Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

‘প্রশাসনকে কাজে লাগিয়ে গায়ের জোরে উপনির্বাচন জেতার চেষ্টা করছে তৃণমূল’, বিক্ষুব্ধ দিলীপ

1 min read

।। প্রথম কলকাতা।।

সোমবার সকালে খড়দহ বিধানসভা কেন্দ্রের প্রার্থী জয় সাহার সমর্থনে চা চক্রে যোগ দেন রাজ্য বিজেপি’র প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি তথা সাংসদ দিলীপ ঘোষ। দিলীপ ঘোষ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন কলকাতা উত্তর শহরতলীর সাংগঠনিক জেলার প্রাক্তন সভাপতি মানস ভট্টাচার্য সহ অন্যান্য বিজেপি কর্মী ও স্থানীয় নেতৃত্ববর্গ। সেখানে বক্তব্য রাখেন দিলীপ ঘোষ।প্রসঙ্গত, চলতি মাসের ৩০ তারিখ রাজ্যের চার কেন্দ্রে উপনির্বাচন। চলছে শেষ সপ্তাহের প্রচার। যে কারণে প্রতিটি কেন্দ্রই কমবেশি রাজনৈতিক উত্তাপে সরগরম। আজ দিলীপ ঘোষ সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করেন।

রবিবার শিলিগুড়িতে মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন তিনি জীবন্ত লাশ, তাঁর মতো এত মার খেয়েও বেঁচে থাকা রাজনীতিবিদ বর্তমানে দেশের মধ্যেও দুর্লভ। আজ বিজেপি সাংসদ পাল্টা বলেন, “শুধু আপনি একা নয়, পুরো পশ্চিমবঙ্গ আজ জিন্দা লাশ! মানুষের হাসি নেই, আনন্দ নেই, আপনার জিত মানুষের দুঃখের কারণ। হারার সময় হলেই কেঁদে কেঁদে বলেন আমি মহিলা। মহিলা হলে একটু মমতা থাকতে হয়। নামে মমতা নয়, ব্যবহার কথাবার্তায় একটু মমতা থাকা উচিত। আজ অব্দি সেটা দেখিনি।”

তৃণমূলের তরফে বারংবার ঘোষণা করা হচ্ছে আসন্ন চার কেন্দ্রের উপনির্বাচনে তাঁরাই জিতবে। এ প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ বলেন, “স্বাভাবিক। পুলিশ যদি নেতা, কর্মী ভোটারদের আটকায় তাহলে ওদের জয় নিশ্চিত হবেই। প্রশাসনকে কাজে লাগিয়ে গুন্ডাদের কাজে লাগিয়ে গায়ের জোরে জেতার চেষ্টা করছে তৃণমূল।” বিএসএফের ক্ষমতাবৃদ্ধি নিয়ে কেন্দ্রের বিরোধীতা করছে রাজ্য সরকার। প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি বলেন, “মুখ্যমন্ত্রী কিছুই মানেন না। সংবিধান, কোর্ট কিছুই না। দিদি জমি দিচ্ছেন না ভাইদের ব্যবসা নষ্ট হয়ে যাবে বলে। যেদিন ওঁনার ভাইদের বিএসএফ তুলে নিয়ে গিয়ে ঢুকিয়ে দিয়ে জেলের ভাত খাওয়াবে সেদিন বুঝতে পারবে।”

অন্যদিকে, মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ ১০০ কোটির টিকাকরণের তথ্য সম্পূর্ণ ভুল, ঢেরা পেটাচ্ছে কেন্দ্র। টিকাকরণ প্রসঙ্গে দিলীপের বক্তব্য, “মুখ্যমন্ত্রী নিজে কেন বলেন না রাজ্যে কত টিকা এল! না জেনে এসব বলছেন আর ভয়ে ওঁনাকে কেউ কিছু বলছেন না। কেন্দ্রের সব তথ্য ওয়েবসাইটে আছে। এখানে টিকা নিয়ে সিন্ডিকেটবাজি চলছে। পার্টি অফিস থেকে নিজের দলের সদস্যদের টিকা দেওয়া হচ্ছে।”

News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন প্রথম কলকাতা অ্যাপ