Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

সল্টলেকে বেআইনি কল সেন্টার খুলে প্রতারণা, গ্রেফতার ২

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

বেআইনিভাবে কল সেন্টারের ব্যবসা খুলে বিদেশী বেকার ব্যক্তিদের চাকরি দেবার নাম করে প্রতারণা করা হত খোদ কলকাতায় বসে। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে এবার প্রতারণা চক্রের পর্দা ফাঁস করল বিধানগর সাইবার ক্রাইম থানার পুলিশ। গ্রেফতার করা হল প্রতারণাচক্রের দুই মূল পান্ডাকে। একজনের নাম বিনোদ কুমার সিং (৪৮) এবং অপরজনের নাম রাজেশ সিং বাঘেল (৪৫)। পুলিশি হেফাজতে পেতে আজ এই দুইজনকেই বিধাননগর আদালতে তোলা হবে।

সল্টলেক সেক্টর-৫ এর কাছে ‘টুইন টাওয়ার’ নামের একটি বহুতল আবাসনের তিন তলায় প্রায় ১৫০০ বর্গফিট জায়গা নিয়ে বেশ রমরমিয়ে চলত এই বেআইনি কল সেন্টারটি। একটি নকল কোম্পানির নাম করে ফ্রান্স, আমেরিকা এবং কানাডার বেকার যুবক-যুবতীদের মাইক্রোসফট, অ্যামাজনে চাকরি পাইয়ে দেওয়ার প্রলোভন দেখানো হত। চাকরি পাওয়ার লোভ সম্বরণ করতে না পেরে অনেকেই এঁদের ফাঁদে পা দিতেন। সেক্ষেত্রে তাঁদের কাছে নেওয়া হত মোটা অঙ্কের টাকা। টাকা নেবার ক্ষেত্রেও অভিনব পরিকল্পনা ছিল প্রতারণা গোষ্ঠীর। আইনের চোখে ধুলো দিতে এঁরা মূলত বিটকয়েন এবং ক্রিপ্টোকারেন্সির মাধ্যমেই আদানপ্রদান করত।

গোপন সূত্রে খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার ভুয়ো কল সেন্টারে হানা দেয় বিধানগর সাইবার ক্রাইম থানার পুলিশ। কল সেন্টারের দুই জন মালিককে গ্রেফতার করা ছাড়াও প্রচুর পরিমাণ সামগ্রী উদ্ধার করা হয়েছে। পাওয়া গেছে, ৬২টি সচল কম্পিউটার, ৬১টি ল্যান্ড ফোন, ২টি মোবাইল এবং প্রচুর পরিমাণ নথি। হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটে প্রচুর সংখ্যক ক্রিপ্টোকারেন্সি অ্যাকাউন্ট, বিদেশী ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট, প্রচুর লেনদেনের হিসেব, ১০টাকার নোটের ছবি সম্বলিত স্ক্রিনশট পাওয়া গিয়েছে। ধৃত বিনোদ কুমার সিং এবং অপরজনের নাম রাজেশ সিং বাঘেল দুইজনেই কাশীপুরের বাসিন্দা। এই মুহূর্তে তদন্ত জারি আছে। মোট কত পরিমাণ অর্থ তাঁরা হাতিয়েছে এবং এই চক্রে কারা জড়িত সবটাই খতিয়ে দেখবে পুলিশ।

News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন প্রথম কলকাতা অ্যাপ