Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

এনসিবির ডাকে হাজিরা অনন্যার,তদন্তকারীদের কোন কোন প্রশ্নের মুখোমুখি অভিনেত্রী ?

1 min read

।।প্রথম কলকাতা।।


২ অক্টোবর মুম্বই থেকে গোয়াগামী বিলাসবহুল প্রমোদতরীতে রেভ পার্টি চলাকালীন এনসিবি আটক করে শাহরুখ খান পুত্র আরিয়ান ও তাঁর সঙ্গী আরবাজ মার্চেন্ট ও মুমুন ধামেচাকে। এরপর ৩ অক্টোবর তাঁদের গ্রেফতার করা হয়। স্থান হয় আর্থার রোড জেলে। শাহুরুখ খানের পুত্র ও তাঁর সঙ্গীদের একাধিক জামিনের আবেদন ইতিমধ্যেই নাকচ হয়েছে। গতকাল বলিউড বাদশা আর্থার রোড জেলে গিয়ে তাঁর সন্তানের সঙ্গে দেখা করার পরই এনসিবির বিশেষ দল হানা দেয় শাহরুখ কানের বাড়ি মন্নত-এ। যদিও তারা সেখান থেখে আপত্তিজনক কিছু উদ্ধার করতে পারেনি। পাশাপাশি আরিয়ানের ফোন সূত্রে পাওয়া কিছু চ্যাটের জন্য বৃহস্পতিবার হঠাৎই চাঙ্কি পাণ্ডের কন্যা বলিউড অভিনেত্রী অনন্যা পাণ্ডের বাড়িতে হানা দেওয়ার পাশাপাশি এই উঠতি অভিনেত্রীকে ডেকে পাঠিয়েছিল এনসিবি।

বৃহস্পতিবার বাবা চাঙ্কির সঙ্গে এনসিবি-র দফতরে পৌঁছেছিলেন অনন্যা। তাঁর ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোন বাজেয়াপ্ত করার পাশাপাশি তাঁকে টানা তিন ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করে এনসিবি। এখানেই শেষ নয়, গতকালই এনসিবি জানিয়ে দেয়, শুক্রবার সকাল ১১টায় অনন্যাকে ফের আসতে হবে এনসিবি-র দফতরে।

মাদক মামলায় গ্রেফতার শাহরুখ খানের পুত্র আরিয়ান খানের হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটের তদন্ত করতে গিয়েই প্রকাশ্যে আসে ‘অ্যানি’ নামে একজনের নাম। সেই ‘অ্যানি’ অনন্যা কি না, তা নিয়ে নিশ্চিত হতে পারেননি তদন্তকারীরা। তবে সূত্রের খবর, আরিয়ানের সঙ্গে একটি হোয়াটসঅ্যাপ কথোপকথন প্রসঙ্গে বলিউড অভিনেত্রীকে জেরা করা হচ্ছে। তবে সূত্রের খবর, অনন্যাকে এনসিবি-র এই জেরাপর্ব আরও ২-৩ দিন চলবে অনুমান করে আগে থেকেই নিজের শ্যুটিংয়ের কাজ বেশ কিছু দিন পিছিয়ে দিয়েছেন অনন্যা। এই মুহূর্তে ৩-৪টি ছবি করার কথা চলছিল অনন্যার। সেই সব ছবির শ্যুটিং পিছিয়ে দিতে অনুরোধ করেছেন অভিনেত্রী। এনসিবির মতে, ‍আরিয়ান খান এবং অনন্যা পান্ডের মধ্যে কথোপকথনের এক পর্যায়ে, আরিয়ান অনন্যার সঙ্গে গাঁজা সম্পর্কে কথা বলছিল। আরিয়ান জিজ্ঞাসা করছিলেন, আগাছার ব্যবস্থা করার জন্য কিছু ‍‘জুগাদ’ থাকতে পারে কিনা। যার উত্তরে অনন্যা বলেছেন, ‍‍‘আমি ব্যবস্থা করে নেব।’ দু’জনের মধ্যে সেই চ্যাট দেখিয়ে বৃহস্পতিবার অনন্যাকে প্রশ্ন করা হলে তিনি এনসিবিকে বলেন, ‍‘আমি শুধু মজা করছিলাম।’

আজ যে প্রশ্নগুলি অনন্যাকে করা হচ্ছে, সেগুলি এখানে তুলে ধরা হল-
১. চ্যাট অনুযায়ী এই ওষুধগুলি সংগ্রহ করতে কে আপনাকে সাহায্য করেছে?
২. আপনি কি সরাসরি কোন প্যাডলার থেকে এটা কিনেছেন?
৩. প্রতিটি উপলক্ষে ওষুধের পরিমাণ কত ছিল?
৪. আপনি কতদিন ধরে আরিয়ান খানের সঙ্গে ওষুধ সেবন করছেন?
৫. আপনার সঙ্গে অন্য যারা মাদক সেবন করেছিলেন তাঁরা কারা?
৬. প্যাডলারদের অর্থ প্রদানের পদ্ধতি কী ছিল?
৭. এটা কি ইলেকট্রনিক পেমেন্ট ট্রান্সফার? নাকি ওয়ালেট বা নগদ অর্থের মাধ্যমে হয়েছিল?
৮. আপনি কোথায় সরবরাহকারীর সঙ্গে দেখা করেছিলেন?

News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন প্রথম কলকাতা অ্যাপ