Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

পৃথিবীর সবথেকে বয়স্ক ব্যক্তি, দিব্যি খোশমেজাজে থাকার রহস্যটা কী ?

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

বয়সকে অনেকদিন আগেই হার মানিয়েছেন, দিব্যি খোশমেজাজে পরিবারের সাথে সময় কাটাচ্ছেন পৃথিবীর সব থেকে বয়স্ক মানুষ। বয়স হলেও কোনো রোগ তাঁকে কাবু করতে পারেনি। সাধারণ আর পাঁচটা মানুষের মতোই স্বচ্ছন্দে জীবন কাটাচ্ছেন পরিবারের সাথে। বয়সকে হার মানিয়ে এই ভালো থাকার পিছনের কারণটা তিনি নিজেই। আজ জানবেন পুয়ের্তো রিকোর এমিলিও ফ্লোরেস মারকেজের কথা, যিনি গিনিস বুকে নাম তুলেছেন পৃথিবীর বয়স্ক মানুষ হিসেবে।

সংগ্রামী জীবন যাপন

মারকেজ বর্তমানে ১১৩ বছরের দোরগোড়ায়। জীবনের কঠিন এবং সংগ্রামমুখর জীবনের সময় গুলিকে একে একে পার করে এখন সব চিন্তাই ঝেরে ফেলেছেন মাথা থেকে। ছোট থেকেই তিনি টেনে এসেছেন বিশাল সংসারের দারিদ্রতার রাশ।

পরিবারের ১১ জন ভাইবোনের মধ্যে ছিলেন তিনি দ্বিতীয় সন্তান। স্বাভাবিকভাবেই বড় হওয়ার খাতিরে বাবার হাতে হাতে কাজ করতে হতো। তাই পড়াশুনা করার সেভাবে সুযোগ পাননি। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত কাটতো বাবারা খামারে সাহায্য করতে। অত্যন্ত অল্প বয়স থেকেই শিখে গেছিলেন জীবনের বেঁচে থাকার লড়াই সম্পর্কে।

১০১ বছর বয়সে অস্ত্রোপচার

১৯০৮ সালে জন্মগ্রহণ করা মারকেজ বাবার মৃত্যুর পর গৃহস্থলীর সমস্ত কাজ এবং ছোট ছোট ভাইবোনদের দায়িত্ব নিজের হাতে তুলে নেন। বিরাট সংসারের বোঝা মনের মাঝে বিলাসিতার কোন সুযোগ পাননি। তিনি বিবাহ করেছিলেন আন্দ্রেয়া পেরেজকে। তিনিও ২০১০ সালে ৭৫ বছর বয়সে প্রয়াত হন। চার সন্তানের পিতা মারকেজ বর্তমানে বিশ্বের প্রবীণ ব্যক্তি হিসেবে খ্যাতি লাভ করেছেন। ১০১ বছর বয়সে পেসমেকার বসানোর কারণে অস্ত্রোপচার হয়েছিল, তারপর থেকেই তিনি সুস্থ ভাবে জীবন যাপন করছেন।

• এতদিন বেঁচে থাকার রহস্য

মারকেজের উপভোগ্য জীবনের কারণ তিনি নিজেই জানিয়েছেন। তিনি বিশ্বাস করেন সুখী জীবন যাপনই হলো বহুদিন বেঁচে থাকার মূলমন্ত্র। তার জন্য চাই জীবনের প্রতি ভালোবাসা এবং সমস্ত মানসিক অসুস্থতাকে জয় করা। মানসিক অবসাদ ও একাকিত্বকে দূরে সরিয়ে নিজের মত বাঁচার মধ্য দিয়েই সবথেকে বেশি প্রাণোচ্ছল ভাবে উপভোগ করা যায় জীবনকে।

যদিও গিনিস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে মারকেজ ছাড়াও বয়স্ক ব্যক্তি হিসেবে নাম তুলেছেন জাপানের কেন তানাকা ( ১১৮ বছর ), রোমানিয়ার দুমিক্র কমেসেকু( ১১২ বছর) , ফ্রান্সের জন কলমেন্ট ( ১২২ বছর ) প্রমুখ ব্যক্তিগণ।

News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন প্রথম কলকাতা অ্যাপ