Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

চূড়ান্ত অব্যবস্থা শান্তিপুরের বুথে, ক্ষোভে ফেটে পড়লেন ভোট কর্মীরা

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

রাত ফুরোলেই রাজ্যের চার কেন্দ্রে উপনির্বাচন। কেন্দ্রীয় বাহিনীর পাশপাশি দুপুরের মধ্যে বিভিন্ন বুথে এসে উপস্থিত ভোটকর্মীরা। তাঁদেরকে কাটাতে হবে আজকের রাতটা। পাশপাশি বেশ কিছু কাজও থাকে পোলিং অফিসারদের। এদিকে কিন্তু শান্তিপুরের ১৭৮ ও ১৭৯ নম্বর বুথে পা রেখেই চক্ষু চড়ক্কগাছ ভোটকর্মীদের।

শান্তিপুর আমড়াতলা রামনগর গার্লস প্রাইমারি স্কুল বুথে ভোটকর্মীরা পৌঁছে দেখেন তাঁদের থাকার বা কাজ করার মতো কোনো পরিবেশই নেই। একটা ঘরে ২২ জনের থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে। তাও ঘর এক বিন্দু পরিষ্কার করা হয়নি। আরশোলা, শামুকে ভর্তি। নেই বিদ্যুৎ। স্বাভাবিকভাবেই এই অবস্থা দেখে ক্ষোভে ফেটে পড়েন পোলিং অফিসার। তাঁরা সেক্টর অফিসারকে ঘিরে ধরে বিক্ষোভ জানান। এরপর অনেক সময় পর বিদ্যুৎ এলেও নেই পাখা। কেন্দ্রীয় বাহিনীর একটি ঘর ভোট কর্মীদের ছেড়ে দিয়ে বাইরে তাঁবু খাটায়। তাও সব সমস্যা মেটে না। এই অব্যবস্থার মধ্যেই স্কুল বাড়ির বারান্দায় বসে ভোটগ্রহণের কাজ খানিক এগিয়ে রাখেন ভোট কর্মীরা।

বিশেষ করে করোনা কালে মাত্র ২টো শৌচাগারে ৪০-৫০ জনের শৌচকর্ম কতটা সুরক্ষিত তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন কর্মীরা। তারওপরে সেখানে নেই বিদ্যুতের ব্যবস্থা। থাকার জায়গা থেকে শৌচালয়ে দূরত্ব অনেকটাই। রাতে সাপের উপদ্রব আছে বলেও শোনা যায়। বারবার সেক্টর অফিসারকে বলা সত্ত্বেও কোনো কাজ হচ্ছে না বলে তাঁদের অভিযোগ। পোলিং অফিসার তারক চন্দ্র পাল রীতিমতো হুমকি দেন যে, রাতের মধ্যে অব্যবস্থা না ঠিক হলে তাঁরা রাস্তায় গিয়ে শুয়ে থাকবেন এবং শনিবার ভোটগ্রহণে বিরত থাকবেন। তার বিনিময়ে যে কোনো শাস্তি মাথা পেতে নিতে রাজি বলেই জানিয়েছেন বিক্ষুব্ধ ভোট কর্মীরা।

News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন প্রথম কলকাতা অ্যাপ