Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

এলন মাস্কের ২ শতাংশ সম্পদেই মেটাতে পারে বিশ্বের খাদ্যসংকট

1 min read

।প্রথম কলকাতা।।

বিশ্বের গুটিকয়েক ধনকুবের যদি তাঁদের সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন, তবেই মেটানো সম্ভব বিশ্বের চলমান খাদ্যসংকট। এসব ধনী ব্যক্তিরা যদি তাঁদের সম্পদের সামান্য অংশ দান করেন, তাহলে বিশ্বের বহু মানুষের মুখে দু’মুঠো খাবার জুটবে। চাইলে অতিধনীদের কোনও একজনের একবারের দানেই বিশ্বজুড়ে অনাহারে মৃত্যুর ঝুঁকিতে থাকা এসব মানুষ প্রাণে বাঁচবে। সিএনএনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এমনটাই দাবি করেছেন জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির (ডব্লিউএফপি) পরিচালক ডেভিড বিসলি। সম্প্রতি সিএনএন-র কানেক্ট দ্য ওয়ার্ল্ড অনুষ্ঠানে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ডেভিড বিসলি বলেন, ‘ধনকুবেরদের এখনই, একবারের জন্য হলেও এগিয়ে আসতে হবে।’ তিনি এ সময় মূলত বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি টেসলার এলন মাস্ক এবং দ্বিতীয় শীর্ষ ধনকুবের আমাজনের জেফ বেজোসের প্রসঙ্গ উল্লেখ করেন।

ইউনাইটেড নেশনসের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির (ডব্লিউএফপি) পরিচালক ডেভিড বিসলি বলেন, ‘বিশ্বজুড়ে ৪ কোটি ২০ লক্ষ মানুষ চরম খাদ্যসংকটে ভুগছেন। তাঁদের সাহায্যে ৬০০ কোটি মার্কিন ডলার প্রয়োজন। আমরা যদি সাহায্য নিয়ে তাঁদের কাছে পৌঁছাতে না পারি, তাহলে যেকোনও সময় তাঁরা মারা যেতে পারেন।’ তাদের সাহায্যে এখনই ধনকুবেরদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান বিসলি।সম্প্রতি এক লক্ষ কোটি মাইলফলক ছাড়িয়েছে এলন মাস্কের বৈদ্যুতিক গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান টেসলা। ব্লুমবার্গের হিসাব অনুযায়ী, টেসলার প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী এলন মাস্কের সম্পদ এখন ২৮৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। অর্থাৎ তিনি তাঁর সম্পদের মাত্র ২ শতাংশ দান করলেই মিটবে চরম এই খাদ্যসংকট।

কোভিড-১৯ মহামারি শুরুর পর আমেরিকার শতকোটি ডলারের মালিকদের সম্পদ বেড়ে দ্বিগুণ হয়েছে। ইনস্টিটিউট ফর পলিসি স্টাডিজ অ্যান্ড আমেরিকানস ফর ট্যাক্স ফেয়ারনেস নামের একটি গোষ্ঠীর হিসাব অন্তত সেরকমই বলছে। চলতি অক্টোবরে আমেরিকার অতিধনীদের মোট সম্পদের পরিমাণ পাঁচ লক্ষ কোটিরও বেশি। ডব্লিউএফপির পরিচালক ডেভিড বিসলি বলেন, ‘একসঙ্গে এখন অনেক সংকটের মুখে বিশ্ব। এর মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ হিসেবে দেখা দিয়েছে জলবায়ু পরিবর্তন ও করোনা মহামারি। এসব সংকটের কারণে বিশ্বজুড়ে দরিদ্র মানুষের সংখ্যা বেড়েছে। এর মানে হল, একসঙ্গে অনেক দেশ দুর্ভিক্ষের দরজায় কড়া নাড়ছে।’ গত সোমবার প্রকাশিত ডব্লিউএফপির এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, আফগানিস্তানে ২ কোটি ২৮ লক্ষ মানুষ চরম অনাহারে দিন কাটাচ্ছেন, যা দেশটির মোট জনসংখ্যার অর্ধেকের বেশি। দুই মাস আগেও দেশটিতে অনাহার পরিস্থিতিতে থাকা মানুষের সংখ্যা ছিল ১ কোটি ৪০ লক্ষের কাছাকাছি। তবে এই সংখ্যা ক্রমবর্ধমান।

News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন প্রথম কলকাতা অ্যাপ