Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

শীত কাবু হবে এক গ্লাস বিয়ারে ! এর হাজারটা গুণ পড়ে দেখুন

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

সারাদিন অফিসের ব্যস্ততাময় মুহূর্তে পর , একটু গ্লাস বিয়ার হলে মন্দ হয় না। মানসিক চাপ কমাতে বিয়ার যেমন একটি সাহায্যকারী পানীয়, ঠিক তেমনই উইকেন্ডে বন্ধুদের সাথে ঘরোয়া পার্টি জমিয়ে দিতে এটি ওস্তাদ। বিয়ার সম্বন্ধে অনেক মানুষের মধ্যে ভুল ধারণা রয়েছে, যেকোনো জিনিস অতিরিক্ত মাত্রায় খেলে তার ক্ষতিকারক প্রভাব থাকবেই। সামনেই শীত, জাঁকিয়ে পড়া ঠান্ডাকে মোকাবিলা করতে বিয়ার আপনাকে সাহায্য করতে পারে। আজকের এই প্রতিবেদনে জেনে নিন বিয়ারের চমৎকার কয়েকটি গুণ।

হৃদরোগের আশঙ্কা কমায়

বিয়ারে রয়েছে গুড কোলেস্টেরল বা এইচডিএল । ফলিক অ্যাসিড, এবং ভিটামিন বি সমৃদ্ধ এটি আমাদের শরীরের পক্ষে অত্যন্ত উপকারী। শীতে প্রতিদিন পরিমিত বিয়ার পান করলে শরীরের হোমোসিস্টিনের স্তর কমে। এই স্তরটি কিন্তু হৃদরোগের মূল কালপিট।

ডায়াবেটিস থেকে মুক্তি

ইউরোপের এক জার্নালে প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী শুধুমাত্র বিয়ার পান করেই ২১% পর্যন্ত ডায়াবেটিসের আশঙ্কা দূর করা সম্ভব। সে ক্ষেত্রে সপ্তাহে মাত্র তিনটা থেকে ছয়টা বিয়ার খেলেই যথেষ্ট। সে ক্ষেত্রে সপ্তাহে মাত্র ৬টি ক্যানের বেশি বিয়ার একেবারেই খাওয়া যাবেনা।

•হাড় মজবুত করে

হাড়ের গঠন কিংবা জয়েন্ট পেইন এর ক্ষেত্রেও বিয়ার যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। পরিমিত বিয়ার হাড়ের গঠনে সাহায্য করে এবং হাড়ের ঘনত্ব বৃদ্ধি করে।

মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি

বর্তমানে ব্যস্ততাময় জীবন সারাদিন ল্যাপটপের সামনে বসে থাকার ফলে স্বাভাবিকভাবেই মস্তিষ্ক বিশ্রাম পায় না। পরবর্তীকালে দেখা দেয় অ্যালঝাইমার্স এর মত সমস্যা। এক্ষেত্রে বিয়ার অত্যন্ত উপকারী, প্রতিদিন পরিমিত পরিমাণে বিয়ার পান মস্তিষ্কে রক্ত চলাচল সচল রাখে।

দাঁতের খেয়াল রাখে

বিয়ারে থাকা উপকারী ব্যাকটেরিয়া দাঁতের পক্ষে অত্যন্ত ভালো। বিশেষ করে যারা অতিরিক্ত চা বা কফি পান করেন তাদের দাঁত পরিষ্কার রাখতে এবং দাঁতে ক্ষতিকারক প্রভাব থেকে রেহাই দেয়। এছাড়াও ইনফেকশনের নানান জটিল সমস্যা থেকে মাড়িকে ভালো রাখে। কিছু কিছু মাউথওয়াশেও উপাদান হিসেবে বিয়ার ব্যবহার করা হয়।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি

অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট পূর্ণ বিয়ারে থাকে ভিটামিন বি, ফসফরাস, ফোলেট প্রভৃতি। যা আমাদের শরীরের পুষ্টির চাহিদা মেটায় এবং রোগপ্রতিরোধের ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।

•কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি

বিয়ার খাওয়ার কিছুক্ষণ পরই বেশ কিছুটা বৃদ্ধি পায়, এছাড়াও ক্ষিদে বাড়াতে সাহায্য করে।

যৌনউদ্দীপক পানীয়

বিয়ারে থাকা আয়রন শরীরে অক্সিজেন সরবরাহের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। যার ফলে যৌন উদ্দীপনা বৃদ্ধি পায়।

✓বিয়ার পান করার আগে সতর্ক হন

•একমাত্র পরিমিত পরিমাণে বিয়ার পান কিন্তু শরীরের পক্ষে উপকারী। বিয়ার পানকে যদি নেশায় পরিণত করেন তাহলেই হিতে বিপরীত হবে। কারণ আমাদের শরীরে অতিরিক্ত পরিমাণে অ্যালকোহলের পরিমাণ ক্ষতিকারক প্রভাব ফেলে।

•যদি আপনি আগে কোনদিনও বিয়ার না খেয়ে থাকেন অথচ নতুন করে বন্ধুদের পাল্লায় বিয়ার খাওয়া শুরু করেছেন তাহলে চিন্তা ভাবনা করে খেতে হবে। কারণ অ্যালকোহলের প্রতি আসক্তি একেবারেই ভালো না।

•গর্ভবতী মহিলা, হৃদরোগ রয়েছে কিংবা লিভারের সমস্যা রয়েছে এমন মানুষদের বিয়ার পান করা একেবারেই অনুচিত। এছাড়াও যারা প্রতিনিয়ত হতাশা কিংবা অনিদ্রাজনিত সমস্যায় ভুগছেন তারা বিয়ারকে এড়িয়ে যান।

•বিয়ারে অ্যালকোহলের পরিমাণ কম থাকলেও অতিরিক্ত পরিমাণে পান করলে লিভার বা হৃদযন্ত্রের ক্ষতি হতে পারে। শারীরিক কোন জটিলতার কারণে যদি আপনাকে নিয়মিত ওষুধ খেতে হয় তাহলে বিয়ার থেকে দূরে থাকুন।

News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন প্রথম কলকাতা অ্যাপ