Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট এওয়াই ৪.২: সন্ধান মিলেছে বেশ কিছু রাজ্যে

1 min read

।।প্রথম কলকাতা।।

আশঙ্কা বাড়িয়ে ফের হাজির করোনার আরও একটি নতুন প্রজাতি, তাও আবার ভারতেরই দক্ষিণের রাজ্যগুলির পাশাপাশি মধ্যপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র ও জম্মু এবং কাশ্মীরে। তবে এনিয়ে জনগণকে এখনই আতঙ্কিত হতে নিষেধ করেছেন কর্ণাটকের স্বাস্থ্য কমিশনার ডি রণদীপ।

কী এই এওয়াই ৪.২?
এওয়াই ৪.২হল সার্স-কোভ-২-এর ডেল্টা রূপের একটি উপ-বংশ। যা দ্বারা ভারতে সবথেকে বেশি সংক্রমণ ঘটেছে। এটিকে হু এখনও ‍‘ভ্যারিয়েন্ট অব কনসার্ন’-এর তালিকাভুক্ত করেনি। এওয়াই ৪.২ নামক সার্স-কোভ-টু-র অন্তত ১৭টি নমুনা ভারত থেকে শনাক্ত করা হয়েছে। যার প্রথম নমুনাটি এই বছরের মে মাসে সংগ্রহ করা হয়েছিল। এওয়াই ৪.২-এর সাতটি নমুনা অন্ধ্রপ্রদেশে, চারটি কেরালায়, দু’টি করে কর্ণাটক ও তেলেঙ্গানায় এবং একটি করে জম্মু ও কাশ্মীর ও মহারাষ্ট্রে পাওয়া গিয়েছে। জিআইএসএআইডি-তে আপলোড করা তথ্য অনুসারে, ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাসের একটি ওপেন-অ্যাক্সেস জিনোমিক ডাটাবেস এবং কোভিড-১৯ মহামারীর জন্য দায়ী করোনা ভাইরাস।

ইন্দোরেও এই নতুন ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্ত সাতজনকে শনাক্ত করা হয়েছে। এটি করোনার অতিসংক্রামক ধরন ডেলটা গোত্রের। ভারতের জাতীয় রোগ নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্র (এনসিডিসি) জিনোম সিকোয়েন্সিং করে সাতজনের নমুনায় এ ধরন শনাক্ত করেছে বলে টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে বলা হয়েছে। মধ্যপ্রদেশ রাজ্যের বড় শহর ইন্দোরের প্রধান চিকিৎসা ও স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বি এস সাতিয়া জানান, এসব নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল গত সেপ্টেম্বরে। আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে দু’জন সেনা কর্মকর্তা। এ ছাড়া মহারাষ্ট্রের ১ শতাংশ নমুনাতেও এওয়াই.৪-এর সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে।

এনসিডিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, সেপ্টেম্বরে ইন্দোরে ঊর্ধ্বমুখী করোনা সংক্রমণের নেপথ্যে ছিল ডেলটার নতুন এই ভ্যারিয়েন্ট। আগস্টের তুলনায় তখন ৬৪ শতাংশ বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছিল। আর্মি কলেজে প্রশিক্ষণরত ৪৪ জন সেনা কর্মকর্তা করোনা পজিটিভ হন। এর পরই কর্তৃপক্ষ তাঁদের নমুনা জিনোম সিকোয়েন্সিংয়ের জন্য পাঠায়। বি এস সাতিয়া বলেন, এনসিডিসি ১ অক্টোবরের মধ্যে সাতজনের রিপোর্ট প্রকাশ করে এবং অন্যদের রিপোর্ট প্রকাশ করা হয় ১৬ অক্টোবর।

নতুন এ ধরনের ব্যাখ্যায় এমজিএম কলেজের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অনিতা মুথা টাইমস অব ইন্ডিয়াকে বলেন, এওয়াই ৪.২ হল করোনার ডেলটা গোত্রের একটি ধরন। তবে এটা ডেলটা কিংবা ডেলটা প্লাস-কোনওটিই নয়। কর্ণাটকের স্বাস্থ্য কমিশনার ডি রণদীপ বলেছেন, ইতিমধ্যেই নতুন প্রজাতি সম্পর্কে বিশদে আলোচনা হয়েছে প্রযুক্তি উপদেষ্টা কমিটিতে। এওয়াই ৪.২ ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্তের সংখ্যা খুবই কম। কোভিডের নতুন এই প্রজাতির আগমনে এখনও দেশের কোথাও কনটেনমেন্ট জোন তৈরি করতে হয়নি। পাশাপাশি নতুন প্রজাতি যে ভারতে তৃতীয় ঢেউ বয়ে এনেছে, এমন কোনও তথ্য এখনও পর্যন্ত নেই।

উপদেষ্টা কমিটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, যদি এওয়াই ৪.২ প্রজাতির আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ে, তাহলে সংক্রমণ প্রতিহত করতে জিনোমিক সিকোয়েন্সিং বাড়ানো হবে। সমস্তরকম ভাবে সুরক্ষা বলয় প্রস্তুত রাখা হয়েছে। বিদেশ থেকে আসা যাত্রীদের ৭২ ঘণ্টা আগে কোভিড-১৯ টেস্ট বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। পরীক্ষার রিপোর্ট ‘এয়ার সুবিধা’ নামে একটি পোর্টালে আপলোড করতে হবে। যদিও বিদেশ থেকে আসা যাত্রীদের কোয়ারেন্টাইনে রাখার মতো কোনও বিধিনিষেধ এখনও পর্যন্ত আরোপ করা হয়নি। তবে পরিস্থিতি নাগালের বাইরে যাওয়ার উপক্রম হলে প্রয়োগ করা হবে করোনার লকডাউন সম্পর্কিত গাইডলাইন, কনটেনমেন্ট জোন এবং টেস্ট।

এখনও পর্যন্ত বেঙ্গালুরুতে তিনজনের শরীরে নতুন প্রজাতির ভাইরাসের উপস্থিতি মিলেছে। অবশ্য তিনজনই সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়িতে ফিরে গিয়েছেন। তাঁরা যাঁদের সংস্পর্শে এসেছিলেন সেই প্রাইমারি ও সেকেন্ডারি কনট্যাক্টদেরও করোনা পরীক্ষা। এখনও পর্যন্ত করোনার নতুন প্রজাতির থাবায় সবচেয়ে বেশি সংক্রামিত হয়েছে ইংল্যান্ডে। এরপরেই রাশিয়া ও ইজরায়েল। দ্বিতীয় ঢেউয়ের সময় ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট খুব শক্তিশালী ছিল। তবে এখনই এওয়াই ৪.২ প্রজাতি নিয়ে কোনও ভয় নেই বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। নতুন এওয়াই ৪.২ নিয়ে ইতিমধ্যে গবেষণা শুরু হয়েছে। তবে আরও গবেষণা প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। যদিও এখনই বলা যাচ্ছে না যে, এই নতুন এওয়াই ৪.২ প্রজাতি ডেল্টার থেকে দ্রুত গতিতে সংক্রমণ ছড়ায় কি না।

News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন প্রথম কলকাতা অ্যাপ