Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

ক্রমশ সমুদ্রের নিচে তলিয়ে যাচ্ছে এই দেশটি ! ভয়ঙ্কর অবস্থায় দেশবাসী

1 min read

।। লিপিকা সরদার ।।

মাত্র ৫০ থেকে ৬০ বছরের মধ্যেই এই রাষ্ট্রটি চলে যাবে সম্পূর্ণরূপে জলের নিচে। একথা এখানকার প্রধানমন্ত্রী নিজেও ২০১৮ সালে নিজে স্বীকার করে নিয়েছিলেন যে, মাত্র কয়েক বছরের মধ্যেই এই ছোট্ট রাষ্ট্রের কোনো অস্তিত্ব থাকবে না। জায়গাটির নাম হল তুভালু ( TUVALU), ওশিয়ানিয়ার ছোট্ট একটি দ্বীপ রাষ্ট্র। চারিদিকে বেষ্টন করে আছে সমুদ্রের নোনা জল।

• পানীয় জলের অভাব

তুভালুর প্রাচীন লোকেদের বলা হতো পলিনেশিয়ানস। রাজধানী রয়েছে ফুনাফুটিতে, এখান থেকেই চলে রাষ্ট্রের সমস্ত অফিসিয়াল কাজ। এই তুভালু ১৯৭৮ সালে ব্রিটিশদের কাছ থেকে স্বাধীন হয়েছিল। এই দেশের আশেপাশে কোনো নদী নেই। পানীয় জল হিসাবে মানুষ ব্যবহার করে ঝরনা আর কুয়োর জল। কিন্তু কুয়োর জল আর বর্তমানে পানীয় হিসেবে ব্যবহার করা যাচ্ছে না।

• জীবন যাত্রার মান

এই ছোট্ট দেশটি রয়েছে সমুদ্র থেকে মাত্র ৪ – ৫ মিটার উচ্চতায়। তাকে একে বলা হয় ‘ Low Lying Land’ । নোনা জমির কারণে এখানে সে ভাবে চাষাবাদ একেবারেই হয় না। শুধুমাত্র নারকেল আর কলা চাষ হতে দেখা যায়। এখানকার মানুষরা মূলত মুরগি আর বিভিন্ন সামুদ্রিক ছোটো প্রাণী প্রতিপালন করে থাকেন। এই দ্বীপ রাষ্ট্রে খুব সস্তায় মাছ পাওয়া।

কমজুরি দেশ কেন ?

এখানে চাষ যোগ্য জমি নেই, তাই অন্যান্য সবজির দাম প্রচুর। ইউনাইটেড নেশনের তরফ জানানো হয়েছে ,গোবাল ওয়ার্মিংকে সহ্য করার দিক থেকে পৃথিবীর সব থেকে কমজুরি দেশ হল তুভালু। গ্লোবাল ওয়ার্মিং কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে এই রাষ্ট্রের। সমুদ্রের নোনা জলের স্তর দিনের পর দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এখানে বসবাসকারী মানুষের শরীরে দেখা দিচ্ছে ডিহাইড্রেশন কিংবা ব্রেন স্ট্রোকের মতো সমস্যা।

• রানওয়েতে খেলা করে বাচ্চারা

প্রতিবছর গড়ে তুভালুর ৩.৯ মিলিমিটার জমি ডুবে যাচ্ছে সমুদ্রে। বিগত ১০ থেকে ১৫ বছরের মধ্যে এখানকার স্থায়ী বাসিন্দারা সমুদ্রের ভয়ঙ্কর পরিবর্তন লক্ষ্য করছেন। পানীয় জলের ভরসা হয়ে দাঁড়িয়েছে একমাত্র বৃষ্টির জল। খুব সুন্দর প্রাকৃতিক পরিবেশ থাকলেও এখানে খুব কম পর্যটক ঘুরতে আসেন।

স্বাভাবিকভাবে এখানেই এয়ারপোর্ট গুলি প্রায় খালি পড়ে থাকে। ফাঁকা রানওয়েতে বাচ্চারা খেলা করে। ভবিষ্যতে যে কী হতে চলেছে তা এখানকার বাসিন্দারা সবাই জানেন। পরিকল্পনা অনুযায়ী খুব দ্রুত এখানকার সমস্ত জনগণদের সরিয়ে অন্য জায়গায় নিয়ে যাওয়া হবে।

আপডেট থাকতে ফলো করুন আমাদের ইউটিউব , ফেসবুক, ট্যুইটার

সব খবর সবার আগে, আমরা খবরে প্রথম