Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

ভিডিও: ‘বাচ্চাদের কেন মারছ?’ কিংবদন্তি পাক স্পিনার কাদিরের কটাক্ষের জবাব দিয়েছিলেন ১৬ বছরের শচীন

।। প্রথম কলকাতা ।।

১৯৮৯, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সবে পা রেখেছেন শচীন তেন্ডুলকর। ১৬ বছর বয়সী ডান হাতি ব্যাটারের অবিশ্বাস্য প্রতিভার বিস্ফোরণ দেখে হতবাক ক্রিকেট জগত। তবে মুম্বাইয়ের ছোটখাট চেহারার ব্যাটারের তান্ডবলীলার ভুক্তভোগী হয়েছিলেন পাকিস্তানের কিংবদন্তি লেগ স্পিনার আব্দুল কাদির।

১৯৮৯ সালের হাইভোল্টেজ ম্যাচটিতে খারাপ আলোর জন্যে ওভার সংখ্যা কমিয়ে ২০ করে দেওয়া হয়। তখনও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পরিচিত হয়ে ওঠেননি ১৬ বছর বয়সী সচীন। পাকিস্তানের কিংবদন্তি লেগ স্পিনার আব্দুল কাদিরের এক ওভারে তিনটি পরপর ছয় সহ মোট চারটি ছয় ও একটি চার মেরেছিলেন এই বিস্ময়প্রতিভা। আর এই এক ওভারের দৌলতেই বিশ্বক্রিকেট দুনিয়ায় প্রতিভার প্রমাণ রাখেন শচীন।

পরবর্তী সময়ে আব্দুল কাদির জানিয়েছিলেন দুরন্ত প্রতিভা ও দক্ষতার জোরেই তাকে চোখে সর্ষেফুল দেখিয়েছিলেন শচীন। সমকালীন সময়ে বিশ্বক্রিকেটের অন্যতম শ্রেষ্ঠ লেগস্পিনার হিসাবে পরিচিত ছিলেন কাদির। অন্যদিকে শচীন খেলছিলেন নিজের প্রথম আন্তর্জাতিক সিরিজ, তাও চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানের বিরুদ্ধে। ক্রিকইনফোকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে শচীন ফাঁস করেন কাদিরের কটাক্ষের জবাব দিতেই এক ওভারে চার ছক্কা হাঁকিয়েছিলেন তিনি। পাকিস্তানের দেওয়া ১৫৭ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করছিলেন শচীন। কাদির তাকে বলেন – ” বাচ্চাদের কেন মারছ? আমাকে মেরে দেখাও! “শচীন মুখে উত্তর না দিয়েও ব্যাট হাতে রুদ্ররুপ ধরেন। কাদিরের ওভারটি শেষ হয় এই ভাবে – ৬, ০, ৪, ৬, ৬, ৬।

প্রদশর্নী ম্যাচটিতে প্র‍থমে ব্যাট করে ১৫৭ রান তোলে পাকিস্তান। রান তাড়া করতে নেমে শচীন ১৮ বলে ৫৩ রানের অবিশ্বাস্য ইনিংসের দৌলতে লক্ষ্যের খুব কাছে পৌঁছালেও চার রানে হারের মুখ দেখে ভার‍ত। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর বিরুদ্ধে ম্যাচ হারলেও শচীনের প্রতিভার সন্ধান পেয়েছিল ক্রিকেটবিশ্ব। অল্পদিনের মধ্যেই যাবতীয় তর্কবিতর্কের ঊর্ধ্বে উঠে নিজেকে সর্বকালের অন্যতম সেরা ব্যাটার হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করেন মুম্বাইয়ের ছোটখাটো চেহারার ক্রিকেটার।

Categories