Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

নিরবিচ্ছিন্ন ঘুম পেতে শোয়ার আগে করুন এই ৩ ব্যায়াম, হাতেনাতে মিলবে ফল

1 min read

। । প্রথম কলকাতা । ।

রাতে ঠিক মতো ঘুম হচ্ছেনা? সঠিক সময়ে বিছানায় ঘুমাতে গেলেও এপাশ ওপাশ করতে করতেই কেটে যায় রাতের অর্ধেক সময়। আবার অনেকের কাজের চাপ কিংবা অভ্যাস জনিত কারণে ঘুম ঠিকঠাক হয়না। যার জেরেই দিনভর চলে ক্লান্তি ভাব, চোখ ঢুলু ঢুলু, ঝিমুনি। আর এসব সমস্যা দূর করতে অনেকেই শরণাপন্ন হন ঘুমের ওষুধের। যার দীর্ঘদিনের অভ্যাস ডেকে আনতে পারে মারাত্মক ক্ষতি।

তাহলে উপায়? চিকিৎসকদের মতে ঘুম নিজে থেকে না এলে তাকে অনানোর জন্য বেছে নিন কয়েকটি উপায়।

১. ৪-৭-৮ পদ্ধতি-

মিলিটারি পদ্ধতির মতোই দ্রুত ঘুমানোর জন্য এটি একটি সহজ পদ্ধতি। যাদের শ্বাসকষ্টের সমস্যা নেই তাদের জন্য এই ব্রিদিং এক্সারসাইজ খুবই ভালো। এটি ফুসফুসের সমস্যাকেও দূরে রাখবে। করবেন কিভাবে? চিকিৎসকদের মতে বিছানায় শোয়ার পর টান টান ভাবে শুয়ে ধীরে ধীরে ভিতরের সমস্ত বাতাস বের করে দিন। এবার মুখ দিয়ে ৪ সেকেন্ড শ্বাস নিন। ৭ সেকেন্ড পর্যন্ত শ্বাস ধরে রাখুন। এবার ধীরে ধীরে মুখ দিয়ে ৮ সেকেন্ড সময় দিয়ে শ্বাস ছাড়ুন। এই ব্যায়াম শরীর ও মনকে শান্ত রাখে, শরীর অনেকটা রিল্যাক্সড হয়। যার দরুন তাড়াতাড়ি ঘুম এসে যায়।

২. মিলিটারি পদ্ধতি-

ঘুম আসার অনেকরকম পদ্ধতির কথা শুনলেও এই পদ্ধতি সকলের কাছেই নতুন। এটি আবিষ্কারও করেছেন মার্কিন নেভির প্রি-ফ্লাইট স্কুলের বিশেষজ্ঞরা। কারণ তাঁদের মতে ঘুম একটু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় এবং উড়োজাহাজ বা জেটবিমান চালানোর আগে ঘুম অত্যন্ত প্রয়োজন। যার জন্য আলাদা করে ট্রেনিংও হয়। তাই সেই ট্রেনিং অনুযায়ী শোয়ার সময় মনোযোগ দিতে হবে মুখের মাংসপেশীর ওপর। মুখটা টানটান আছে কিনা, দেখতে হবে শরীর টানটান রাখতে হবে এছাড়াও মুখ, চোয়াল, গলার পেশী ধীরে ধীরে শিথিল করে নিতে হবে। অর্থাৎ পুরো শরীরটা ছেড়ে দিতে হবে বিছানায় যেন মনে হবে আপনার শরীরের ওপর আপনার কোনো নিয়ন্ত্রণই নেই। এমন ভাবার ২-৩ মিনিটের মধ্যেই আপনি ঘুমিয়ে পড়বেন। নিয়মিত করলে সময় আরো কম লাগবে।

৩. পিএমআর মেথড-

এটিও এক ধরণের ব্যায়াম। যার পুরো নাম প্রোগ্রেসিভ মাসল রিল্যাক্সেশন। এই পদ্ধতিতে শরীরের কোনো একটি পেশীকে টান টান করে কিছুক্ষন ধরে রেখে ছাড়তে হবে। যেমন ধরুন চোখের ক্ষেত্রে বিছানায় শোয়ার পর চোখ বড়ো বড়ো করে কোনো দিকে তাকিয়ে থাকার পর হঠাৎ চোখ বুজে নিন। তাতে চোখের ভুরু ও পেশীতে টান পরে তা থেকে চোখে ক্লান্তি ভাব আসে। এছাড়াও শোয়ার পর মুখে চওড়া করে হাসুন। হঠাৎ মুখ বন্ধ করে নিন এভাবে ৫-৬ বার করলেই দেখবেন দ্রুত ঘুম এসে যাবে। এগুলির নিয়মিত অভ্যাসে ঘুম না আসার রোগও কাটবে অনায়াসে।

News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন প্রথম কলকাতা অ্যাপ