Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

আগামী কয়েক দশক দেশের রাশ থাকবে বিজেপির হাতেই, ভবিষ্যদ্বাণী প্রশান্ত কিশোরের

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

সর্বভারতীয় রাজনীতির ক্ষেত্রে একটি শোরগোল ফেলে দেওয়া মন্তব্য করলেন ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোর। গোয়ায় তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে কাজ করার সময় তিনি বলেন, “আগামী কয়েক দশক ধরে ভারতীয় রাজনীতিতে বিজেপিই থাকবে প্রধান শক্তি।“ তাঁর বিশ্বাস, বিরোধী দলগুলিকে এখনও অনেক বছর ধরেই বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে।

গোয়া জাদুঘরে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে শুধু বিজেপি সম্পর্কে ভবিষ্যত বাণীই নয়, প্রশান্ত কিশোর কটাক্ষ করেন রাহুল গান্ধীকেও। তাঁর মতে, “রাহুল গান্ধী এই বিভ্রমের মধ্যে আছেন যে মোদীকে হারিয়ে দেওয়া যেন সময়ে অপেক্ষা! কিন্তু তা নয়। সে জন্য আপনাকে মোদীর শক্তিকে পরীক্ষা করতে হবে, বুঝতে হবে এবং সর্বোপরি উপলব্ধি করতে হবে। না হলে কখনই তাঁকে পরাজিত করতে পারবেন না। এটাই রাহুল গান্ধীর সমস্যা।“

পাশাপাশি, প্রশান্ত কিশোর এও মনে করেন, নরেন্দ্র মোদী না থাকলেও বিজেপি ভারতীয় রাজনীতিতে আগামী কয়েক দশক ধরে ক্ষমতায় থাকবে। তিনি মনে করান কংগ্রেসের ৪০ বছরের শাসনকে। তিনি বলেন, “কংগ্রেসের প্রথম ৪০ বছরের মতো বিজেপি কোথাও যাচ্ছে না। বিজেপি ভারতীয় রাজনীতির কেন্দ্রে থাকবে, সে তাঁরা জিতুক বা হারুক। যে দল দেশের ৩০ শতাংশ মানুষের ভোট পায় সেই দল কখনই তাড়াতাড়ি হারিয়ে যেতে পারে না। মোদীকে হয়তো মানুষ ছুঁড়ে ফেলে দিতে পারে, কিন্তু বিজেপি থেকে যাবে।“

যদিও তিনি এ কথাও বলেছেন দেশের মানুষের মধ্যে মোদীর বিরুদ্ধে তেমন কোনো অসন্তোষ নেই। প্রশান্ত কিশোরের বক্তব্য, “আপনি যদি ভোটারদের দিকে তাকান, লড়াই মূলত এক-তৃতীয়াংশ বনাম দুই-তৃতীয়াংশে। সেখানে মাত্র এক তৃতীয়াংশ মানুষ বিজেপিকে ভোট দিচ্ছে বা বিজেপিকে সমর্থন করতে চাইছে। কিন্তু, সমস্যা হল দুই-তৃতীয়াংশ ভোটার দশ, বারো বা পনেরোটি রাজনৈতিক দলের মধ্যে এমনভাবে বিভক্ত যে তা কোনোভাবে কার্যকরী হয়ে উঠছে না। আর এটাই কংগ্রেসের পতনের কারণ।“

এই মুহূর্তে গোয়ায় রয়েছেন প্রশান্ত কিশোর। কাজ করছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হয়ে। গোয়ায় আবার বিজেপিকে হারিয়ে তৃণমূলকে প্রতিষ্ঠিত করতেই তিনি মগ্ন। পাশাপাশি, আছেন ত্রিপুরার দায়িত্বেও। তিনি কাজ করছেন বিজেপির বিরুদ্ধে আবার মুখে বলছেন বিজেপিই দেশের মধ্যে ক্ষমতায় থাকবে। তাহলে এটাও কী প্রশান্ত কিশোরের নতুন কোনো চাল? প্রশ্ন উঠছে রাজনৈতিক মহলে। আসলে কংগ্রেসকে কী আরও চাপে ফেলে তৃণমূলকেই প্রধান বিরোধী দল হিসেবে তুলে ধরতে চাইছেন তিনি? সেক্ষেত্রে তিনিও বুঝতে পারছেন এককভাবে তৃণমূলের পক্ষেও কেন্দ্রে বিজেপিকে হারানো ২০২৪ সালে দাঁড়িয়ে কার্যত অসম্ভব। তাহলে কি আনখশির পেশাদার প্রশান্ত কিশোরের ভবিষ্যদ্বাণীই খেটে যাবে যে, নরেন্দ্র মোদীর পরিচালনায় বিজেপি নাটকের কোনো কার্টেন কল নেই!

News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন প্রথম কলকাতা অ্যাপ