Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

আজ বহু প্রতীক্ষিত পেগাসাস-মামলার রায় দান শীর্ষ আদালতের

1 min read

।।প্রথম কলকাতা।।

আজ গোটা দেশের নজর দেশের সর্বোচ্চ আদালতের দিকে। কারণ ইজরায়েলি সফটওয়্যার পেগাসাস মামলার রায় দিতে চলেছে সুপ্রিম কোর্ট। এই সফটওয়্যার ব্যবহার করে দেশের আমজনতার মোবাইলে নজরদারি চালানো হয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখার জন্য দেশের সর্বোচ্চ আদালত নিরপেক্ষ তদন্ত কমিটি গঠন করবে কিনা তা জানা যাবে বুধবারই। উল্লেখ্য, গত ১৩ সেপ্টেম্বর এই মামলার শুনানি শেষ হয়। সেই থেকে স্থগিত ছিল রায়দান।পেগাসাস ব্যবহার করে ফোন হ্যাকিংয়ের বিষয়টি সামনে আসে বাংলা বিধানসভা ভোটের পর, এবং সংসদের বাদল অধিবেশনের ঠিক আগে। এই সফটওয়্যারটি ইজরায়েলি সংস্থা এনএসও- তৈরি স্পাইওয়্যার।

সে সময় বিরোধী দলগুলির তরফে দাবি করা হয়, হ্যাকারদের নিশানায় ছিলেন রাহুল গান্ধী থেকে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতো বিরোধী নেতা সহ প্রশান্ত কিশোরের মতো ভোট কুশলীও। পাশিাপাশি তালিকায় ছিলেন ৪০ জনের বেশি সাংবাদিক, সুপ্রিম কোর্টের বর্তমান বিচারপতি, দেশের একাধিক নিরাপত্তা এজেন্সির বর্তমান এবং প্রাক্তন প্রধানসহ কয়েকজন শিল্পপতি ও সমাজকর্মী।গত ১৩ সেপ্টেম্বর এই মামলার রায় রিজার্ভ করার সময় সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি এমভি রামানা জানিয়েছিলেন, শীর্ষ আদালতই উপযুক্ত তদন্তের জন্য বিশেষজ্ঞ কমিটি গড়ে দেবেন, যাঁরা খতিয়ে দেখবেন যে, পেগাসাস সফটওয়্যার ব্যবহার করে সরকার আদপেই কোনও নজরদারি চালিয়েছে কিনা। সেই সঙ্গে শীর্ষ আদালত এও বলেছিল যে, অনেক বিশেষজ্ঞই রাজনৈতিক কারণে কমিটির সদস্য হতে চাইছেন না।

তাই এই কমিটি গড়া সময়সাপেক্ষ। এদিকে, পেগ্যাসাস প্রস্তুতকারী ইজরায়েলি সংস্থাটির বক্তব্য ছিল, তারা কেবলমাত্র কোনও দেশের সরকার বা সরকারি এজেন্সিকে এই স্পাইওয়্যার বিক্রি করে। এরপরই বিরোধীরা প্রশ্ন তোলে, তাহলে কি নরেন্দ্র মোদী সরকারই স্পাইওয়্যার ব্যবহার করে তাদের ওপর নজরদারি চালিয়েছে? এরপর যদিও কেন্দ্রীয় সরকার সুপ্রিম কোর্টে হলফনামা দিয়ে দাবি করে, উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে বিষয়টির রাজনীতিকরণ করা হয়েছে। বিরোধী শিবির কিংবা কোনও স্বাধীন প্রতিষ্ঠানের উপর নজরদারির উদ্দেশ্য তাদের নেই। তবে ইজরায়েলি সংস্থা থেকে কেন্দ্র পেগাসাস কিনেছিল কি না, তার উল্লেখ হলফনামায় ছিল না।

News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন প্রথম কলকাতা অ্যাপ