Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

‘বাংলাদেশে ট্রেলার দেখেছেন সিনেমাটা বাংলায় দেখবেন’, সতর্কবাণী শুভেন্দুর

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় অস্তমিত সূর্য, উদীয়মান সূর্য জয় সাহাকে ধরুন! আজ খড়দহ বিধানসভার উপনির্বাচনী প্রচারে এসে সেখানের মানুষকে এমন বার্তাই দিলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা তথা নন্দীগ্রামের বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারী। তিনি খড়দহবাসীকে আরও কথা দেন, তাঁর নেতৃত্বে জয় সাহা আগামী দিনে একজন সফল বিধায়ক হয়ে উঠে খড়দহের সর্বশ্রেণীর মানুষের ভালোবাসা কুড়িয়ে নিতে পারবেন।

চলতি মাসের ৩০ তারিখ রাজ্যের দিনহাটা, শান্তিপুর, গোসাবা এবং খড়দহ এই চার কেন্দ্রে উপনির্বাচন হতে চলেছে। সমস্ত রাজনৈতিক দল এখন শেষ সময়ের প্রস্তুতিতে মগ্ন। আজ খড়দহের বিজেপি প্রার্থী জয় সাহার সমর্থনে রুইয়া ৫৬ নম্বর বাস স্ট্যান্ডে এক পথসভার আয়োজন করা হয়। সেখানেই উপস্থিত ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী, সাংসদ অর্জুন সিং, বিজেপি নেতা রুদ্রনীল ঘোষ সহ একাধিক স্থানীয় নেতৃত্ব।

‘কাজল সিনহা আমার কাছে দুঃখ করতেন’

একুশের বিধানসভা নির্বাচনে খড়দহে তৃণমূল প্রার্থী কাজল সিনহা জয়লাভ করেন। কিন্তু কোভিডে আক্রান্ত হয়ে তাঁর মৃত্যু হয় যে কারণে এখানে ফের উপনির্বাচন হতে চলেছে। আজ মৃত বিধায়ক কাজল সিনহা সম্পর্কে চাঞ্চল্যকর কথা প্রকাশ করেন শুভেন্দু। তিনি বলেন, “কাজল সিনহার বিরুদ্ধে খড়দহে অমিত মিত্র একটা গোষ্ঠী তৈরি করেছিলেন। কাজল সিনহা আমার কাছে যেতেন, দুঃখ করতেন। আর বলতেন অমিত মিত্র অরাজনৈতিক নয়, আমাকে গোষ্ঠী করে শেষ করে দিয়েছে। লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি ১৮ টি সিট পাওয়ায় কাজল সিনহাকে আবার দায়িত্ব দেওয়া হয়।“ এমনকি লোকসভা নির্বাচনে অর্ধেক বুথে তৃণমূল এজন্ট দিতে পারেনি বলেও দাবি করেছেন বিরোধী দলনেতা।

‘একটাই পোস্ট, বাকী সব ল্যাম্পপোস্ট’

আজ ফের একবার নিজের তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে আসার কারণ তুলে ধরেন শুভেন্দু অধিকারী। তিনি জানান, তৃণমূলে তাঁর কাছে মন্ত্রীত্ব ছিল, বড়ো বড়ো পদ ছিল কিন্তু তাও তিনি ছেড়ে চলে আসেন। তার কারণ, শুভেন্দু’র মতে, তৃণমূল কংগ্রেস একটা প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানি যার মালিকের নাম মমতা ব্যানার্জি আর ম্যানেজিং ডিরেক্টরের নাম ভাইপো অভিষেক ব্যানার্জি অর্থাৎ একটাই পোস্ট, বাকী সব ল্যাম্পপোস্ট! তবে, সবচেয়ে বড়ো কারণ হিসেবে তিনি উল্লেখ করেছেন, পশ্চিমবঙ্গে সনাতনীদের বিপন্ন অবস্থাকে।

‘বাংলাদেশে ট্রেলার, সিনেমাটা বাংলায়’

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটক্ষ করে এদিন বিরোধী দলনেতার বক্তব্য, “শিলিগুড়িতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বললেন বাংলাদেশের সঙ্গে আমার ভাল সম্পর্ক, আমি যেচে ঝগড়া করব কেন। এঁরা চায় হিন্দু ধর্মের অবলুপ্তি। গোটা সীমান্ত এলাকা খুলে দিয়েছে। সেখান দিয়ে রোহিঙ্গারা এদেশে আসছে। তাঁদের আধার কার্ড, ভোটার কার্ড বানিয়ে দিচ্ছে কিছু দুধেল গাইয়েরা। বাংলাদেশে ট্রেলার দেখেছেন সিনেমাটা বাংলায় দেখবেন।“ আর এভাবেই ভোট ব্যাঙ্ক তৈরি করছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেও অভিযোগ তুলেছেন শুভেন্দু অধিকারী।

News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন প্রথম কলকাতা অ্যাপ