Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

আপনার WhatsApp এ নজর অনেকের, এন্ড-টু-এন্ড এনক্রিপশন মানেই নিরাপদ নয়

1 min read

। । প্রথম কলকাতা । ।

মেসেজিং প্ল্যাটফর্ম WhatsApp এর তরফে দাবি করা হয় ব্যবহারকারীর চ্যাটিং এন্ড-টু-এন্ড এনক্রিপশন সিস্টেমে সম্পূর্ণ সুরক্ষিত। এর অর্থ আপনি যাকে মেসেজ, ছবি বা ভিডিও পাঠাচ্ছেন তা কেবল দুজনের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকবে। এই তথ্যের টের কারো পক্ষে পাওয়া সম্ভব নয়।

তবে এই এন্ড-টু-এন্ড এনক্রিপশনেও রয়েছে গলদ। যা WhatsApp এর শর্তবিধিতে তে উল্লেখ করা থাকলেও এড়িয়ে যান অনেকে। সাম্প্রতিক WhatsApp চ্যাট লিক হওয়ার ঘটনা প্রায়ই সামনে আসে। একই সাথে ব্যবহারকারীর আদান-প্রদান করা তথ্যের অ্যাক্সেস পেয়ে যায় কোনো তৃতীয় পক্ষ।

WhatsApp এন্ড-টু-এন্ড এনক্রিপ্টেড থাকা সত্ত্বেও সম্পূর্ণ নিরাপদ নয় কেন?

WhatsApp এর প্রাইভেসি পলিসিতে একটি সেকশন আছে যেটি হল থার্ড পার্টি ইনফরমেশন। বর্তমানে আরিয়ান খান, রিয়া চক্রবর্তীর যে WhatsApp এ চ্যাট লিকের খবর সামনে আসছে তা সাধারণ দুটি কারণে হতে পারে,

১. তারা ফিজিক্যালি সেই ফোন প্রশাসনিক আধিকারিকদের হাতে হ্যান্ডওভার করে দিয়েছে।

২. আর এক গুগল ড্রাইভ বা আই-ক্লাউডের মাধ্যমে WhatsApp চ্যাটের অ্যাক্সেস পাওয়া, যা খুবই সাধারণ কারণ হিসাবে ধরা হয়। কারণ বেশিরভাগ ক্ষেত্রে WhatsApp চ্যাট ব্যাকআপ হিসাবে গুগল ড্রাইভে সেভ হয়।

এছাড়া আরো কয়েকটি কৌশলে WhatsApp চ্যাটের অ্যাক্সেস পাওয়া সম্ভব।

১. হ্যাকিং এর মাধ্যমে অর্থাৎ কেউ যদি আপনার ফোনে স্পাই-ওয়্যার ইন্সটল করে দিয়ে থাকে তাহলে সেক্ষেত্রে WhatsApp অ্যাক্সেস করা সম্ভব।

২. আর দ্বিতীয় WhatsApp এর নিজস্ব প্রাইভেসি পলিসি।

কিছুদিন আগে প্রো-পাবলিকা সংস্থার তরফে এক রিপোর্টে বলা হয়েছিল, হাজার হাজার কর্মী ফেসবুক হায়ার করে রেখেছে শুধুমাত্র ব্যবহারকারীদের মেসেজ রিভিউ করার জন্য। এর মাধ্যমে প্রচুর চ্যাট এবং তথ্যের অ্যাক্সেস পেতে পারে তারা।

স্বাভাবিকভাবেই এমন চাঞ্চল্যকর দাবির পর নড়ে চড়ে বসে WhatsApp। তারা এই দাবি ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিলেও প্রো-পাবলিকার মতে যে মেটাডাটা WhatsApp সংগ্রহ করে তা এনক্রিপশনের জন্য নয়। এটিতে ব্যবহারকারীদের সম্পর্কে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য থাকতে পারে, যেমন অবস্থান সম্পর্কিত ডেটা, ফোন নম্বর ইত্যাদি। এটি আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সাথে অনুরোধের ভিত্তিতে এই জাতীয় মেটাডেটা শেয়ার করা হয় বলে রিপোর্টে জানানো হয়েছে।

News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন প্রথম কলকাতা অ্যাপ