Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

ডিম ফাটিয়ে এই রঙ বেরোলেই সতর্ক হোন! শরীরে গেলেই ফুড পয়েজেনিং

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

রোজকার ডায়েটে রাখা স্বাস্থ্যকর খাদ্য গুলির মধ্যে অন্যতম একটি হলো ডিম। যা ছোট থেকে বড়ো সকলেরই প্রিয়। তাই তো ব্রেকফাস্টের ডিম টোস্ট থেকে শুরু করে লাঞ্চে ডিমের ঝোল বা কষায় পাত জমায় সমগ্র ডিম প্রেমী। এতে আছে ১৩ টা আলাদা আলাদা ভিটামিন, খনিজ, ওমেগা-থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড, অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট যা শরীরে ইমিউন সিস্টেম মজবুত করে, ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখে, আরো কত কী।

কিন্তু এই ডিমই আবার আপনাকে বিপদেও ফেলতে পারে। হতে পারে নানান ক্ষতি। কীভাবে ? জানাচ্ছেন চিকিৎসকেরা।

চিকিৎসকদের মতে ডিম যেমন উপকারী তেমনই ক্ষতিকরও। কারণ ডিমে রয়েছে একধরণের ব্যাকটেরিয়া যা শরীরে নানান ক্ষতি করে, ফুড পয়েজনও হতে পারে। তাই সবার আগে জানতে হবে সঠিক ডিম চেনা উপায়।

কিন্তু কীভাবে? রইলো সেই টিপস

১. ডিম ব্যাকটেরিয়া মুক্ত কিনা সেই হদিস পেতে সবার আগে জানতে হবে ডিমের সঠিক রঙ। চিকিৎসকদের মতে ভালো পুষ্টিকর ডিমের কুসুমের রঙ সবসময় হলুদ হওয়া উচিত এবং বাকি অংশটা হবে গাঢ় সাদা। ঘোলাটে রঙ হলে তা না খাওয়াই ভালো।

২. ডিমের পোচ বা ওমলেট করার সময় ডিম ভাঙার পর যদি দেখেন তার রঙ খানিক গোলাপী বা লালচে ধরণের তবে তা না খাওয়াই উচিত। এতে ব্যাকটেরিয়া থাকার সম্ভবনা থাকে। যা খেলে ফুড পয়জনও হতে পারে।

৩. এছাড়াও চিকিৎসকদের মতে ডিমের কুসুমের রঙ গাঢ় হলুদও হওয়া উচিত নয়। সেক্ষেত্রে ব্যাকটেরিয়া থাকার সম্ভবনা থেকে যায়।

এছাড়াও অনেকেই ডিম সেদ্ধ খেতে পছন্দ করেন সেক্ষেত্রে ডিম ভাঙা যাবেনা অথচ বাইরে থেকে ডিমের সঠিক রঙ ও বোঝা যায়না। তাহলে বুঝবেন কিভাবে? জানুন সেই উপায়।

১. সেদ্ধ করার আগে বড়ো পাত্রে জল নিয়ে তাতে ডিম দিয়ে দিন। ডিম জলের নিচে চলে গেলে বুঝবেন ডিমটি ভালো। আর ডিম যদি জলে ভেসে থাকে তবে সেই ডিম পঁচা। ভুলেও খাবেন না।

২. কানের কাছে ডিম নিয়ে সেগুলো ভালো করে ঝাঁকান। যদি বেশি আওয়াজ হয় তবে বুঝবেন সেই ডিম পঁচা।

৩. এছাড়াও ভালো ডিম চেনার আরো একটি উপায় হলো লেজার লাইট। অর্থাৎ একটি অন্ধকার ঘরে মোমবাতি কিংবা টর্চের আলো জ্বালিয়ে তাতে ডিম নিয়ে দেখুন ভেতরের তরল অংশ যদি বেশি নাড়াচাড়া করে তবে তা তা পঁচা বা ব্যাকটেরিয়া যুক্ত।

News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন প্রথম কলকাতা অ্যাপ

Categories