Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

রাজ্যের ৪ কেন্দ্রে উপনির্বাচনে আরও ১২ কোম্পানির কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন

1 min read

।। প্রথম কলকাতা ।।

জমিতে চেয়ে এবার আসন‍্য ভোট রাজ্যের বিধানসভা কেন্দ্র উপ নির্বাচন আগামী ৩০ অক্টোবর। পুজো মিটতেই জোরকদমে প্রচারে নেমে পড়েছেন প্রার্থীরা। পুজোর পর এবার উপনির্বাচন হবে কোচবিহার দিনহাটা নদীয়ার শান্তিপুর দক্ষিণ ২৪ পরগনা গোসাবা এবং উত্তর ২৪ পরগনার খড়দহে। আগামী ৩০ শে অক্টোবর রয়েছে ভোট ভোট গণনা হবে ২ নভেম্বর। ৪ কেন্দ্রের উপনির্বাচনের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবেন আসি কোম্পানির কেন্দ্রীয় বাহিনী জানা গেছে দিনহাটায় থাকবে সবচেয়ে বেশি বাহিনী। ৪ কেন্দ্রের প্রার্থীদের জন্য কেন্দ্রীয় বাহিনীর নিরাপত্তার দাবি তুলেছিল বিজেপি।রাজ্যে চার বিধানসভা আসনের উপ নির্বাচনের জন্য আরও ১২ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করল নির্বাচন কমিশন।এই চার কেন্দ্রের জন্যআগেই মোতায়েন করা হয়েছিল ৮০ কোম্পানি আধাসেনা।

বৃহস্পতিবার নির্বাচন কমিশন আরও বাহিনী মোতায়েনের কথা ঘোষণা করায় দিনহাটা, শান্তিপুর, গোসাবা ও খড়দহ বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনে মোতায়েন হওয়া মোট বাহিনীর পরিমাণ হল ৯২ কোম্পানি। জানা গেছে মোতায়েন হওয়া বাহিনীর মধ্যে দিনহাটায় থাকবে ২৭ কোম্পানি, শান্তিপুরে ২২ কোম্পানি, খড়দহে ২০ কোম্পানি ও গোসাবায় ২৩ কোম্পানি । বিএসএফের পাশাপাশি সিআরপিএফ, সিআইএস‌এফ, এসএসবি, আইটিবিপির জওয়ানরাও থাকবেন। সদ্য সমাপ্ত দুই কেন্দ্রের পূর্ণাঙ্গ নির্বাচন ও ভবানীপুরের উপনির্বাচনের জন্য মোট ৭২ কোম্পানি বাহিনী মোতায়েন করেছিল কমিশন। যার মধ্যে শুধু ভবানীপুরেই মোতায়েন করা হয়েছিল ৩৫ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী। চার বিধানসভা কেন্দ্র গোসাবা, দিনহাটা, শান্তিপুর, খড়দহে ভোট হবে ৩০ অক্টোবর। ফল প্রকাশ ২ নভেম্বর। ভবানীপুর উপনির্বাচন হয়েছে ১০০ শতাংশ কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করে। প্রত্যেক বুথেই কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা ছিলেন।

মোটের উপর শান্তিপূর্ণই ছিল এই কেন্দ্রের ভোট। সুষ্ঠু ভোট করানোর ক্ষেত্রে ভবানীপুরে ফুল মার্কসই পেয়েছে নির্বাচন কমিশন। সেই রেকর্ড ধরে রাখতে বদ্ধ পরিকর তারাও। এবার তাই ১০০ শতাংশ বাহিনী মোতায়েন করেই চার কেন্দ্রে উপনির্বাচন করাতে চাইছে। ইতিমধ্যেই এই চার কেন্দ্রের ভোট প্রচার ঘিরে বিক্ষিপ্ত গোলমালের অভিযোগ উঠতে শুরু করেছে। বিশেষ করে দিনহাটায় বিজেপি প্রার্থী অশোক মণ্ডলের প্রচারে বার বার বাধা দানের অভিযোগ ঘিরে সরব হয়েছেন বিজেপির অপর বিধায়ক মিহির গোস্বামী। কমিশনকেও বিষয়টি জানানোর কথা বলেছেন তিনি। কমিশনও যে শান্তিপূর্ণ ভোট করাতে সবরকম প্রস্তুতি রাখছে, দফায় দফায় বাহিনী বাড়ানোর বিষয়টি সেদিকেই ইঙ্গিত করছে।

News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন প্রথম কলকাতা অ্যাপ