Prothom Kolkata

Popular Bangla News Website

ভারতকে ভয় পাচ্ছে চীন! নিজেকে জাহির করতে সামরিক দক্ষতা প্রদর্শনী ড্রাগনের দেশে

1 min read

।।প্রথম ভারত।।

চীন কী ভারতকে ভয় পাচ্ছে? লাল ফৌজের বিরুদ্ধে ক্রমাগত প্রত্যাঘাত হানছে ভারত। সীমান্ত এলাকায় বাড়াচ্ছে নজরদারি। চীনকে সূচাগ্র মেদিনী স্পর্শ করতে দিতে রাজি নয় ভারত। ভারতের সামরিক বাহিনীর হাতে অত্যাধুনিক মিসাইল অগ্নি-৫। মাত্র ১৯ মিনিটে চীনের উত্তর-পূর্ব অংশের যে কোনও বড় শহরকে নিশানা করতে সক্ষম এই মিসাইল। ভারতের ক্ষতি করতে এলে চীনের অনেক জায়গাই গুঁড়িয়ে দিতে পারে এই মিসাইল। আর এ কথা মনে করেই এবার ভয় পাচ্ছে জিন পিং প্রশাসন। তাই এবার নিজেদের ক্ষমতা জাহির করতে মরিয়া চীন। নিজেদের সামরিক অস্ত্রের প্রদর্শন শুরু করে দিয়েছে জিন পিং প্রশাসন। অগ্নি-৫ নিয়ে ভারত যখন উঠে পড়ে লেগেছে, চীনও তখন চুপচাপ বসে থাকতে রাজি নয়।

ভারতের সামরিক শক্তি বৃদ্ধি, অত্যাধুনিক মিসাইল ও সমরাস্ত্রের বিপক্ষে চীন এবার নিজেদের শক্তি জাহির করার জন্য বেছে নিল নিজেদের সামরিক শক্তি প্রদর্শন। একদিকে আমেরিকা-ভারতের সুসম্পর্কের উন্নয়ন ও বিভিন্ন দেশের চীন বিরোধী মনোভাব যখন জিন পিং প্রশাসনকে চাপে ফেলছে, তখন নিজেদের শক্তি জানাতে উঠে পড়ে লেগেছে লাল ফৌজের দেশ। বিশ্বকে নিজেদের সামরিক শক্তির প্রমাণ দিতে ফের মাঠে নামল চীন। আজ থেকে দেশটির দক্ষিণাঞ্চলের গুয়াংডং প্রদেশের জুহাইতে শুরু হয়েছে ‍‘১৩তম চায়না ইন্টারন্যাশানল এভিয়েশন অ্যান্ড অ্যারোস্পেশ এক্সিবিশন অর এয়ারশো চায়না ২০২১’। মঙ্গলবার অত্যাধুনিক সব যুদ্ধবিমান আকাশে উড়িয়ে সব থেকে বড় এয়ারশো দেখাল ড্রাগনের দেশ। টানা ছ’দিন ধরে চলবে এই প্রদর্শনী। গোটা বিশ্বকে নিজেদের শক্তি জানানোর জন্য প্রদর্শনীতে তুলে ধরা হবে চীনের উচ্চমাত্রার অত্যাধুনিক সামরিক সরঞ্জামগুলি।


শক্তিশালী ড্রাগন:

প্রদর্শনীর প্রথম দিন চীনের সবথেকে অত্যাধুনিক পঞ্চম প্রজন্মের জে-২০ যুদ্ধবিমান প্রদর্শন ছিল প্রধান আকর্ষণ। ঘণ্টায় ২১০০ কিলোমিটার গতিতে উড়তে সক্ষম এই যুদ্ধবিমানটি। একি সিটের এই যুদ্ধবিমান ‍‘শক্তিশালী ড্রাগন’ নামেও পরিচিত। আকাশে বর্ণিল রং ছড়িয়ে এই যুদ্ধবিমানটি প্রদর্শনীতে উপস্থিত সকলের মন কেড়ে নেয়। অ্যারোস্পেস সংস্থা নির্মিত স্পেস ক্র্যাফ্ট, ক্যারিয়ার রকেট ও অতি উচ্চতায় উড়তে পারে এমন ড্রোনও ছ’দিনের প্রদর্শনীতে প্রদর্শন করা হবে বলে জানা গিয়েছে।


জে-১৬ সামরিক যুদ্ধবিমান ও অত্যাধুনিক বিস্ফোরক এইচ-২০:

পাশাপাশি প্রদর্শনীতে থাকবে আরও অনেক চমক। প্রথমবারের মতো জে-১৬ সামরিক যুদ্ধবিমান ও অত্যাধুনিক বিস্ফোরক এইচ-২০ প্রদর্শন করা হবে এবারের প্রদর্শনীতে। সামরিক বাহিনীর অংশগ্রহণ ছাড়াও এদিন প্রদর্শনীতে ভিড় জমান অনেক সাধারণ মানুষও। উপস্থিত এক সাধারণ দর্শক বলেন, ‍‘আমাদের সামরিক বাহিনীর অত্যাধুনিক প্রযুক্তি প্রমাণ করে দিচ্ছে চীন এই বিষয়ে বিশ্বসেরা। আমরা সবাই অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছি এইচ-২০ দেখার জন্য। অবশ্য এটি দেখার জন্য আরও কয়েকটি দিন অপেক্ষা করতে হবে। তবে আজকে সবার আকর্ষণ কেড়ে নিয়েছে জে-২০ যুদ্ধবিমান।’ প্রদর্শনীতে বিশ্বের ৪০টি দেশের ৭০০ সংস্থা অনলাইনে বা অফলাইনে অংশগ্রহণ করবে।

গতবছর প্রদর্শনীটি হওয়ার কথা থাকলেও করোনার কারণে প্রায় এক বছর পিছিয়ে যায়। তবে চীনের মনে রাখা উচিত, এই সব সমরাস্ত্র প্রদর্শনের মাধ্যমে ভারত আর ভয় পাবে না। কারণ সমরাস্ত্রের ক্ষেত্রে ভারত আর নাবালক নেই। নরেন্দ্র মোদি ভারেতের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর থেকে দেশের সামরিক শক্তি অনেকটাই বেড়েছে। সামরিক খাতেও বিপুল বিনিয়োগ হয়েছে। চীন আর পাকিস্তান বারবার হানাদারি চালালেও কিছুই করতে পারেনি। ভারতীয় সেনা তাদের রুখে দিয়েছে। এবার ‍‘শক্তিশালী ড্রাগন’-এর ঘুম কাড়তে প্রস্তুত ‍‘অগ্নি-৫’।

News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন প্রথম কলকাতা অ্যাপ