমতাশীল বিপ্লব দেব সরকারের বিরুদ্ধে লাগামহীন সন্ত্রাসের অভিযোগ বিরোধীদের। এমনকি ভোট চালাকালীন অতিরিক্ত কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েনের নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। এবার ত্রিপুরা পুরভোট নিয়ে মুখ খুললেন রাজ্য সিপিএম মুখপাত্র সুজন চক্রবর্তী (Sujan Chakraborty)।ত্রিপুরা সরকারের কর্মকাণ্ডকে নিন্দা করার পাশাপাশি পশ্চিমবঙ্গ নির্বাচনের সময় ঘটা সন্ত্রাসের প্রসঙ্গ উত্থাপন করলেন সুজন। তাঁর কথায়, “পশ্চিমবঙ্গের জলছবিই তো ত্রিপুরায়। এখানের পুরসভা, পঞ্চায়েত ভোটে যে ছবি দেখা যায় তারই কিছুটা ত্রিপুরায় দেখা গেল। পশ্চিমবাংলায় আমরা জানতাম ভোটের সন্ত্রাস কাকে বলে, ত্রিপুরার মানুষ জানত না, এবার বিজেপি সেটা দেখিয়ে দিল।”

অন্যদিকে, আজ পুরভোটের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করল রাজ্য নির্বাচন কমিশন। আগামী ১৯ ডিসেম্বর কলকাতায় পৌরসভার ১৪৪টি ওয়ার্ডে ভোট হবে। কিন্তু হাওড়া পুরসভার বিন্যাসের ব্যাপারে রাজ্যসরকার যে বিল এনেছিল, তাতে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় (Jagdeep Dhankhar) সই না করায় হাওড়া পুরভোটের কথা আজ কিছু ঘোষণা করা হয়নি। আবার কেন শুধু কলকাতা ও হাওড়ায় পুরভোট হবে, পশ্চিমবঙ্গের সব পুরসভায় ভোট হোক একসাথে, এই দাবিতে কলকাতা হাইকোর্টে যে দু’টি জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়েছিল, বুধবার সেই মামলার শুনানি হবার কথা থাকলেও হয়নি শুনানি।

আজ রাজ্য নির্বাচন কর্তৃক ভোটের দিন ঘোষণা প্রসঙ্গে সুজনের কটাক্ষ, “রাজ্যে নির্বাচন কমিশন বলে কিছু আছে কি নেই সেটাই মানুষের কাছে বড়ো প্রশ্ন। নির্বাচন কমিশনের আইনজীবী বললেন যেহেতু কোর্টে বিচারাধীন বিষয় আমরা এখন বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করব না। তাহলে সেটা উল্টে গেল কীভাবে? রাজ্য নির্বাচন কমিশন কী সরকার বা সরকারের সুপ্রিমোর নির্দেশে উঠতে বললে উঠবে, বসতে বললে বসবে?” একই সাথে তিনি সংযোজন করেন, “২০১৮ সাল থেকে অনেক পৌরসভায় নির্বাচন হয়নি। তাহলে সেগুলো তো রাজ্য সরকারের নিয়কম অনুযায়ী এক বছর পর থেকে বেআইনিভাবে চলছে। সেখানে অর্থনৈতিক লেনদেনও বেআইনি। শাসক দলের নেতাদের দ্বারা সেগুলো পরিচালিত হয়েছে। বেআইনিভাবে পুরসভা লুট করেছে শাসক দলের নেতারা।”

আপডেট থাকতে ফলো করুন আমাদের ইউটিউব , ফেসবুক, ট্যুইটার

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম